শুক্রবার ১৪ মাঘ ১৪২৮, ২৮ জানুয়ারী ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

শুধু লকডাউন করে করোনার বিরুদ্ধে জেতা যাবে না

  • জাতিসংঘ প্রধানের হুঁশিয়ারি

করোনাভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে বিশ্বের বহু দেশ এখন অবরুদ্ধ। এর মধ্যে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ জনসংখ্যার দেশ ভারত নিয়ে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা। বুধবার সংস্থাটির প্রধান টেড্রস আধানম গ্রেব্রেয়েসাস বলেন, অনেকেই ভাবছেন, ক’দিন ঘরে কাটাতে পারলেই করোনার হাত রেহাই মিলবে। ঠিক তা নয়। টেড্রস আধানম গ্রেব্রেয়েসাস বলেন, শুধুমাত্র লকডাউন করে ওই মারণ ভাইরাসের আক্রমণ ঠেকানো যাবে না। তিনি বলেন কোভিড-১৯’র বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্যে শুধুমাত্র ঘরবন্দী থাকা দেশ তথা গোটা বিশ্ব থেকে এই ভাইরাস নির্মূল করার পক্ষে যথেষ্ট পদক্ষেপ নয়। তিনি বলেন, কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ রোধের জন্যে, অনেক দেশই ‘লকডাউন’ ব্যবস্থা চালু করেছে। তবে শুধুমাত্র, এই পদক্ষেপের ফলে এই মহামারী হার মানবে না। আমরা সব দেশকে একসঙ্গে করোনাভাইরাসের আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আপনাকে এর বিরুদ্ধে লড়তে গেলে ও সাফল্য পেতে হলে একটি দ্বিতীয় উইন্ডো বা দ্বিতীয় পথও বেছে রাখতে হবে। লকডাউনে সংক্রমণ কমানো যেতে পারে মাত্র, কিন্তু ওই মহামারীর বিরুদ্ধে জেতা যাবে না, লোকজনকে ঘরবন্দী করে রাখলে হয়তো স্বাস্থ্য সুরক্ষায় হাতে কিছুটা সময় পাওয়া যাবে, কিন্তু পুরোপুরি দূর করা যাবে না এই রোগকে। তাই এর সামাধানে খোঁজে কাজ জরুরী। বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। একই অবস্থা ভারতেও। এই অবস্থায় আরও আক্রমণাত্মক হওয়ার কথা বললেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান। তাই এই মারণ ভাইরাসকে চিরতরে নির্মূল করতে জনস্বাস্থ্য সুরক্ষিত করার উপরে জোর দিয়েছেন তিনি।

এমনকী করোনাভাইরাসকে রুখতে চীন, দক্ষিণ কোরিয়া এবং সিঙ্গাপুরের মডেল মেনে চলার জন্যে অন্য দেশগুলোকে পরামর্শ দিচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাটি। এই সংক্রমণ রুখতে এ সব দেশে লকডাউনের পাশাপাশি প্রত্যেক সম্ভাব্য রোগীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয়েছে। একমাত্র এই মডেল মেনে চললেই স্থায়ীভাবে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ করে দেয়া সম্ভব হবে বলে মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এদিকে চীন বুধবার হুবেই প্রদেশে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে আরোপ করা কঠোর বিধিনিষেধ তুলে নিয়েছে। দেশটির অভ্যন্তরে নতুন করে আর কেউ আক্রান্ত না হওয়ায় দীর্ঘ এক মাসের লকডাউনের পর তারা এ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিল। তবে জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানায়, দেশটিতে বিদেশ থেকে আসা আরও ৪৭ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। বিদেশ থেকে আসা লোকের আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায় চীনে বিদেশ থেকে আসা মোট ৪৭৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এদের অধিকাংশই চীনের নাগরিক। তারা বিদেশ থেকে দেশে ফিরেছে। বুধবার স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানান, চীনে করোনাভাইরাসে আরও ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ জনই হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা। গত বছরের শেষের দিকে সেখানে প্রথম করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়।

শীর্ষ সংবাদ:
লবিস্ট নিয়োগের এত টাকা কোথা থেকে এলো         মেট্রোরেলের পুরো কাঠামো দৃশ্যমান         ইসি গঠন আইন পাস ॥ স্বাধীনতার ৫০ বছর পর         দেশী উদ্যোক্তাদের বিদেশে বিনিয়োগের পথ উন্মুক্ত         এ মাসে নির্মল বাতাস মেলেনি রাজধানীতে         কঠিন হলেও দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনই সমাধান         শাবিতে অহিংস আন্দোলন চলবে ॥ ভিসি সরিয়ে নেয়ার গুঞ্জন         দেশে করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু         জাতির পিতা হত্যার পর কবি, আবৃত্তিকাররাই প্রতিবাদ করেছেন         দেশে করোনার চেয়ে অসংক্রামক রোগে মৃত্যু বেশি         নায়ক না ভিলেন-শিল্পীরা কাকে বেছে নেবেন?         রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রের নেপথ্যে কে- বের হয়ে আসছে         পরপর দু’বছর দেশসেরা, সিএমপির গতি আরও বাড়বে         দেশের সর্বনাশ করতেই বিএনপির লবিষ্ট নিয়োগ : সংসদে প্রধানমন্ত্রী         ৪৪তম বিসিএসের আবেদন ২ মার্চ পর্যন্ত         জমি অধিগ্রহণে আমার লাভবান হওয়ার খবর উদ্দেশ্যপ্রণোদিত : শিক্ষামন্ত্রী         জানুয়ারিতে ‘অস্বাস্থ্যকর বায়ু’ ছিল ঢাকায়         করোনায় আরও ১৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৫৮০৭         গাইবান্ধায় ইভিএম এর মাধ্যমে গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হবে ॥ কবিতা খানম