পরিষ্কার, তাপমাত্রা ২২.৮ °C
 
১৮ জানুয়ারী ২০১৭, ৫ মাঘ ১৪২৩, বুধবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
শীর্ষ সংবাদ

উষ্ণতা বৃদ্ধি ॥ বদলে যাচ্ছে পরিযায়ী পাখির জীবনচক্র

প্রকাশিত : ৬ জানুয়ারী ২০১৭
  • আকিল জামান ইনু

বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি নিয়ে আজ উদ্বিগ্ন প্রতিটি সচেতন মানুষ। তাপমাত্রার এই বৃদ্ধি হুমকির মুখে ফেলবে মানব সভ্যতা এমন আশঙ্কাও করছেন বিশেষজ্ঞরা। এই উষ্ণতা বৃদ্ধি প্রভাব ফেলেছে অন্যান্য প্রাণী ও উদ্ভিজের জীবনচক্রেও। সম্প্রতি এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক তাদের গবেষণায় তুলে ধরেছেন এমনই এক উদ্বেগজনক চিত্র। তাদের গবেষণাপ্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায় বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে পরিযায়ী পাখিদের জীবনচক্রও বদলে যাচ্ছে। বিশেষত অল্প দূরত্বে পাড়ি দেয়া পরিযায়ী পাখিরা সময়ের আগেই পৌঁছে যাচ্ছে তাদের প্রজনন ক্ষেত্রে। পাঁচটি মহাদেশে শতাধিক প্রজাতির ওপর গবেষণা করে তারা এই চিত্র তুলে ধরেন। পরিবেশগত পরিবর্তনের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণী ও উদ্ভিদ কিভাবে সাড়া দেবে এ গবেষণা সে বিষয়ে পথ দেখাবে বলেই বিজ্ঞানীদের ধারণা।

পরিযায়ী পাখিদের সময়ের আগে প্রজনন ক্ষেত্রে পৌঁছে যাওয়া তাদের বঞ্চিত করবে খাদ্য ও বাসা বাঁধার সুবিধাজনক স্থান থেকে। আর দেরিতে পৌঁছানো পাখিদের বেলায় খাদ্য সঙ্কট তো আছেই। সেই সঙ্গে অসময়ে পৌঁছানোর কারণে জীবন সঙ্কটে পড়বে তাদের সদ্যজাত ছানারা।

দূরপাল্লার পাখিদের বেলায় তাপমাত্রা বৃদ্ধি তেমন প্রভাব না ফেললেও তাদেরও শিকার হতে হবে ভিন্নভাবে। সময়ের আগে পৌঁছে যাওয়া পাখিদের কারণে তারাও প্রয়োজনীয় সুবিধাগুলো থেকে বঞ্চিত হবে । এডিনবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের তাকুজি উশি জানান, এই উষ্ণতা বৃদ্ধি বিরূপ প্রভাব ফেলছে অনেক উদ্ভিদ ও প্রাণীর জীবনচক্রে। বিশেষ করে যাদের নিষেক ও প্রজনন কাল বসন্তের ওপর নির্ভরশীল। তিনি আরও বলেন, এই গবেষণা পরিযায়ী পাখিদের বেলায় পরিবর্তিত প্রজনন ক্ষেত্রে তাদের আচরণ কি হতে পারে তা জানার সুযোগ করে দিয়েছে। ঋতু পরিবর্তন, খাদ্য সহজলভ্যতা এবং পরিবেশবান্ধব প্রজনন ক্ষেত্রের সন্ধানে যেসব পাখি স্থান পরিবর্তন করে তাদের আচরণের পরিবর্তনের এক উদ্বেগজনক চিত্র পাওয়া গেছে এই গবেষণায়। এটি নিশ্চিত যে বৈশ্বিক উষ্ণায়ন তাদের জীবনচক্রে বিরূপ প্রভাব ফেলছে।

গবেষক দল গত ৩০০ বছর ধরে পরিযায়ী পাখির আচরণ বিশ্লেষণ করে এই সিদ্ধান্তে এসেছেন। শুধু তাই নয়, বিজ্ঞানীদের গবেষণালব্ধ তথ্যের পাশাপাশি তারা অপেশাদার পরিবেশবাদীদের পর্যবেক্ষণও বিবেচনায় নিয়েছেন। বিশেষ করে উনিশ শতকের মার্কিন পরিবেশবাদী ডেভিড থফের পর্যবেক্ষণও।

দূরপাল্লার পরিযায়ী পাখি যেমন সোয়ালো, পাইড ফ্লাইকেচার আর স্বপ্ন পাল্লার পরিযায়ী লাগউইং ও পাইড ওয়ানটেইলসহ শতাধিক প্রজাতির পাখির আচরণ তাদের গবেষণার আওতাভুক্ত ছিল। তাদের এই গবেষণাপত্র সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে জার্নাল অফ এনিমেল ইকোলজিতে।

এই গবেষণা বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির বিরুদ্ধে পরিবেশবাদীদের বক্তব্যকেই সমর্থন করছে, সেই সঙ্গে দিয়েছে নতুন মাত্রা। কেবল মানবসভ্যতা নয় উদ্ভিদ ও প্রাণী জাতের ওপর এই উষ্ণতা বৃদ্ধি যে বিরূপ প্রভাব ফেলছে সেই বার্তা অনুধাবনের এখনই সময়। প্রয়োজন যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ।

সূত্র : বিবিসি

প্রকাশিত : ৬ জানুয়ারী ২০১৭

০৬/০১/২০১৭ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


ব্রেকিং নিউজ: