ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

বগুড়ায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে কিশোর খুন

প্রকাশিত: ০৪:১০, ২৭ আগস্ট ২০১৮

বগুড়ায় বন্ধুর ছুরিকাঘাতে কিশোর খুন

স্টাফ রিপোর্টার, বগুড়া অফিস ॥ বগুড়ার শেরপুরের গ্রামে কিশোর বয়সী বন্ধুর ছুরিকাঘাতে বন্ধু খুন হয়েছে। তার নাম সোহান (১৭)। সে গোপালপুর গ্রামের সুজন মিয়ার ছেলে। শনিবার সন্ধ্যার পর সোহান ও মিজান বাড়ির পাশে সড়ক দিয়ে যাচ্ছিল। পথে দেখা হয় তাদের বন্ধু ফুলবাড়ি গ্রামের মোরশেদের (১৬) সঙ্গে। মোরশেদ বন্ধু সোহাগকে টিপ্পনি কাটলে প্রতিবাদ করে। এ সময় মোরশেদ সোহানকে ছুরিকাঘাত করে। দ্রুত তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। মধ্য রাতে সে মারা যায়। এলাকার লোকজন মোরশেদকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। . নেত্রকোনায় ছাত্র ও বৃদ্ধ নিজস্ব সংবাদদাতা নেত্রকোনা থেকে জানান, বন্ধুর বোনের বিয়েতে গিয়ে পিয়াস মিয়া (১৮) নামে এক স্কুলছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। সে ওই উপজেলার রায়পুর ইউনিয়নের কর্ণপুর গ্রামের খোরশেদ মিয়ার ছেলে। সে চল্লিশ কাহনিয়া হাফিজ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। শনিবার রাত ১১ টার দিকে রামপুর কান্দাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, পিয়াস শনিবার রাতে রামপুর কান্দাপাড়া গ্রামে বন্ধু নজরুলের বোনের বিয়েতে যায়। রাত ১২টার দিকে পার্শ^বর্তী ফকিরের বাজারে তাকে অচেতন অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয় লোকজন। পরে স্বজনরা এসে তাকে দ্রুত নেত্রকোনা সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে রাত দুইটার দিকে তার মৃত্যু হয়। পিয়াসের স্বজনরা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেনÑ নজরুল এবং তার ভাই রুবেল ও পরিবারের অন্য লোকজন পিয়াসকে হত্যা করেছে। অন্যদিকে নজরুলের স্বজনরা দাবি করেন, পিয়াস বিয়েবাড়িতে জেনারেটরের তারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আহত হওয়ার পর মারা গেছে। অন্যদিকে নিখোঁজ হওয়ার দু’দিন পর নদী থেকে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রবিবার দুপুরে সদর উপজেলার দেওপুর এলাকায় মগড়া নদী থেকে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ ভাসমান অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করে। নিহত ব্যক্তির নাম আব্দুস সাত্তার (৬০)। তিনি সদর উপজেলার বিশ^নাথপুর গ্রামের বাসিন্দা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আব্দুস সাত্তার গত শুক্রবার বিকেলে নিজ বাড়ি থেকে বের হন। এরপর আর তিনি বাড়ি ফেরেননি। . বাগেরহাটে নবজাতক স্টাফ রিপোর্টার বাগেরহাট থেকে জানান, বাগেরহাট শহরের নাগেরবাজার এলাকার বাইলার খাল থেকে একটি ছেলে নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার দুপুরে নবজাতকটির মরদেহ উদ্ধার করে বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। বাগেরহাট মডেল থানার ওসি মাহতাব উদ্দিন জানান, বাইলার খালে একটি নবজাতকের মরদেহ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা থানায় খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই নবজাতকের মরদেহ উদ্ধার করে। . শেরপুরে ৪ সন্তানের জনক নিজস্ব সংবাদদাতা শেরপুর থেকে জানান, নালিতাবাড়ীতে গর্ভধারিনী মা ও সহোদর বোনকে অপমান এবং স্ত্রী-সন্তান ও