বুধবার ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

পান্থপথ এলাকা থেকে নারীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকার পান্থপথ এলাকা থেকে এক নারীর ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার হয়েছে। লাশ পাঠানো হয়েছে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে। মাত্র তিন ঘণ্টার ব্যবধানে অজ্ঞাত ওই নারীর পরিচয় শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। হত্যাকা-ের প্রকৃত কারণ উদঘাটন করতে ঘটনাস্থলের আশপাশে থাকা সব সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। ফুটেজের পর্যালোচনা চলছে।

শুধু তাই নয়, হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ এক বাড়ির এক দারোনকে আটক করেছে। আটককৃত ব্যক্তি হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদেই স্বীকার করেছে। পুলিশ যে ইচ্ছে করলেই অনেক কিছুই পারে, ঘটনাটি তাই প্রমাণ করে। মাত্র তিন ঘণ্টার ব্যবধানে ক্লুলেস হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন করে চমক দেখিয়েছে পুলিশ। মামলাটির তদন্ত করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের রমনা বিভাগ। শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে পথচারীরা জাতীয় জরুরী সেবা ৯৯৯ নম্বরে ফোন দিয়ে রাস্তায় ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় এক নারীর লাশ পড়ে থাকার খবর জানায় পুলিশকে। পুলিশ লাশের অবস্থান জেনে ঢাকার কলাবাগান থানা পুলিশকে জানায়। কলাবাগান থানা পুলিশ তাদের থানা এলাকায় অবস্থিত পান্থপথ মোড়ে বেসরকারী ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটির পাশের গলির গ্রীন রোডের ১৫২/২ নম্বর বাড়ির সামনে থেকে লাশটি উদ্ধার করে। লাশ পাঠানো হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে। কলাবাগান থানার ওসি পরিতোষ চন্দ্র জানান, সুরতহাল শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়। সেখানেই তার পরিচয় শনাক্ত করা হয়। শনাক্ত মোতাবেক ওই নারীর নাম মোমেনা বেগম (৩৫)। তার বাড়ি শেরপুর জেলায়। জাতীয় পরিচয়পত্রের সূত্র ধরে ওই নারীর পরিচয় নিশ্চিতের পর স্বজনদের ডাকা হয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান জানান, ওই নারীকে নির্মম নির্যাতনের পর হত্যা করার বিষয়টি স্পষ্ট। কারণ ওই নারীর শরীরে বহু আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘটনার পর পরই আশপাশের ভবনে থাকা সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। ফুটেজ পর্যালোচনা মোতাবেক হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার সন্দেহে আনসার (৪৮) নামের একজনকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আনসার হত্যাকান্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে। মামলাটির তদন্তকারী সংস্থা ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের রমনা বিভাগের উপকমিশনার আজিমুল হক জানান, মেয়েটি ভাসমান। অর্থের বিনিময়ে অনৈতিক কর্মকান্ডে লিপ্ত হতে দারোয়ান আনসার তাকে তার রুমে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে টাকার লেনদেন নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে আনসার তাকে নির্মমভাবে হত্যার পর লাশ রাস্তায় ফেলে দেয়। আনসারের বাড়ি নরসিংদীতে। এ ঘটনায় আরও অনেককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে অন্য কারো সম্পৃক্ত থাকার তথ্য মেলেনি। আনসার একাই হত্যাকা-টি ঘটিয়েছে বলে স্বীকার করেছে।

শীর্ষ সংবাদ:
চামড়ার বাজারে ধস ॥ প্রধান চার কারণ চিহ্নিত         মানুষের উন্নত জীবন ধারা নিশ্চিত করাই মূল লক্ষ্য         ষড়যন্ত্রকারীদের অপচেষ্টার বিরুদ্ধে সতর্ক থাকুন ॥ কাদের         নরেন দাস ছিলেন বঙ্গবন্ধুর একনিষ্ঠ সৈনিক ॥ আইনমন্ত্রী         জুলাইয়ে রেমিটেন্সে রেকর্ড         টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা নিহত         আজ শহীদ শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী         এক সপ্তাহের মধ্যে বন্যার পানি কমবে         করোনা পরীক্ষার সংখ্যা কমলেও রোগী শনাক্তের হার বেড়েছে         আওয়ামী লীগ ও যুবলীগ নেতাসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যা         ভ্যাকসিন পরীক্ষার জন্য চীনা কোম্পানির আবেদন         করোনায় চলে গেলেন টিভি ব্যক্তিত্ব বরকতউল্লাহ         খোরশেদ আলম সুজন চসিকের প্রশাসক         নেত্রকোনার ডিসি প্রত্যাহার         এমপিওভুক্ত স্কুল-কলেজ নিজস্ব জমিতে স্থানান্তরের নির্দেশ         ৯ আগস্ট থেকে একাদশ শ্রেণির ভর্তির অনলাইন কার্যক্রম শুরু         পুলিশের গুলিতে নিহত সাবেক মেজর সিনহার মাকে প্রধানমন্ত্রীর ফোন         করোনা চিকিৎসায় সহজ কোনো সমাধান নেই : ডব্লিউএইচও         পাপিয়ার বিরুদ্ধে সোয়া ৬ কোটি টাকার অবৈধ সম্পদের মামলা         বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ অনেক আগেই উন্নত দেশে পরিণত হতো : প্রযুক্তিমন্ত্রী        
//--BID Records