রবিবার ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

রোহিঙ্গাদের জন্য দ্বিতীয় দফায় ভারতের ৩৭৩ টন ত্রাণসামগ্রী হস্তান্তর

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ সহিংসতার মুখে মিয়ানমারের রাখাইন থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য দ্বিতীয় ধাপে ৩৭৩ মেট্রিক টন ত্রাণ নিয়ে এসেছে ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ ‘ঐরাবত’। বিশাখাপত্তম বন্দর থেকে চট্টগ্রাম বন্দরে আসা এ ত্রাণসামগ্রী বুধবার জেলা প্রশাসনের কাছে হস্তান্তর করেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া।

ত্রাণমন্ত্রী ভারতের এই মানবিক সহায়তার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশের পাশাপাশি বলেন, আমরা চাই রোহিঙ্গা সঙ্কটে একটি স্থায়ী সমাধান। ভারত আমাদের বন্ধুপ্রতীম দেশ। আমরা পরস্পরের বন্ধু দেশ। একজন আরেকজনের সাহায্যে এগিয়ে যাবে সেই প্রতিশ্রুতি রয়েছে। তবে শুধু সাহায্য দেয়াটাই সমস্যা সমাধান নয়, আমরা চাই রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নিতে ভারতের বিশেষ ভূমিকা। তিনি বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের রাখাইনে ফেরাতে আন্তর্জাতিক চাপ সৃষ্টি করতে ভারতের ভূমিকা প্রত্যাশা করেন। ত্রাণমন্ত্রী মায়া জানান, মিয়ানমার থেকে প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে। এরমধ্যে আমরা ১১ লাখ ১২ হাজার ৩০৮ জনকে নিবন্ধন করতে সক্ষম হয়েছি। তাদের জন্য ৩০টি ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। ৩৬ হাজার ৩৭৩ জন অনাথ শিশুর সন্ধান করতে পেরেছি। রোহিঙ্গাদের অস্থায়ী বাসস্থান গড়তে সরকারের পদক্ষেপ প্রসঙ্গে মন্ত্রী জানান, টেকনাফ এবং উখিয়ায় ৯ কিলোমিটার বিদ্যুতায়ন, ১৩ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক এবং পানির জন্য ১০ কিলোমিটার খাল খনন করা হয়েছে। পাাহড়ের অবস্থা প্রসঙ্গে জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, প্রথমে আবাসন এবং পরে জ্বালানির জন্য গাছপালা কেটে ফেলায় ওই এলাকা বৃক্ষশূন্য হয়ে পড়েছে। পাহাড়ে গাছপালা না থাকায় সেখানে এখন বেশ জ্বালানি সঙ্কট। ভারত ২৫ হাজার স্টোভ ও কেরোসিন তেল দিয়ে রান্নার ব্যবস্থা করে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। পরের ধাপে এগুলো এলে রোহিঙ্গাদের জ্বালানি সমস্যা অনেকটা দূর করা সম্ভব হবে। ভারতের কাছ থেকে ত্রাণ সহযোগিতার চেয়েও বাংলাদেশ আরও বেশি কিছু প্রত্যাশা করে জানিয়ে তিনি রোহিঙ্গা ফেরাতে ভারত সরকারের জোরালো ভূমিকা কামনা করেন।

ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা বলেন, বাংলাদেশে যে পরিমাণ রোহিঙ্গা এসেছে তা মানবিক বিপর্যয়। এত বেশিসংখ্যক বাস্তুচ্যুত মানুষের আশ্রয় দিয়ে বাংলাদেশ মানবিক দায়িত্ব পালন করেছে। বাংলাদেশের এ প্রচেষ্টাকে আমরা সমর্থন জানাই। একইসঙ্গে রোহিঙ্গা সঙ্কটের স্থায়ী সমাধানে নিজ দেশের আন্তরিকতার বিষয় উল্লেখ করতে গিয়ে তিনি বলেন, আপনাদের সঙ্গে আমাদেরও প্রচেষ্টা রয়েছে, যেন বাস্তুচ্যুত এই মানুষগুলো নিজ দেশে ফিরে যেতে পারে। এ রোহিঙ্গাদের জন্য রাখাইন প্রদেশে কম খরচে বাসস্থানসহ আর্থসামাজিক সুবিধা নিশ্চিত করতে কাজ করছে ভারত। এদের নিরাপদ ও স্থায়ী প্রত্যাবাসন সহজতর করার জন্যই রাখাইনে বসতি স্থাপনে সহযোগিতা প্রদান করা হচ্ছে। এত বিপুলসংখ্যক বাস্তুচ্যুত মানুষকে আশ্রয় দেয়া বড় ধরনের একটি চ্যালেঞ্জ।

শীর্ষ সংবাদ:
নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে কল কারখানা নয়         তিন বন্দর দিয়ে ভারতে আটকে থাকা পেঁয়াজ আসা শুরু         দুর্নীতির বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান অব্যাহত রয়েছে ॥ কাদের         কওমি বড় হুজুর আল্লামা শফীকে চিরবিদায়         ওষুধ খাতের ব্যবসা রমরমা         করোনার নমুনা পরীক্ষা ১৮ লাখ ছাড়িয়েছে         করোনা সংক্রমণ বাড়ছে ॥ ফের লকডাউনে যাচ্ছে ইউরোপ         বিশেষ মহলের ইন্ধন-ভাসানচরে যাবে না রোহিঙ্গারা         তুলা উৎপাদনে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার         দগ্ধ আরও দুজনের মৃত্যু, তিতাসের গ্রেফতার ৮ জন দুদিনের রিমান্ডে         শিক্ষার ক্ষতি পোষাতে বিশেষ প্রকল্প আগামী মাস থেকেই ॥ করোনায় সব লণ্ডভণ্ড         আর কোন জিকে শামীম নয় ॥ গণপূর্তের দৃশ্যপট পাল্টেছে         ব্যক্তিগত ও পারিবারিক দ্বন্দ্বই অধিকাংশ খুনের কারণ         এ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার উন্নতি         বর্তমান সরকারের আমলে রেলপথে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে : রেলপথমন্ত্রী         ইউএনও ওয়াহিদা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে বদলী, স্বামী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে         সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল পরিচালকের রুম ঘেরাও         চিরনিদ্রায় শায়িত হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী         সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছি ॥ মির্জা ফখরুল         করোনা ভাইরাস ॥ ভারতে একদিনে ১২৪৭ জনের মৃত্যু