ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৯ আগস্ট ২০২২, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

কারও মুখের গড়ন যদি ছোট ও গোল হয় তাহলে সেক্ষেত্রে বেশি বড় শেপের সানগ্লাস পছন্দ না করাই ভাল। তাহলে তাই মুখ আরও বেশি ছোট দেখাবে

ফ্যাশনে ও প্রয়োজনে সানগ্লাস

প্রকাশিত: ০৬:১৯, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ফ্যাশনে ও প্রয়োজনে সানগ্লাস

রিমন ইমরান ॥ অনেক দিনের সচল ট্রেন্ড সানগ্লাস। যে কোন যুগে যে কোন সময়ে সমান জনপ্রিয় এই ফ্যাশন অনুষঙ্গটি। তবে এটি ফ্যাশনের পাশাপাশি প্রয়োজনেরও। সানগ্লাস বা রোদ চশমার প্রথম কাজ হচ্ছে- চোখকে আরাম দেয়া ও সূর্যরশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে চোখ রক্ষা করা। পাশাপাশি সানগ্লাসের বৈচিত্র্যময় ডিজাইন সানগ্লাসকে ফ্যাশনের একটি প্রয়োজনীয় উপাদানে পরিণত করেছে। ফ্যাশন সচেতন তরুণ-তরুণীদের মাঝে সানগ্লাসের ব্যবহার বেড়েছে। ফলে অনেকেই সানগ্লাসকে শুধু ফ্যাশন বলে ভাবতে পারেন। প্রকৃতপক্ষে সানগ্লাসের সাহায্যে শতকরা প্রায় ৮৫ ভাগ দৃশ্যমান আলোকে ফিল্টার করা যায়। সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মির ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা পেতে চাই সানগ্লাস। বিশেষ করে দীর্ঘক্ষণ সৈকতে অবস্থান অথবা তুষার দর্শনে অবশ্যই চোখে সানগ্লাস থাকা উচিত। এছাড়া ঘরের বাইরে বেশিক্ষণ সূর্যালোকের নিচে কাজে নিয়োজিত অবস্থায়, মরুভূমিতে এবং চোখে ছানি অপারেশন ও ইন্ট্রা অকুলার লেন্স সংযোজনের পর, চোখ ওঠা ও প্রদাহের সময় চোখের আলো ভীতি কমানোর জন্য সানগ্লাস ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে। আজকাল প্রায় সব বয়সের মানুষই সানগ্লাস ব্যবহার করে থাকে। তবে এখন সানগ্লাস আর শুধু কালো বাদামি রঙেরই সীমাবদ্ধ নয়। এখন বাজারে বিভিন্ন রং ও শেপের সানগ্লাস পাওয়া যায়। বিশেষ করে পার্পেল, সাদা, ওয়াটার, কমলা এই রংগুলো প্রাধান্য পাচ্ছে। এছাড়াও সানগ্লাসের রঙের ভিন্নতার সঙ্গে সঙ্গে বিভিন্ন রঙের বর্ডার যুক্ত সানগ্লাসের চাহিদাও বাড়ছে। তবে এই বর্ডার যুক্ত সানগ্লাসগুলো পশিমা পোশাকের সঙ্গে বেশি ভাললাগে। এখন বাজারে বিভিন্ন প্রিন্টেড লেগিংস পাওয়া যাচ্ছে। এই ধরনের প্রিন্টের লেগিংস, টপস অথবা টি-শার্টের সঙ্গে এই প্রিন্টেড বর্ডার যুক্ত সানগ্লাসগুলো অনেক মানানসই হয়। এক্ষেত্রে চারকোনা শেপের সানগ্লাসগুলোর চাহিদা অনেক বেশি। আবার কারও মুখের গড়ন যদি ছোট ও গোল হয় তাহলে সেক্ষেত্রে বেশি বড় শেপের সানগ্লাস পছন্দ না করাই ভাল। তাহলে তাই মুখ আরও বেশি ছোট দেখাবে। আবার লম্বাটে গড়নের চেহারায় চারকোনা শেপ অনেক ভাল লাগবে। বিশেষ করে স্যালোয়ার কামিজের বা কুর্তার সঙ্গে ব্যবহারের সময় গোল এবং চ্যাপ্টা শেপ পছন্দ করা যেতে পারে। পোশাকের রঙের সঙ্গে মিলিয়ে সানগ্লাসেরও ভিন্ন ভিন্ন রং পছন্দ করা যেতে পারে। সাধারণত মধ্যবয়সী মহিলাদের ক্ষেত্রে বেশি রংচঙে সানগ্লাস ব্যবহার না করাই ভাল। তাদের জন্য স্বচ্ছ অথবা বাদামি রংগুলো বেশি ভাললাগবে। দামের ভিন্নতার উপর নির্ভর করে সানগ্লাসের ধরনও ভিন্ন হয়। সাধারণত ১৫০ টাকা থেকে শুরু“করে ৪ হাজার টাকা পর্যন্ত দামের সানগ্লাস পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে ডায়োর, রেবন ব্যান্ডগুলো অনেক ভাল হয়। তাই বাইরে যাওয়ার আগে আপনার প্রয়োজনীয় জিনিসের সঙ্গে মনে করে একটা সানগ্লাস নিয়ে বের হন। কারণ এটি শুধু আপনার সৌন্দর্যকে বাড়াবে না তার সঙ্গে সঙ্গে বাইরের ধুলাবালি ও রোদের অতি বেগুনি রশ্মি থেকে আপনার চোখকে রক্ষা করবে।
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২