রবিবার ২ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

চট্টগ্রামে টাইগারপাসে দুটি পাহাড় ধসে যেতে পারে

  • ঝুঁকিতে অবৈধ বস্তিবাসী

মাকসুদ আহমদ, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামে অতিবৃষ্টির কারণে আরও অনেক ছোট-বড় পাহাড়ের মাটি ধসে পড়তে শুরু করেছে। এ ধসে নগরীর টাইগারপাস মোড়সংলগ্ন রেলের পাহাড়ের মাটিসহ গাছ ধসে হতাহতের আশঙ্কা রয়েছে। টাইগারপাস থেকে লালখান বাজারমুখী রাস্তার ডানদিকে রয়েছে রেলের টাইগারপাস পাহাড় ও রাস্তার বাঁয়ে রয়েছে রেইনবো সিএনজি ফিলিং স্টেশনসংলগ্ন সিটি কর্পোরেশনের পাহাড়। ইতোমধ্যে সিটি কর্পোরেশনের পাহাড়টির কিছু অংশ ধসে পড়ে পথচারীদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। কারণ পাহাড়ের মাটি ধসে ফুটপাথে চলে এলেও ধস বন্ধে কোন ধরনের পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ রয়েছে, চট্টগ্রামে পাহাড়ের কোলঘেঁষে গড়ে ওঠা কাঁচা-পাকা ঘর না ছেড়ে যাওয়ার নেপথ্যে রয়েছে দখল বাণিজ্য। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ দখল বাণিজ্যের বিপরীতে প্রশাসন বিভিন্ন সময় সতর্কতা অবলম্বন করলেও নেপথ্যে থাকারা মানছে না। প্রশাসন ঝুঁকিপূর্ণ পরিবারগুলোকে সরাতে চাইলেও পারছে না অবৈধভাবে গেড়ে বসাদের হুমকির কারণে। প্রশাসন যখনই তাদের পুনর্বাসনের সিদ্ধান্ত নেয় তখনই চাপাচাপি শুরু করে অবৈধ ঘরের মালিক ও কেয়ারটেকাররা। হুমকির বাক্য একটাই- ‘যারা ঘর ছেড়ে যাবে তারা আর ফিরে আসতে পারবে না।’ এমন বাক্য শুনিয়েছে সোমবার নগরীর মতিঝর্ণা ও বাটালী হিল এলাকায় পাহাড়ের পাদদেশে বসবাস করা পরিবারগুলো।

এ বিষয়ে রেলের বিভাগীয় ভূ-সম্পত্তি কর্মকর্তা ও রেলওয়ে ম্যাজিস্ট্রেট ইশরাত রেজা জনকণ্ঠকে জানান, সোমবারও টাইগারপাস, মতিঝর্ণা, লালখান বাজার, আকবরশাহ, বেলতলীঘোনা ও বাটালী পাহাড় এলাকায় মাইকিং করা হয়েছে অবৈধ ও ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকাদের সরে যেতে। তাৎক্ষণিক কিছু পরিবার সরে গেলেও রাতের আঁধারে আবারও তারা ফিরে এসেছে। এদের সরাতে হলে অভিযানের কোন বিকল্প নেই। টাইগার পাস-লালখান বাজার সড়কের ওই পাহাড়ের পাদদেশে থাকাদের সরে যেতে বলা হলেও তারা সরে যাচ্ছে না।

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
২৪১২৫৩৭৪৬
আক্রান্ত
১৫৬৫১৭৪
সুস্থ
২১৮৪৮৭৭৮৯
সুস্থ
১৫২৭৩৩৩
শীর্ষ সংবাদ:
রোহিঙ্গা ও আটকেপড়া পাকিস্তানিরা দেশের বোঝা : প্রধানমন্ত্রী         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ১৬         পিপিপিতে হচ্ছে না ঢাকা-চট্টগ্রাম এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ         ৯০ হাজার টন সার কিনবে সরকার         আগামী ২০ অক্টোবর ঈদে মিলাদুন্নবীর ছুটি         টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: টস জিতে ফিল্ডিংয়ে স্বাগতিকরা         এবার হচ্ছে না লালন মেলা         দাঙ্গা বাঁধানোই ছিল কুমিল্লার ঘটনার উদ্দেশ্য ॥ স্থানীয় সরকারমন্ত্রী         ‘কুমিল্লার ঘটনায় জড়িতদের শিগগিরই গ্রেফতার করা হবে’         দেশের বাতাসে ষড়যন্ত্র, ছাত্রলীগকে সতর্ক থাকার আহ্বান         মধুর ক্যান্টিনে মুখোমুখি ছাত্রলীগ-ছাত্রদল, ক্যাম্পাসে উত্তেজনা         জি বাংলার পর সম্প্রচারে স্টার জলসা         রাশিয়ার ইয়েকাতেরিনবুর্গে ভেজাল মদের বিষক্রিয়ায় ১৮ জনের মৃত্যু         অতিবৃষ্টি ও বন্যায় কেরালায় নিহত ১৮         কাকরাইলে সংঘর্ষের ঘটনায় দুই মামলা ॥ আসামি ৪ হাজার         সোমবার রাজধানীর যেসব এলাকায় গ্যাস থাকবে না         খিলক্ষেতে আরেক চিকিৎসকের লাশ উদ্ধার         আইয়ুব বাচ্চু স্মরণে ‘আসা যাওয়া’ প্রকাশ পাচ্ছে আগামীকাল         প্রায় দুই বছর পর খুললো রাবির হল         বরিশালে তিনটি মন্দিরে ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা