ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

রূপসী-কাঞ্চন সড়ক বেহাল ॥ দুর্ভোগ

প্রকাশিত: ০৬:০৯, ২৫ এপ্রিল ২০১৮

রূপসী-কাঞ্চন সড়ক বেহাল ॥ দুর্ভোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, রূপগঞ্জ, ২৪ এপ্রিল ॥ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের অত্যন্ত ব্যস্ততম “রূপসী টু কাঞ্চন” সড়কটি এখন মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন এ সড়কে চলাচলরত মানুষের ভোগান্তি যেন শেষ নেই। এই রাস্তাটি স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়সহ অসংখ্য শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, হাট-বাজার, থানা, উপজেলা, ভূমি অফিস, প্রেসক্লাবসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে যাতায়াতের জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। এছাড়া প্রায় ১৪ কিলোমিটার এলাকা দৈর্ঘ্য এ রাস্তাটির আশপাশের মানুষে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। রাস্তাটিতে ছোট-বড় মিলে হাজার খানেক খানাখন্দ রয়েছে। সামান্য বৃষ্টিতেই রাস্তার বড় বড় খানাখন্দে হাঁটু পানি জমে থাকে। দূর থেকে দেখে মনে হয়, এ যেন বড় কোন জলাশয়! গাড়ি চলাচলের সময় রাস্তার বিভিন্ন স্থানের খানাখন্দে জমে থাকা পানি সম্পূর্ণ রাস্তাটিকেই কর্দমাক্ত করে তোলে। ফলে রাস্তাটি দেখে মনে হয় এ যেন ইরি বা বোরো ধানের ক্ষেত! এ কাঁদামাটি ছিঁটে প্রায়ই যাত্রী ও পথচারীদের কাপড়-চোপড় ও মূল্যবান কাগজপত্র নষ্ট করে দেয়। উপজেলা অফিস সূত্রে জানা গেছে, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক ও বাংলাদেশ সরকারের অর্থায়নে সিআরবিপি-২ প্রকল্পের আওতায় এ রাস্তাটি ৪ লেন করা হবে। এর নির্মাণের কাজ আগামী ১৮-১৯ অর্থবছরে শুরু হবে। ইতিমধ্যে রাস্তাটির সার্ভে সম্পন্ন হয়েছে এবং ডিজাইন ও প্রাক্কলন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এ রাস্তার পাশেই গড়ে উঠেছে ছোট-বড় দুই শতাধিক শিল্প-কারখানা। যার কাঁচামাল সংগ্রহ ও বাজারজাতের একমাত্র মাধ্যম এ রাস্তা। বাসাইল-কাউলজানী সড়ক নিজস্ব সংবাদদাতা টাঙ্গাইল থেকে জানান, বাসাইল-কাউলজানী সড়কের বিভিন্ন স্থানে কার্পেটিং, ইট, বালু ও খোয়া উঠে খানাখন্দের সৃষ্টি হওয়ায় লক্ষাধিক মানুষের যাতায়াতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। সড়কটির কোথাও কোথাও বড় বড় গর্ত হয়ে ছোট ছোট পুকুরে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন এ সড়ক দিয়ে অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে যানবাহনগুলো চলাচল করছে। দীর্ঘদিন ধরে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়ক সংস্কারে বাসাইল পৌরসভা ও উপজেলা প্রশাসনের কোন উদ্যোগ নেই। জানা যায়, বাসাইল-সখীপুর উপজেলা সড়কের বাসাইল কবরস্থান মোড় থেকে বাসাইল উত্তরপাড়া পর্যন্ত বাসাইল পৌরসভার আওতায় এবং বাসাইল উত্তরপাড়া থেকে কাউলজানী পর্যন্ত এলজিইডি’র আওতায় হওয়ায় রাস্তা মেরামত কাজে ব্যঘাত ঘটছে বলে জানা গেছে। ভূক্তভোগীরা জানান, বাসাইল-কাউলজানী সড়কের বাসাইল কবরস্থান মোড় থেকে কাউলজানী বোর্ড বাজার পর্যন্ত প্রায় ৭ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সড়কটি উত্তরাঞ্চলের তিনটি ইউনিয়নের সঙ্গে সংযুক্ত এবং উপজেলার উত্তরাঞ্চলের খাদ্যগুদামের সঙ্গে সংযুক্ত থাকায় সড়কটি উত্তরাঞ্চলে যাতায়াতের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একমাত্র সড়ক। বাসাইল উপজেলার উত্তরে কালিহাতী ও সখীপুর উপজেলা। উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এ সড়কটি। উপজেলার সদর, কাউলজানী ও ফুলকী ইউনিয়ন ছাড়াও বাসাইল উত্তরপাড়া, কলিয়া, কাউলজানী, সুন্যা, গিলাবাড়ী, ডুমলীবাড়ী, বার্থা, কল্যাণপুর, মলিয়ানপুর, বাদিয়াজানসহ প্রায় ২৫-৩০টি গ্রামের মানুষ এ সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছে। জরুরী ভিত্তিতে সড়কটির সংস্কার বা মেরামত করার ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া প্রয়োজন বলে ভুক্তভোগীরা জানান।
×