মঙ্গলবার ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৪ আগস্ট ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

চটকদারী নামের পরিবর্তে এবার গুণগত প্রাধান্য

  • শিশুদের ঈদ

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ শিশুদের মাঝেই ঈদের সব আনন্দ যেন লুকিয়ে আছে। নতুন পোশাক কিনতে হবে, বন্ধুদের গল্প করতে হবেÑ আরও কত কী। পাঁচ বছরের ঐশ্বর্য তার মায়ের সঙ্গে যশোরের মুজিব সড়কের ‘আরপিএস’ শো-রুমে। ঐশ্বর্যরে চাই ‘কাটাপ্পা’। কিন্তু এত ছোটদের জন্য কি আর ‘কাটাপ্পা’ ড্রেস পাওয়া যায়? কিন্তু সে তো নাছড়বান্দা। কাটাপ্পা তার চাই-ই-চাই। অবশেষে অনেক বুঝিয়ে গাউন টাইপের একটি পোশাক পছন্দ করালেন তার মা। জরি, স্প্রিং, গ্লাস, চুমকির চুরিদাড়ি কাজের এই পোশাকটি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই যেন ঈদের খুশি শুরু হয়ে গেল তার। ঐশ্বর্যের মতো শিশুদের জন্যই শুধু নয়, জিরো থেকে ষোলো বছরের শিশুদের জন্যও পোশাক আছে মুজিব সড়কের অভিজাত শো-রুমগুলোতে। পাশাপাশি এইচএমএম রোড (বড় বাজার), কালেক্টরেট মার্কেটের দোকানগুলোতে সাশ্রয় মূল্যে শিশুদের পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। জিরো থেকে ১২/১৪ বছরের ছেলেদের জন্য টি-শার্ট, পলো-গেঞ্জি, শার্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, থ্রি কোয়ার্টার প্যান্ট, হাফ প্যান্ট, ফ্রল প্যান্ট তোলা হয়েছে। মেয়ে শিশুদের জন্য বরাবরের মতোই রয়েছে ফ্রক, লং ফ্রক বা ফ্লোরটাচ, গাউন, টপস, টাইস, থ্রি পিস, টু পিস, ওয়ান পিস ইত্যাদি।

পোশাকে ‘চটকদারী নামের পরিবর্তে কোয়ালিটিকে প্রাধান্য দিয়েছেন’ বলে জানিয়েছেন মুজিব সড়ক, সিটি প্লাজার ব্যবসায়ীরা। তবে গতবারের মতো এবারও কালেক্টরেট মার্কেট ও বড় বাজারের কিছু দোকানে বিভিন্ন নামধারী পোশাক পাওয়া যাচ্ছে। বিক্রয়কর্মীদের ভাষ্যানুযায়ী, এ বছরও মোদি ড্রেসের প্রভাব আছে। এই ড্রেসের দাম শুরু হয়েছে ৬শ’ থেকে, আছে তিন হাজার টাকা পর্যন্ত। এই মার্কেট দুইটিতে ৩-১৪ বছরের শিশুদের ফ্রক সাড়ে ৪শ’-৮শ’ টাকা, গাউন ৮শ’ টাকা থেকে ৩ হাজার টাকা, লেহেঙ্গা ১ হাজার ২শ’ থেকে ৩ হাজার টাকা, স্কাট ১ হাজার থেকে ২ হাজার ২শ’ টাকা, লং ফ্রক ১ হাজার থেকে ১ হাজার ৫শ’ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। কাপড়ের কোয়ালিটি অনুযায়ী ক্রেতারা ছেলে শিশুর জন্য জিন্স প্যান্ট ৭শ’, শার্ট ৬শ’ এবং টি-শার্ট ৫শ’ টাকায় কিনতে পারবেন।

মুজিব সড়কের বেবি শপ, আরপিএস, কাশফুল, তাড়ং, রঙ-এর শো-রুমগুলোতে ঘুরে একই আইটেমের নানান কোয়ালিটির পোশাক পাবেন ক্রেতারা। জিরো থেকে ১০ বছরের শিশুদের জন্য নিজস্ব ফেব্রিক্স ও ডিজাইনের পোশাকে সাজানো হয়েছে বেবি শপ। বেবি শপের যশোর মুজিব সড়ক ব্রাঞ্চ ম্যানেজার রানা শিকদার জানান, ‘৬৪টি জেলায় তাদের শো-রুমে রয়েছে এই সব পণ্য। কটন, লিনেন, গেঞ্জি কাপড়ের ওয়াশ প্রোডাক্টগুলো ক্রেতাদের পছন্দসই করেই তৈরি হয়েছে। বেচাবিক্রি বেশ ভাল।’

শীর্ষ সংবাদ:
পাটুরিয়া ঘাটে ঈদফেরত যাত্রী-যানবাহনের চাপ বাড়ছে         ৬৫ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শুরু হচ্ছে মিড-ডে মিল কার্যক্রম         স্বাস্থ্যবিধি মেনে জীবন-জীবিকাকে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে : জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী         বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি শুরু         মুজিববর্ষে সারাদেশে শতভাগ বিদ্যুতায়ন করা হবে : বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী         রাত ৮টার মধ্যে দোকানপাট ও শপিংমল বন্ধের নির্দেশ         জামালপুরে নৌকাডুবিতে দুই শিশুসহ তিন জনের মৃত্যু         গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় ৩০ জনের মৃত্যু         চলাচল নিয়ন্ত্রণ থাকবে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত         ১৫ আগস্টের ষড়যন্ত্রকারীদের অপচেষ্টা আজও চলমান ॥ কাদের         বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ২৫ হাজার মানুষকে সহায়তা দেবে ইইউ         সব ধরনের কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার নির্দেশ        
//--BID Records