শ্যালক-শ্যালিকার হাতে লাঞ্ছিত হওয়ার পর ছামিদুল ইসলাম ওরফে সানাউল্লাহ (৪৮) নামে ৪ সন্তানের জনকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার রাতে পৌর শহরের চকপাড়া মহল্লায় ওই ঘটনা ঘটে। সানাউল্লাহর মা ইউপি সদস্য সবুরন নেছা জানান, আমার ছেলেকে হত্যা করে তারা ঘরে ঝুলিয়ে রেখেছে। পরে ছেলের বউ ও নাতি আমাকে ফোন করে বলে যে, ‘ তোর ছেলে মইরা গেছে, লাশ নিয়া যা’। আমি এ জন্য মামলা করব। . নান্দাইলে বড় ভাই সংবাদদাতা নান্দাইল, ময়মনসিংহ থেকে জানান, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ফিরোজ মিয়া (৬০) নামে এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন। রবিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার আচারগাঁও ইউনিয়নের পূর্ব শিবনগর গ্রামে এই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় নিহতের পুত্র মাসুদ মিয়া (২৫) তার বাবাকে বাঁচাতে গিয়ে গুরুতর আহত হয়েছে। জানা যায়, নিহত ফিরোজ মিয়া একজন পল্লীচিকিৎসক। রবিবার জমিজমার মালিকানা নিয়ে ফিরোজ মিয়া ও মিলন মিয়ার মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে মিলন ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার বড় ভাইয়ের মাথায় আঘাত করে। এতে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। ফিরোজের পুত্র মাসুদ তার বাবাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাকেও মাথায় আঘাত করে মিলন। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন আহত দুজনকে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ফিরোজকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। . নারায়ণগঞ্জে নারীসহ দুই স্টাফ রিপোর্টার নারায়ণগঞ্জ থেকে জানান, দুটি স্থান থেকে নারীসহ দু’জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। রবিবার সকালে সদর উপজেলার ফতুল্লার নন্দলালপুর এলাকার একটি ডোবা থেকে ওমর ফারুক (৫৫) নামে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এদিকে শনিবার রাতে সোনারগাঁও উপজেলার কাঁচপুর ইউনিয়নের চেঙ্গান এলাকার একটি খাল থেকে খুশি আক্তার (২৫) নামে এক নারীর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া লাশ দুটির ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। . ঠাকুরগাঁওয়ে গৃহবধূ নিজস্ব সংবাদদাতা ঠাকুরগাঁও থেকে জানান, সদর উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের রেহেনা (২৭) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রবিবার বেলা সাড়ে ১১টায় গৃহবধূর স্বামীর বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করে মর্গে পাঠায় পুলিশ। মৃত রেহেনা দৌলতপুর গ্রামের আবুল খায়ারের মেয়ে। তবে রেহেনার পরিবারের দাবি তার স্বামী সাইফুলই তাকে হত্যার পর নিজ ঘরে ঝুলিয়ে রেখেছে। গৃহবধূর ভাই সাবু অভিযোগ করে বলেন, বিয়ের পর থেকে শ্বশুর বাড়ির জমি নিতে রেহেনার স্বামী তার ওপর নির্যাতন চলিয়ে আসছিল। রবিবার সকালে একই বিষয় নিয়ে ঝগড়ার এক পর্যায়ে রেহেনাকে সাইফুল ও তার বন্ধু আখতারুল বেধরক মারপিট করে। পরে স্থানীয়রা তাদের খবর দিলে তারা গিয়ে বোনের মৃতদেহ তার স্বামীর ঘরে ঝুলে থাকতে এবং ঝুলন্ত লাশের পা মাটিতে লেগে থাকতে এবং শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখে তার বোনকে নির্যাতন করে মেরে ফেলা হয়েছে অভিযোগ করে হত্যাকারীর কঠোর শাস্তি দাবি করেন।
monarchmart
monarchmart