ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১২ আগস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

নাচ দিয়ে মানুষের ভালবাসা পেয়েছি ॥ শামীম আরা নীপা

প্রকাশিত: ০৩:৪৯, ৪ এপ্রিল ২০১৭

নাচ দিয়ে মানুষের ভালবাসা পেয়েছি ॥ শামীম আরা নীপা

নৃত্যশিল্পী শামীম আরা নীপা। নৃত্য সাধনাই যার জীবনের ব্রত। নিরলস চেষ্টা ও অদম্য ইচ্ছাকে আঁকড়ে ধরে নৃত্য সাধনা করে চলেছেন। নৃত্যধারায় নিজেকে সিক্ত করার পাশাপাশি অনেক শিক্ষার্থীর মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছেন তার শিক্ষালব্ধ নৃত্যশৈলী। গুণী এ শিল্পীর রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি একুশে পদকপ্রাপ্তিতে নৃত্যাঞ্চল এক সংবর্ধনার আয়োজন করেছে ঢাকা ক্লাবের সিন্হা লাউঞ্জে আজ সন্ধ্যা ৭টায়। এ সম্পর্কে কথা হয় তার সঙ্গে। একুশে পদকপ্রাপ্তিতে আপনার অনুভূতি কী? শামীম আরা নীপা : কাজের স্বীকৃতি সব সময়ই আনন্দের। একুশে পদক আমার জীবনের এক বিশেষ প্রাপ্তি। আমি যে সৃজনশীল কাজের জন্য মানুষের কাছে পৌঁছতে পেরেছি, এটা তারই এক বিশেষ পরিচয়। শুধুমাত্র নাচ দিয়ে মানুষের ভালবাসা পেয়েছি, এরচেয়ে আনন্দের আর কী হতে পারে। কোন স্বীকৃতি পেলে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে সঙ্গে দায়বদ্ধতাও বেড়ে যায়। একুশে পদকপ্রাপ্তিতে আপনাকে সংবর্ধনা দেয়া হচ্ছে এ সম্পর্কে বলুন শামীম আরা নীপা : এ ধরনের অনুষ্ঠানে আমি তেমন বিশ্বাসী নই। যেহেতু নৃত্যাঞ্চল আমাদেরই একটি সংগঠন, তারা আমার সঙ্গে এ আনন্দটাকে শেয়ার করতে পছন্দ করে বলেই এ আয়োজন করেছে। আমাদের দেশে নৃত্যের বর্তমান অবস্থান কেমন? শামীম আরা নীপা : আমি মনে করি খুবই ভাল। অনেক ভাল নৃত্যশিল্পী তৈরি হচ্ছে। তবে নৃত্যের ক্ষেত্রে একটি জায়গায় কমতি আছে, সেটা হলো টিভি চ্যানেলগুলোতে। সেখানকার অনুষ্ঠানে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে নন-ড্যান্সারদের পারফর্ম করতে দেখা যায়। অন্য জায়গায় জনপ্রিয় বলে তাকে ড্যান্সার হতে হবে, এটা ভাল দেখায় না। টিভি চ্যানেলগুলো এসব ড্যান্সার নিয়ে বেশি পারফর্ম করায়। তবে মঞ্চে ভাল করছে এখনকার নৃত্যশিল্পীরা, যার ছাপ টিভিতে নেই। নতুনদের নাচের প্রতি ঝোঁক কেমন? শামীম আরা নীপা : অনেকেই ভাল। কেউ কেউ আছে যারা নাচ না শিখেই নাচতে চায়। তবে স্কুলগুলোতে নাচ শেখানো হচ্ছে, এটা একটি পজিটিভ দিক। এরা তো অনেক ভাগ্যবান। বিভিন্ন জায়গায় নাচ শেখার সুযোগ পাচ্ছে। আমি মনে করি নাচ অনেক সমৃদ্ধ হচ্ছে। আনুপাতিক হারে নৃত্যের অনুষ্ঠান আমাদের দেশে কম কেন? শামীম আরা নীপা : টিভিতে তাদের নিজস্ব একটা ভাবধারা থাকে, তারা এর বাইরে কিছু করে না। সেখানে নৃত্যের ক্ষেত্রে যারা নান্দনিক কিছু করে তাদের প্রাধান্য কম। নিজের উদ্যোগে সংগঠনের দ্বারা নৃত্যের অনুষ্ঠান করা কষ্টসাধ্য। স্পন্সরের অভাবে নৃত্যের অনুষ্ঠান কম হয়। সব জায়গায় নৃত্যের অনুষ্ঠান করা সম্ভব হয় না। প্রোপার মঞ্চ ছাড়া নাচ হয় না। আমাদের দেশে শিল্পকলা ছাড়া নাচের জন্য তেমন কোন মঞ্চ নেই। তার পরেও অনেক জায়গায় নাচের অনুষ্ঠান হচ্ছে। আপনি কি মনে করেন নৃত্যকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়া প্রয়োজন? শামীম আরা নীপা : যে কোন নান্দনিক শিক্ষাকেই প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়া উচিত। একান্তভাবে আমি মনে করি, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে নৃত্যকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়া প্রয়োজন। নৃত্যে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে লেখাপড়ার অন্যান্য বিষয়ের মতো এটার প্রতিও মনোযোগী হতে হবে। কিন্তু স্কুলপর্যায় থেকে এ বিষয়টি গড়ে না উঠলে সেটা সম্ভব নয়। গৌতম পাণ্ডে
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২
ডিজিটাল বাংলাদেশ পুরস্কার ২০২২

শীর্ষ সংবাদ: