ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

যৌতুক ॥ সাভারে গৃহবধূ খুন

প্রকাশিত: ০৪:২৯, ২৮ এপ্রিল ২০১৮

যৌতুক ॥ সাভারে গৃহবধূ খুন

নিজস্ব সংবাদদাতা, সাভার, ২৭ এপ্রিল ॥ যৌতুকের টাকা না পেয়ে সাভারে সালমা বেগম (১৮) নামের এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে পাষন্ড স্বামী হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার পর থেকে স্বামীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। শুক্রবার সকালে পৌর এলাকার আইচানোদ্দার একটি ভাড়া বাসা থেকে পুলিশ ওই গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে। নিহত গৃহবধূর মামাত ভাই রিয়াদ জানায়, কয়েকদিন ধরে গৃহবধূ সালমা বেগমকে তার বাবার বাড়ি থেকে দশ লাখ টাকা যৌতুক নিয়ে আসার জন্য চাপ দিচ্ছিল স্বামী সোহেল মিয়া। কিন্তু, সালমা টাকা আনতে অস্বীকার করলে বৃহস্পতিবার রাতের কোন এক সময় তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পালিয়ে যায় স্বামীসহ শ^শুরবাড়ির লোকজন। খবর পেয়ে শুক্রবার সকালে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। নিহত গৃহবধূর বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার দরবেশপুর গ্রামে। গাজীপুরে ছেলের হাতে বাবা স্টাফ রিপোর্টার গাজীপুর থেকে জানান, নির্মাণাধীন ঘরে জানালা দেয়ার বিরোধকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধ পিতাকে আছড়িয়ে হত্যা করেছে তার ছেলে ছমির উদ্দিন (২৮)। ঘটনার পর নিহতের ছেলে বাড়ি থেকে পালিয়েছে। নিহতের নাম গিয়াস উদ্দিন (৭০)। তার বাড়ি জয়দেবপুর থানার ভাওয়াল গাজীপুরে। জয়দেবপুর থানার এসআই মোঃ বাছেদ মিয়া জানান, ভাওয়াল গাজীপুর এলাকায় ছমির উদ্দিনের ঘরের জানালা বরাবর তার বড়ভাইয়ের নির্মাণাধীন ঘরের জানালা তৈরি করা নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ছমির উদ্দিনের সঙ্গে তার বাবা গিয়াস উদ্দিনের বাগবিত-া ও ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে ছমির উদ্দিন উত্তেজিত হয়ে তার বৃদ্ধ পিতাকে উঁচুতে তুলে মাটিতে আছাড় দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই গিয়াস উদ্দিন মারা যান। এ ঘটনার পর ছমির উদ্দিন ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে রাতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে। সিলেটে ব্যবসায়ী স্টাফ রিপোর্টার সিলেট অফিস থেকে জানান, বিয়ানীবাজারে এক ব্যবসায়ীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত ব্যক্তির নাম সৈবন আহমদ (৫৫)। তিনি বিয়ানীবাজার পৌরশহরের জামান প্লাজার আবরণী ফ্যাশনের মালিক। শুক্রবার সকালে চারখাই ইউনিয়নের কনকলস এলাকা থেকে গলাকাটা অবস্থায় তার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয় স্থানিয়রা। সৈবন আহমদ বিয়ানীবাজার পৌরসভার দাস গ্রাামের বাসিন্দা। তিনি বৃহস্পতিবার রাতে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানান। রাজশাহীতে শিশু স্টাফ রিপোর্টার রাজশাহী থেকে জানান, গোদাগাড়ীতে নিখোঁজের ১৭ ঘণ্টা পর শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত ৩টার দিকে বাড়ির আঙ্গিনায় খড়ির মাচার নিচে সাড়ে ৩ বছর বয়সের শিশু তামিমের লাশ পাওয়া যায়। নিহত তামিমের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলে জানান গোদাগাড়ী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আলতাফ হোসেন। অপহরণের পর তাকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়েছে। নিহত তামিম উপজেলার মাটিকাটা রেলগেট বাইপাস এলাকার রাসেলের ছেলে। