ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২, ১৮ আশ্বিন ১৪২৯

মেহেরপুরে ঠান্ডা জনিত রোগ বাড়ছে

প্রকাশিত: ০৫:৩১, ২২ নভেম্বর ২০১৭

মেহেরপুরে ঠান্ডা জনিত রোগ বাড়ছে

সংবাদদাতা, মেহেরপুর, ২১ নবেম্বর ॥ আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে মেহেরপুরে নিউমোনিয়া, ব্রঙ্কিওলাইটিসসহ ঠান্ডা জনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ জন শিশু নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হচ্ছে হাসপাতালে। বেডের অভাবে ওয়ার্ডের মেঝে ও বারান্দায় বিছানা পেতে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে এসব শিশুকে। ঋতু পরিবর্তনের ফলে শীতের আমেজ বিরাজ করছে মেহেরপুরে। আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে নিউমোনিয়া ও ব্রঙ্কিওলাইটিস রোগে আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা। ১শ’ বেডের হাসপাতালে আড়াই শ’ থেকে তিন শ’ রোগী ভর্তি থাকছে প্রায় দিনই। যার বেশিরভাগই নিউমোনিয়া ও ব্রঙ্কাওলাইটিস রোগে আক্রান্ত। প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ জন শিশু নতুন করে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে। ফলে বেডের অভাবে ওয়ার্ডের মেঝে ও বারান্দায় বিছানা পেতে চিকিৎসা নিতে হচ্ছে তাদের। নিউমোনিয়া আক্রান্ত শিশুদের ওষুধ সঙ্কট থাকায় হাসপাতালের বাইরে গিয়ে ওষুধ কিনতে হচ্ছে ভুক্তভোগীদের। এতে হয়রানি ও বাড়তি অর্থ গুনতে হচ্ছে। মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালকে আড়াই শ’ বেডে উন্নিত করা হলেও বাড়ানো হয়নি শয্যা সংখ্যা। গত এক সপ্তাহে ৫ শতাধিক রোগী চিকিৎসা নিয়েছে। মেহেরপুর সদর উপজেলার ঝাওবাড়িয়া থেকে আসা হাফেজা খাতুনের মতো অনেক রোগী জানান, হাসপাতালে বেডের অভাবে শিশুদের চিকিৎসা নিতে হচ্ছে মেঝে ও বারান্দায়। ফলে নোংরা পরিবেশে চিকিৎসা নেয়ায় শিশুদের পাশাপাশি অসুস্থ হয়ে পড়ছে মায়েরাও। মেহেরপুর শহরের ভুক্তভোগী এক রোগীর স্বজন আলিমা খাতুন জানান, হাসপাতাল থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণে ওষুধ সরবরাহ না থাকায় হাসপাতালের বাইরে থেকে ওষুধ কিনতে বাড়তি অর্থ গুনতে হচ্ছে ভুক্তভোগী রোগীদের। মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডাঃ মৃনাল কান্তি ম-ল জানান, হাসপাতালে যেসব রোগী ভর্তি হচ্ছে তার বেশিরভাগ নিউমোনিয়া ও ঠা-াজনিত রোগে আক্রান্ত।