ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৬ ডিসেম্বর ২০২৩, ২২ অগ্রাহায়ণ ১৪৩০

একটি ফ্লাইট না ধরতে পেরে জীবন বদলে যায় : অক্ষয়

প্রকাশিত: ১৯:০৮, ২৯ নভেম্বর ২০১৭

একটি ফ্লাইট না ধরতে পেরে জীবন বদলে যায় : অক্ষয়

অনলাইন ডেস্ক ॥ দুর্ঘটনা সবারই অনাকাঙ্ক্ষিত। কিন্তু যদি এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাই চোখের পলকে জীবনের সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছে দেয়, তাহলে নিশ্চয়ই অবাক হবেন। অবাক হওয়ারই কথা। তবে এমনটিই ঘটেছে বলিউড সুপারস্টার অক্ষয় কুমারের জীবনে। একটি দুর্ঘটনার হাত ধরেই তিনি হয়ে উঠেছেন আজকের ‘অক্ষয় কুমার’। অক্ষয় কুমারের সেদিন মডেলিংয়ের কাজে বেঙ্গালুরুতে যাওয়ার কথা। তাঁর ফ্লাইট ছিল সকাল ৬টায়। কিন্তু তিনি ভাবলেন তাঁর ফ্লাইট হয়তো সন্ধ্যায়। আর এই ভুলই ঘুরিয়ে দিল তাঁর জীবনের বাঁক। সকাল ৬টায় বিমানবন্দর থেকে ফোন এলে তিনি ভুল বুঝতে পারলেন। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে অনেক অনুরোধ করলেন কিন্তু কাজ হলো না। অক্ষয় কুমার বলেন, ‘আমি কাঁদছিলাম আর বলছিলাম, আমি আসছি। মোটরসাইকেলে করে আসছি। কিন্তু তাঁরা রাজি হলেন না।’ তবে হতাশ অক্ষয় থেমে থাকেননি। তারপর তিনি প্রমোদ চক্রবর্তীর স্টুডিওতে গেলেন। তিনি বলেন, “হঠাৎ আমার নটরাজ স্টুডিওতে যাওয়ার কথা মনে পড়ল। প্রয়াত প্রমোদ চক্রবর্তীর কোম্পানির মেকআপ ম্যান আমাকে বলেছিলেন, ‘নায়ক হতে চাও?’ আমি সেখানেই চলে গেলাম।” অক্ষয় বলেন, ‘আমাকে ভেতরে ডাকা হলো এবং অবাক করে দিয়ে তিনি আমাকে প্রথম চেকটি সই করতে দিলেন। পরপর তিনটি ছবির জন্য সই করলাম। প্রথমটি পাঁচ হাজার, দ্বিতীয়টি এক লাখ এবং তৃতীয়টি দেড় লাখ টাকার চেক।’ ১৯৯২ সালে বলিউডের এই সুপার হিরোর ‘দিদার’, ‘খিলাড়ি’ ও ‘মি. বন্ড’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে অভিষেক ঘটে। অক্ষর বলেন, ‘সত্যিকার অর্থে যা ঘটে ভালোর জন্যই ঘটে। আমি সব সময় ভাবি, সেদিন আমি যদি বেঙ্গালুরুতে চলে যেতাম, খুব ক্ষতি হয়ে যেত। হয়তো এখন কোথাও অবসরপ্রাপ্ত মডেল হয়েই থাকতাম।’