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে তামিমের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পুলিশ পরিদর্শক আলতাফ হোসেন বলেন, তামিমের লাশ পুলিশ হেফাজতে নিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মাথায় আঘাত করে শিশুটিকে খুন করে খড়ির মাচার নিচে লুকিয়ে রাখা হয় বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। তামিমের বাবা রাসেল জানান, বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টা থেকে খেলার জন্য বাড়ি থেকে বের হয় শিশু তামিম। এর পর তার আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। সারাদিন আশপাশের এলাকা ছাড়াও পুকুরের পানিতেও খোঁজা হয়েছে। এছাড়াও বিকেলে এলাকায় মাইকিং করা হয়। রাসেল বলেন, রাত ৩টার দিকে তামিমের ফুফু রুবিনা খাতুন বাড়ির আঙ্গিনায় খড়ির মাচার নিচে লাইট মেরে জাল দিয়ে জড়ানো কিছু একটি দেখতে পায়। এতে সন্দেহ হলে সবুজ জাল ধরে টেনে বের করে। সেখানে পাওয়া যায় তামিমের লাশ। নিহত তামিমের বাবা রাসেল হোসেন বলেন, কারো সঙ্গে তার বিরোধ নেই। তবে জমিজমা নিয়ে মাঝেমধ্যে প্রতিবেশী কয়েকজনের সঙ্গে ঝামেলা হয়েছে। কে বা কারা আমার অবুঝ শিশুটিকে হত্যা করেছে- তা বুঝে উঠতে পারছি না। জামালপুরে শিশু নিজস্ব সংবাদদাতা জামালপুর থেকে জানান, সদর উপজেলার বাঁশচড়া ইউনিয়নে লাবিব নামের ছয় বছরের এক শিশুকে অপহরণের পর কোমল পানীয়ের জুস প্যাকেটে নেশাজাতীয় ওষুধ মিশিয়ে হত্যা করার অভিযোগে পুলিশ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। তারা বৃহস্পতিবার বিকেলে অপহরণের পর শিশুটিকে অচেতন করে মুক্তিপণ আদায়ের ফাঁদ পেতেছিল। এ ঘটনায় জামালপুর সদর থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। শিশুটির পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, বাঁশচড়া ইউনিয়নের ঝাউলা গোপালপুরে বন্দেবাড়ি গ্রামের ওমান প্রবাসী ইউছুফ আলীর ছয় বছরের শিশুসন্তান লাবিব বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে নিখোঁজ হয়। শিশুটির সন্ধানে আশপাশে অনেক খোঁজাখুঁজি এবং এলাকার মসজিদ থেকে মাইকেও প্রচার করা হয়। সন্ধ্যার দিকে একটি মুঠোফোন নম্বর থেকে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তি শিশুটির মা লাবনী খাতুনকে ফোন করে জানায়, তার ছেলে লাবিব ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে আছে। তাকে নিতে হলে সেখানে যেতে হবে। বিষয়টি নিয়ে লাবনী খাতুন পরিবারের স্বজনদের সঙ্গে আলোচনা করে রাত দশটার দিকে সদর উপজেলার নরুন্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ওই ফোন নম্বর ও ফোনের কথাগুলো উল্লেখ করে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে নরুন্দি তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক আনছার উদ্দিন অনুসন্ধান চালিয়ে রাত দেড়টার দিকে নিশ্চিত হন যে শিশু লাবিবকে তাদের বাড়ির কাছেই একটি ধানক্ষেতে ফেলে রাখা হয়েছে। পরে পুলিশ স্থানীয় ফয়সাল খন্দকার নামের এক যুবকের বাড়ির পাশের ধানক্ষেত থেকে শিশু লাবিবকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে রাতেই জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। শুক্রবার ভোরে পুলিশ গ্রামবাসীর সহায়তায় একই গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে ফয়সাল খন্দকার (২৪) এবং পূর্ব বাঁশচড়া গ্রামের ইউনুছ আলীর ছেলে সানোয়ার হোসেনকে (২৫) গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। পরে পুলিশ ওই দু’জনের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী স্থানীয় ঝাওলা গ্রামের খবির হোসেনের ছেলে বাবুল হোসেনকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে। রংপুরে যুবক নিজস্ব সংবাদদাতা রংপুর থেকে জানান, মহানগরের মেকুরা পাঠানপাড়া নয়াটারী এলাকায় জুয়েল মিয়া (২৬) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে রংপুর কোতোয়ালি থানার পুলিশ। শুক্রবার সকালে পাঠানপাড়া সংলগ্ন ঘাঘট নদীর দ্বিতীয় ঘাট সংলগ্ন একটি ভুট্টাক্ষেত থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। লাশটি ক্ষেতের মধ্যে গর্ত করে মাথা পুঁতে রাখা হয়েছিল। নিহত জুয়েল মেকুরা এলাকার সিদ্দিক মিয়ার ছেলে। কি কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে পুলিশ এ ব্যাপারে কিছু জানাতে পারেনি। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। নিহতের পিতা সিদ্দিক মিয়া জানান, বৃহস্পতিবার রাতের আহার শেষে জুয়েল তার মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। দীর্ঘ সময় বাড়িতে ফিরে না আসায় তার পরিবারের সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় খুঁজতে থাকে। সকালে স্থানীয়রা ঘাঘট নদীর ঘাটে ভুট্টাক্ষেতের গর্তের ভেতরে লাশটি পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। বোয়ালখালীতে যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু সংবাদদাতা বোয়ালখালী, চট্টগ্রাম থেকে জানান, বোয়ালখালীতে সুব্রত দাস (২০) নামের এক যুবকের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পঠিয়েছে পুলিশ। সুব্রত উপজেলার শ্রীপুর-খরণদ্বীপ ইউনিয়নের দুই নম্বর ওয়ার্ড জেলেপাড়ার পরিমল দাসের ছেলে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সহকারী উপকমিউনিটি মেডিক্যাল অফিসার সঞ্চয় সেন বলেন, সুব্রত নামের এক যুবকের মরদেহ বৃহস্পতিবার রাত ৪টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার আত্মীয়-স্বজনরা। তারা জানায় বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে সুব্রত মারা গেছেন। তবে এ ধরনের কোন আলামত ছিল না সুব্রতের মরদেহে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল গফুর জানান, সুব্রত হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে বলে জানতে পেরেছি। থানার উপ-পরিদর্শক ফারুখ হোসেন জানান, সুব্রতের স্বজনরা বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়েছে জানালেও সে ধরনের কোন আলামত পাওয়া যায়নি। তাই মৃত্যুর কারণ জানতে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি সুব্রতের স্বজনদের বরাত দিয়ে বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে সুব্রত একটি বিয়ে অনুষ্ঠানে গিয়ে আনন্দে মেতেছিল। এরপর সে অসুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নিয়ে আসে স্বজনরা। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিমাংশু কুমার দাস রানা বলেন, এ ব্যাপারে অপমৃত্যু মামলা রুজু করা হয়েছে।
monarchmart
monarchmart

শীর্ষ সংবাদ:

রাশিয়ার যুদ্ধে ইউক্রেনের ১৩ হাজার সৈন্য নিহত
খালেদা জিয়া তো মুক্ত, তাকে আবার কীভাবে জামিন দিব?
নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হোটেলে কাভার্ডভ্যান, বাবা-ছেলেসহ নিহত ৫
বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হতে পারে লঘুচাপ, কমতে পারে তাপমাত্রা
শান্তি চুক্তির ২৫ বছর: সমস্যা ও উত্তরণের উপায়
তিন মাসের মধ্যে নভেম্বরে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স ১৫৯ কোটি ডলার
১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে বিশেষ অভিযান চালাবে পুলিশ
রংপুর সিটি নির্বাচন: ১০ প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ
যাচাই-বাছাই করে গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দামের বিষয়ে সিদ্ধান্ত
শিশু আয়াতের মাথা উদ্ধার করেছে পিবিআই
মহান বিজয়ের মাস শুরু
পাকিস্তানের কয়লাখনিতে বিস্ফোরণে নিহত ৯