ঢাকা, বাংলাদেশ   সোমবার ৩০ জানুয়ারি ২০২৩, ১৭ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

প্লেসিসের অপরাজিত শতকে ৯ উইকেটে ২৫৯ রানে প্রোটিয়াদের ইনিংস ঘোষণা, দিনশেষে অস্ট্রেলিয়া ১৪/০

এ্যাডিলেড টেস্টে পেসারদের দাপট

প্রকাশিত: ০৫:০৪, ২৫ নভেম্বর ২০১৬

এ্যাডিলেড টেস্টে পেসারদের দাপট

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগের দুই টেস্ট জিতে ইতোমধ্যেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকা। এবার তৃতীয় ও শেষ টেস্টেও জয় তুলে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াকে হোয়াইটওয়াশ করার মোক্ষম সুযোগ প্রোটিয়াদের। তবে এ্যাডিলেডে বৃহস্পতিবার শুরু হওয়া সিরিজের শেষ টেস্টের প্রথম দিনটা তেমন ভাল যায়নি সফরকারীদের। এরপরও ৯ উইকেটে ২৫৯ রান তোলার পর প্রথম ইনিংস ঘোষণা করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। এর মাধ্যমে আগের দুই টেস্টের মতোই এ ম্যাচেও বোলাররাই পার্থক্য গড়ে দেবেন সেটা স্পষ্ট হয়েছে প্রথমদিনেই। অসি পেসাররা দাপট দেখিয়েছেন। অবশ্য দিনশেষে দারুণ সাবধানী অসিরা কোন উইকেট না খুইয়ে ১৪ রান তুলেছে। প্রোটিয়া পেসাররা সাফল্যের আশায় আগেভাগে ইনিংস ঘোষণার পর দিনের শেষ একঘণ্টা বোলিং করে কোন সাফল্য পায়নি। তবে এখনও স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়া পিছিয়ে ২৪৫ রানে। আগের দুই টেস্টে বিপর্যস্ত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। দেশের মাটিতে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো হোয়াইটওয়াশ হওয়ার শঙ্কায় দলটি। আর সে কারণেই ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ায় (সিএ) অনেক পরিবর্তনও এসেছে। এমনকি তৃতীয় টেস্টের দল থেকে বাদ দেয়া হয়েছে পুরনো ৫ জনকে, নেয়া হয়েছে নতুনদের। মূলত ব্যাটিং অর্ডারেই ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। এ্যাডিলেডে সম্মান বাঁচানোর টেস্টে ব্যাটসম্যান পিটার হ্যান্ডসকম্ব, মিডলঅর্ডার নিকোলাস ম্যাডিনসন ও ওপেনার ম্যাট রেনশ’ মর্যাদার ব্যাগি গ্রিন ক্যাপ পরেছেন প্রথমবারের মতো। প্রোটিয়ারাও বোলিংয়ে বৈচিত্র্য আনতে বাঁহাতি চায়নাম্যান তাবরেজ শামসির অভিষেক ঘটিয়েছে। এদের কাউকেই অভিষেক টেস্টের প্রথমদিনে পরীক্ষা দিতে হয়নি সেভাবে। কারণ দক্ষিণ আফ্রিকা টস জিতে আগে ব্যাটিংয়ে নামে। কিন্তু শুরুতেই অসিদের গতিধর পেসার মিচেল স্টার্ক ও আরেক পেসার জশ হ্যাজলউড ঝড় তুলেছেন। নিয়মিত বিরতিতেই উইকেট হারাতে থাকে প্রোটিয়ারা। এ্যাডিলেডেও বোলারদের বিরুদ্ধে ব্যাটসম্যানদের অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে এটাই প্রমাণ হয়েছে এর মাধ্যমে। ওপেনার স্টিফেন কুক ভালই খেলছিলেন। তিনিও ৯৯ বলে ৪ চারে ৪০ রান করে ফিরে যান। এরপর পুরো লড়াইটা একাই করে গেছেন অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। ক্যারিয়ারের ছয় নম্বর শতক হাঁকিয়েছেন তিনি। মাত্র ১৬১ রানে ৭ উইকেট হারালেও তার সাবলীল ব্যাটিংয়ে একটা সম্মানজনক অবস্থানে পৌঁছে দক্ষিণ আফ্রিকা। প্লেসিস ১৬৪ বলে ১৭ চারে ১১৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন। দশম উইকেটে তাবারেজের সঙ্গে ৩৯ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিটা বেশ জমে উঠেছিল। কিন্তু দিনের শেষ এক ঘণ্টায় নিজেদের বোলারদের নিয়ে ব্যতিক্রমী কিছু করার আশায় ইনিংস ঘোষণা করে দেন প্লেসিস। তিন পেসার হ্যাজলউড চারটি এবং জ্যাকসন বার্ড ও স্টার্ক দুটি করে উইকেট নেন। সফরকারীরা ৯ উইকেটে ২৫৯ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করার পর অসিরা দারুণ সতর্ক হয়ে ব্যাট চালিয়েছে। উসমান খাজার সঙ্গে রেনশ’ ভালভাবেই সামলেছেন শেষ সময় পর্যন্ত। ১২ ওভার ব্যাট করে মাত্র ১৪ রান তুললেও কোন উইকেট হারায়নি তারা প্রোটিয়া পেসারদের দাপুটে বোলিংয়ের সামনে। স্কোরকার্ড ॥ দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথম ইনিংস- ২৫৯/৯; ৭৬ ওভার (প্লেসিস ১১৮*, স্টিফেন কুক ৪০, কক ২৪, শামসি ১৮*, এ্যাবট ১৭; হ্যাজলউড ৪/৬৮, বার্ড ২/৫৭, স্টার্ক ২/৭৮, লেয়ন ১/৪৫)। অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংস- ১৪/০; ১২ ওভার (রেনশ’ ৮*, খাজা ৩*)। প্রথমদিন শেষে।
monarchmart
monarchmart