ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

যশোরে সৎবাবার হাতে প্রতিবন্ধী মেয়ে খুন

প্রকাশিত: ০৯:০০, ৩০ আগস্ট ২০১৯

যশোরে সৎবাবার হাতে প্রতিবন্ধী মেয়ে খুন

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ সদর উপজেলার লেবুতলা ইউনিয়নের আগরাইল গ্রামে সৎবাবার ছুরিকাঘাতে সুমী খাতুন (২৫) নামের শারীরিক প্রতিবন্ধী নিহত হয়েছে। বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। হত্যাকা-ের পর থেকে ঘাতক বাবা পলাতক রয়েছে। নিহতের মা রেশমা বেগম ও খালা শিল্পী বেগম জানান, সুমীকে নিয়ে তারা ঢাকায় থাকেন এবং ঠেলাগাড়িতে করে ভিক্ষা করেন। সুমীর সৎবাবা নাজমুল ইসলাম ঢাকায় রিক্সাচালায়। কোরবানির ঈদের আগে তারা যশোরে যান। রেশমা বেগম জানান, সুমী তার প্রথম ঘরের সন্তান। এই সংসারে তার তিন ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। সম্প্রতি পরের সংসারের বড় মেয়ে সাথীর বিয়ের কারণে নাজমুল ইসলাম সুমীর কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা ধার নেয়। সুমীর উপার্জিত ওই টাকা ঈদের পরেই দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু নাজমুল ইসলাম ধারের সেই টাকা দিতে গড়িমসি করে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কয়েকদিন ধরে ঝগড়া হচ্ছে। বুধবার রাতেও তাদের মধ্যে গ-গোল ও হাতাহাতি হয়। একপর্যায়ে নাজমুল ইসলাম একটি ছুরি দিয়ে সুমীর পেটে আঘাত করে। পরে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় তাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, রাত সাড়ে তিনটার দিকে সুমীকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তার ১০ মিনিট পরই সে মারা যায়। লৌহজংয়ে অজ্ঞাত নারী স্টাফ রিপোর্টার মুন্সীগঞ্জ থেকে জানান, লৌহজংয়ে পদ্মা নদী থেকে অজ্ঞাত (২৫) এক নারীর গলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার শিমুলিয়া ঘাটের ৩ নম্বর ফেরিঘাট সংলগ্ন নদী থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ পদ্মা নদী থেকে নারীর মরদেহটি উদ্ধার করে। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। বগুড়ার দুপচাঁপিয়ায় ভ্যানচালক স্টাফ রিপোর্টার বগুড়া অফিস থেকে জানান, দুপচাঁচিয়া উপজেলায় সমজান সরদার ওরফে শুদ্ধি (৬৫) নামের এক বৃদ্ধ অটোভানচালক (ব্যাটারি চালিত রিক্সাভ্যান) খুন হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে দুর্বৃত্তরা তাকে খুন করে তার রিক্সাভ্যান ছিনতাই করে। নিখোঁজ থাকার দু’দিন পর একটি ধানক্ষেতে বৃহস্পতিবার সকালে তার লাশ পাওয়া যায়। সমজান সরদার উপজেলার ঝাঝিরা পশ্চিমপাড়া মৃত ছলিম সরদারের ছেলে। পুলিশ ও পারিবারিক সূত্র জানায়, সমজান মঙ্গলবার রাতে ভ্যানে যাত্রী নিয়ে স্থানীয় তালুচের মজিদ নগর এলাকায় যাওয়ার পর থেকে নিখোঁজ হন। এরপর আর তিনি বাড়ি ফেরননি। পরিবারের লোকজন বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ করে তার সন্ধান না পেয়ে পুলিশকে জানায়। বৃহস্পতিবার ভোরে একই এলাকার নূরপুর গ্রামের একটি ধানক্ষেতে তার লাশ পাওয়া যায়। ধামরাইয়ে যুবক সংবাদদাতা সাভার থেকে জানান, ঢাকার ধামরাইয়ে পূর্বশত্রুতার জেরে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ধামরাইয়ের সানোরা ইউনিয়নের সুইসখালী গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি ধামরাইয়ের সুইসখালী গ্রামের শেখ শাজাহান মিয়ার ছেলে শেখ ফরিদ (৩২)। ফরিদ পেশায় একজন প্রাইভেটকারচালক ছিলেন। ধামরাই থানার এসআই শংকর চন্দ্র সরকার জানান, মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কোপের চিহ্ন রয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পূর্বশত্রুতার জের ধরেই এই হত্যাকা- ঘটেছে।