বুধবার ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৮ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

পুঁজিবাজারে সূচকের রেকর্ড

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ও বিনিয়োগ অনুকূল পরিবেশে নতুন গতির সঞ্চার হয়েছে পুঁজিবাজারে। আসছেন নতুন নতুন বিনিয়োগকারী। আসছে নতুন তহবিল। এর প্রভাব পড়েছে শেয়ারের মূল্যসূচকে। বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান সূচক ডিএসইএক্স নতুন রেকর্ড গড়েছে। দিনশেষে সূচকের অবস্থান দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৭৮২ পয়েন্টে। এটি এই সূচকের সর্বোচ্চ অবস্থান।

বুধবার ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ২২ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৭৮২টি অবস্থান করছে। চলতি বছরের ৪ এপ্রিল সূচকটি সর্বোচ্চ ৫ হাজার ৭৭৭ পয়েন্টে উঠেছিল। ২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি এই সূচক চালু হওয়ার পর সেটিই ছিল সর্বোচ্চ অবস্থান। এদিকে ডিএসইএক্স বা প্রধান মূল্যসূচক ২২ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৭৮২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। ডিএসইএস বা শরিয়াহ সূচক ৩ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১ হাজার ৩১৭ পয়েন্টে। আর ডিএস৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ২ হাজার ১২০ পয়েন্টে।

বুধবার ডিএসইতে ১ হাজার ১৬৪ কোটি ৯২ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। আর গত মঙ্গলবার ডিএসইতে ১ হাজার ১২৩ কোটি ৭৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। ডিএসইতে মোট লেনদেনে অংশ নেয় ৩২৯টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ড। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৪৮টির, কমেছে ১৩৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির শেয়ার দর।

ডিএসইতে খাতভিত্তিক লেনদেনের শীর্ষে ছিল বস্ত্র খাতের কোম্পানিগুলো। খাতটির মোট লেনদেনের পরিমাণ ছিল ২৭৮ কোটি টাকা, যা মোট লেনদেনের ২২.৪০ ভাগ। এরপরে রয়েছে ব্যাংক খাতটি সারাদিনে খাতটির লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১৮৯ কোটি টাকা, যা মোট লেনদেনের ১৫.৬১ ভাগ। তৃতীয় অবস্থানে ছিল ১৩৮ কোটি টাকা, যা মোট লেনদেনের ১১.৪৪ ভাগ।

ডিএসইতে ওয়েবসাইটের তথ্যানুসারে দিনটিতে ব্লক মার্কেটে মোট ৯টি কোম্পানিটির ২৩২ কোটি ১৮ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে এ্যাপেক্স ফুটওয়ারের ১১ কোটি ও গ্রামীণফোনের ৮ কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে। এই দিনে এ ক্যাটাগরির মোট ২২৮টি কোম্পানির ১ হাজার কোটি টাকার লেনদেন হয়েছে।

ডিএসইতে লেনদেনের সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ বারাকা পাওয়ার, কেয়া কসমেটিক, লঙ্কাবাংলা ফিন্যান্স, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, রিজেন্ট টেক্সটাইল, ব্র্যাক ব্যাংক, ফু-ওয়াং ফুড, সাইফ পাওয়ারটেক, প্রাইম ব্যাংক ও মার্কেন্টাইল ব্যাংক।

দরবৃদ্ধির সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ ন্যাশনাল হাউজিং, ইন্টারন্যাশনাল লিজিং, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, কেয়া কসমেটিক, ইসলামিক ইন্স্যুরেন্স, রিলায়েন্স ইন্স্যুরেন্স, সায়হাম কটন, ফু-ওয়াং ফুড ও বারাকা পাওয়ার।

দর হারানোর সেরা কোম্পানিগুলো হলোÑ বিচ হ্যাচারি, বিডি ওয়েল্ডিং, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, বিডি অটোকার, রিপাবলিক, আইএসএন, মেঘনা কনডেন্স মিল্ক, এমারেল্ড ওয়েল, জেমিনি সী ফুড ও মেঘনা পেট।

শীর্ষ সংবাদ:
লুটপাটে নিঃস্ব গ্রাহক ॥ পি কে হালদারের থাবা         অর্থ ব্যয়ে সাশ্রয়ী হোন অপচয় করা যাবে না         তামিমের সেঞ্চুরি- বাংলাদেশের দাপট         প্রকল্প কমিয়ে অর্থায়ন বাড়িয়ে উন্নয়ন বাজেট অনুমোদন         জাতীয় সরকারের নামে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টি করতে দেয়া হবে না         চুরি, ছিনতাই করতে কক্সবাজার থেকে ঢাকা আসত ওরা         পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণের উপায় খুঁজছে সরকার         অর্থপাচারকারীরা কোন দেশে গিয়েই শান্তি পাবে না         সিলেটে কয়েক লাখ মানুষ পানিবন্দী         সড়ক যেন ধান শুকানোর চাতাল, প্রাণ গেল বাইক আরোহীর         অবশেষে তথ্য অধিকার আইনে তথ্য দিল পুলিশ         ভোলায় বেইলি ব্রিজ ভেঙ্গে ট্রাক অটোরিক্সা খালে         ১১ ডিজিটের নতুন নম্বরে বিপাকে গ্রাহক         কিউআর কোড দিয়ে ভুয়া নিয়োগপত্র দিত ওরা         জিআই সনদ পেলো বাগদা চিংড়ি         জনগণের অর্থ ব্যয়ে সাশ্রয়ী হতে হবে ॥ প্রধানমন্ত্রী         বাস্তব শিক্ষার সঙ্গে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ত করার আহ্বান শিক্ষা উপমন্ত্রীর         ডলারের দাম ১০২ টাকার বেশি         সিলেটে বন্যার আরও অবনতির আশঙ্কা         কানের ভেন্যুতে ‘মুজিব’-এর পোস্টার