শনিবার ৪ আশ্বিন ১৪২৭, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

সুখ শান্তি স্বস্তি

  • পূজা রায়

কেউ দুই বেলা বিরিয়ানি খেয়েও সুখী না, আবার কেউ সামান্য পান্তা ভাতেও সুখী! ছোটবেলায় পাশের বাসার কাকুকে দেখতাম কাকিকে সপ্তাহে ৩ দিন গালিগালাজ আর মারধর করতেন। কারণ হিসেবে বেশি কিছু কখনই তেমন থাকত না। হয়ত রান্নাতে একটু ঝাল নুন বেশি হয়েছে। কিংবা সময়মতো রান্না হয়নি। অথবা কাকু বাইরে থেকে এলে কখনও কাকির দরজা খুলে দিতে একটু সময় লেগেছে। পান থেকে চুন খসলেই অমনি গালিগালাজ আর মারধর। তার কাছে জীবনের সংজ্ঞা আদৌ কি, আমি বুঝতে পারিনি কখনও! শুধু এই বিরক্তিকর ঝামেলা এড়াতে চাইতাম। কখনও কানে বালিশ চাপা দিয়ে কিংবা তুলো গুঁজে! কাকি বাবাকে বিচার দিতে আসতেন। আর বলতেন এই শেষ, এবার এর একটা বিহিত করতে চাই। এত যন্ত্রণা আর সইতে পারছি না। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো উনি রাতে বিচার দিয়ে সকালে এসে বাবাকে বলতেন, ভাই থাক, ওকে কিছু বলেন না। ও আমার কাছে মাফ চেয়েছে আর বলেছে আর কখনও এমন ভুল করবে না। অথচ আমি জানি, তিনিও জানেন, আমরা সবাই জানি এই ভুল বার বার হবে। অথচ কাকি শুধুমাত্র সংসার আর বাচ্চাদের কথা ভেবে এত অপমান, এত যন্ত্রণা সয়ে যাচ্ছেন। অথচ কাকু একজন ছোটখাটো ব্যবসায়ী। যে সংসারে অভাবের নিত্য বসবাস, সে সংসারে এত লাঞ্ছিত হয়েও কেউ পড়ে থাকে কেন, সেটা বোঝা সত্যিই দুরূহ!

এর উল্টো চিত্রও রয়েছে। এক ভাইয়া সরকারি দায়িত্বশীল পদে চাকরি করেন। কেউ কেউ হয়ত সাধনা করে এমন পাত্রকে স্বামী হিসাবে পাওয়ার জন্য। গালিগালাজ মারধর তো দূরে থাক সেই ভাইয়া জোরেও কথা বলতেন না। আর সরল সহজ ছিলেন! হয়ত তিনি ভাল ভাল খাবার আর যতœ ভালবাসা দিয়ে বউকে ভাল রাখার চেষ্টা করতেন। একটা মাত্র সন্তান নিয়ে ভবিষ্যত স্বপ্ন বুনতেন। অথচ ভাইয়ার কপালে ভাল মানুষ হওয়ার প্রাপ্য জুটল না। ভাবি একদিন তার ফুটফুটে বাচ্চা, সংসার, স্বামী, স্বামীর ভালবাসাকে দু’পায়ে মাড়িয়ে তার তথাকথিত প্রেমিকের হাত ধরে শুধুমাত্র নিজের সুখ আর স্বাচ্ছন্দ্যর কথা ভেবে অনিশ্চিত ভবিষ্যতের পথে পা বাড়ালেন! আচ্ছা এটা কেমন প্রেম! যেখানে সমস্ত পিছুটান অস্বীকার করতে হয়! যে প্রেম সন্তানের মায়াকে আটকাতে পারে না। সামাজিকতা কিংবা লোকলাজের কথা না হয় নাইবা বললাম!

আসলে সুখ উপলব্ধির ব্যাপার। এটাকে বুঝতে হয়। যে অবস্থানেই থাকুক মানুষ, যদি সে উপলব্ধি করতে পারে যে সুখী, তবেই সে সুখী। সুখী হতে হলে এত বেশি কিছু লাগে না। শুধু সেটা মন থেকে বুঝতে হয়! তাই স্বামী-স্ত্রী একে অপরকে বুঝুন। একে অপরকে গুরুত্ব দিন, তাতে মূল্যবোধ বাড়বে। একে অপরকে শ্রদ্ধা করুন, ভালবাসুন। দেখবেন আপনাদের সন্তানও আপনাদের সঙ্গে ঠিক একই আচরণ করবে, কারণ ও আপনাদের একে অপরের ভালবাসা আর শ্রদ্ধাবোধ দেখেই বড় হবে। ফলে পারিবারিক বন্ধন মজবুত হবে।

নরসিংদী, রায়পুরা থেকে

শীর্ষ সংবাদ:
বর্তমান সরকারের আমলে রেলপথে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে : রেলপথমন্ত্রী         ইউএনও ওয়াহিদা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে বদলী, স্বামী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে         সোহরাওয়ার্দী হাসপাতাল পরিচালকের রুম ঘেরাও         চিরনিদ্রায় শায়িত হেফাজত আমির আল্লামা আহমদ শফী         সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছি ॥ মির্জা ফখরুল         করোনা ভাইরাস ॥ ভারতে একদিনে ১২৪৭ জনের মৃত্যু         করোনা ভাইরাসে আরও ৩২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৬৭         হাওড় ভ্রমণে যাওয়ার পথে সড়ক দুর্ঘটনায় পিতা-পুত্র নিহত ॥ আহত ১২         করোনায় দেশের উন্নয়ন অব্যাহত রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী ॥ হুইপ ইকবালুর রহিম         মসজিদে বিস্ফোরণ ॥ মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৩ জন         হেফাজত আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর জানাজায় লাখো মানুষ         আওয়ামী লীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কমিটি এখনই ঘোষণা করা হবে না ॥ কাদের         মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় তিতাসের ৮ জন গ্রেফতার         সীমান্তে হত্যাকান্ড বন্ধে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেয়ার প্রতিশ্রুতি বিএসএফের         যুক্তরাষ্ট্রের চার অঙ্গরাজ্যে ভোটগ্রহণ শুরু, এগিয়ে জো বাইডেন         ভারতের মুর্শিদাবাদে ৬ আল কায়দা জঙ্গি গ্রেফতার         করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় ফের লকডাউনে যাচ্ছে ইউরোপ         পারস্য উপসাগরে বিমানবাহী যুদ্ধজাহাজ মোতায়েন যুক্তরাষ্ট্রের