ঢাকা, বাংলাদেশ   রোববার ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

সেচ মৌসুমের জন্য বাড়তি গ্যাস চায় বিদ্যুত মন্ত্রণালয়

প্রকাশিত: ০৬:৪১, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮

সেচ মৌসুমের জন্য বাড়তি গ্যাস চায় বিদ্যুত মন্ত্রণালয়

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রতিবছরের মতো ২০১৯ সালের সেচ মৌসুমে বিদ্যুতের চাহিদা বেড়ে ১৩ হাজার ৫০০ মেগাওয়াট হবে। যা ২০১৮ সালে ছিল ১০ হাজার ৯৫৮ মেগাওয়াট। এজন্য যে গ্যাসের প্রয়োজন হবে। এ সময়ের জন্য প্রয়োজনীয় গ্যাস সরবরাহ করতে পেট্রোবাংলাকে অনুরোধ জানানো হয়। পাশাপাশি প্রতিবছরের মতো এ বছরও সেচ পাম্পে রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহ করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ২৪ ডিসেম্বর বিদ্যুত ভবনে অনুষ্ঠিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এই অনুরোধ করা হয়। বিদ্যুত বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউসের সভাপতিত্বে সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, রেলপথ মন্ত্রণালয়, কৃষি মন্ত্রণালয়সহ কয়েকটি মন্ত্রণালয়/বিভাগের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় জানানো হয়, প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি থেকে ৩১ মে পর্যন্ত সেচ মৌসুম থাকে। এ সময় বিদ্যুতের অতিরিক্ত চাহিদা থাকে। গত সেচ মৌসুমে বিদ্যুতের সর্বোচ্চ চাহিদা ছিল ১০ হাজার ৯৫৮ মেগাওয়াট। যা ২০১৯ সালের সেচ মৌসুমে বেড়ে হবে ১৩ হাজার ৫০০ মেগাওয়াট। এ জন্য গ্যাসের চাহিদা রয়েছে বলে সভায় পেট্রোবাংলাকে আগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্যাস সরবারাহের অনুরোধ করা হয়। বিদ্যুত সচিব জ্বালানি পরিবহনে সংশ্লিষ্টদের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা চালানোর অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘কৃষিকে অগ্রাধিকার দিয়ে আমাদের সমন্বিতভাবে কাজ করা উচিত।’ এ সময় বিদ্যুত ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার অনুরোধ জানানো হয়। সভায় জানানো হয়, মোট অনুমোদিত ৪ লাখ ১৬ হাজার ২৩১টি সেচ বিদ্যুতচালিত এবং এর জন্য লোডের পরিমাণ ২ হাজার ৪০৬ দশমিক ৭১২ মেগাওয়াট বিদ্যুত। প্রতিবছরের মতো এবারও সেচ পাম্পগুলোতে রাত ১১টা থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহ নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
monarchmart
monarchmart