ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২০ আগস্ট ২০২২, ৫ ভাদ্র ১৪২৯

পরীক্ষামূলক

উবার’র কার্যক্রম একটি সিস্টেমের মাধ্যমে আনা হবে ॥ কাদের

প্রকাশিত: ০৮:২৬, ২ ডিসেম্বর ২০১৬

উবার’র কার্যক্রম একটি সিস্টেমের মাধ্যমে আনা হবে ॥ কাদের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মোবাইল এ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সিসেবা নেটওয়ার্ক ‘উবার’র কার্যক্রম একটি প্রক্রিয়ায় আনার মাধ্যমে এর যৌক্তিক ও বাস্তবসম্মত সমাধান হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বৃহস্পতিবার নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের ২৪ বছরে পদার্পণ উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। উবার প্রসঙ্গে কাদের বলেন, এটা নতুন প্রযুক্তি, লেটেস্ট প্রযুক্তি। তবে একটা সিস্টেমের মধ্যে আনতে হবে। আমি বিআরটিএকে বলেছি এটাকে প্রত্যাখ্যান না করে কিভাবে একটা সিস্টেমের মধ্যে নিয়ে এসে গণপরিবহন সঙ্কট দূর করা যায় তা দেখতে। ইতোমধ্যে বিআরটিএ একদফা বৈঠক করেছে। এ ব্যাপারে যৌক্তিক ও বাস্তবসম্মত সমাধান হবে। আর আমি সেটাই চাই। স্মার্টফোন এ্যাপভিত্তিক ট্যাক্সি সেবার নেটওয়ার্ক উবার কর্তৃপক্ষ গত ২২ নবেম্বর বাংলাদেশে তাদের কার্যক্রম শুরুর ঘোষণা দেয়। তিনদিনের মাথায় গত শুক্রবার উবারের সেবাকে অবৈধ ঘোষণা করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেয় সড়ক পরিবহন নিয়ন্ত্রক সংস্থা- বিআরটিএ। এর প্রেক্ষিতে ২৯ নবেম্বর বিআরটিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে বৈঠকে বসেন উবারের তিন প্রতিনিধি। বৈঠকে নিয়ন্ত্রক সংস্থার চেয়ারম্যান উবারের সেবায় ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহারে আপত্তির কথা জানিয়ে দেন। পাশাপাশি উবার কার্যক্রম স্থগিত রাখার বিজ্ঞপ্তি বহাল থাকবে বলেও জানান তিনি। বিআরটিএ চেয়ারম্যান বলেন, অনুমোদন নেয়া হয়নি বলেই উবার সেবা কার্যক্রম নোটিস দিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। যদি তারা এই কার্যক্রম অব্যাহত রাখার চেষ্টা করে তাহলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। এজন্য আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে তাদের আনুষ্ঠানিক আবেদনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। ওবায়দুল কাদের বলেন আমরা বলছি ডিজিটাল বাংলাদেশ। ডিজিটাল বাংলাদেশে নতুন প্রযুক্তি এলে যদি নিরুৎসাহিত করি, তাহলে এটা দ্বিচারিতা, এটা স্ববিরোধী। সচেতনতার অভাবে বাংলাদেশে গাড়ি চালকদের মতো পথচারীরাও বেপরোয়া বলে মনে করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাদের। তিনি বলেন, দাবি করতে পারি আমরা দেশের অবকাঠামো উন্নয়ন করতে পেরেছি, কিন্তু সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করতে পেরেছি এটা দাবি করতে পারি না। সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করতে হলে ইলিয়াস কাঞ্চনের মতো নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। সভায় বক্তব্য দেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি শফিকুর রহমান, এ্যাক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন। সভাপতিত্ব করেন ‘নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের’ ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসানুল হক কামাল।