ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

যে কোন দুর্নীতির বিষয়ে জানতে হেল্পডেস্ক চালু করছে দুদক

প্রকাশিত: ০৫:০৮, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬

যে কোন দুর্নীতির বিষয়ে জানতে হেল্পডেস্ক চালু করছে দুদক

মশিউর রহমান খান ॥ দেশের যে কোন স্থানের যে কোন ধরনের দুর্নীতি সম্পর্কিত তথ্য প্রদানসহ অভিযোগকারীদের দুর্নীতি প্রতিরোধ সম্পর্কিত তথ্য দিয়ে সাহায্য করার জন্য হেল্পডেস্ক চালু করছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সমাজে প্রতিনিয়ত ঘটে যাওয়া সব ধরনের দুর্নীতি নাগরিকদের কাছ থেকে সঙ্গে সঙ্গে জানতে ও দুর্নীতি প্রতিরোধে সংস্থাটির পক্ষ থেকে নেয়া বিভিন্ন উদ্যোগ সম্পর্কে নাগরিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের বিস্তারিত উত্তর প্রদানের জন্য এ উদ্যোগ হাতে নিয়েছে দুর্নীতি বিরোধী দেশের একমাত্র রাষ্ট্রীয় এ প্রতিষ্ঠানটি। সংস্থাটির প্রধান কার্যালয় রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এ ডেস্ক কাজ করবে। দুদক সচিব আবু মোঃ মোস্তফা কামাল জনকণ্ঠকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জানা গেছে, এ হেল্পডেস্কের মাধ্যমে দিনরাত ২৪ ঘণ্টাই যে কোন নাগরিক দুর্নীতি সম্পর্কিত সেবা গ্রহণ করতে পারবেন। সেবা প্রদানের জন্য থাকবে শিফট ভিত্তিক প্রয়োজনীয় জনবল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ফোনে কথা বলে, ই-মেইল পাঠিয়ে বা মোবাইল ফোনের এসএমএসের মাধ্যমে এ ডেস্ক থেকে নাগরিকগণকে সেবা প্রদান করবেন। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এ হেল্পডেস্কে তিন ডিজিটের একটি হটলাইন নাম্বার থাকবে। ওই নাম্বারে নাগরিকগণ কোন ধরনের সার্ভিস চার্জ ছাড়াই দুদকের তফসিলভুক্ত যে কোন অপরাধের সরাসরি অভিযোগ ও পরামর্শ গ্রহণ করতে পারবেন। ই-মেইল সার্ভিস ও এসএমএসের মাধ্যমেও একই ধরনের সেবা পাওয়া যাবে। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারের মাধ্যমেও দুর্নীতি বিষয়ে যে কোন সেবা পাওয়া যাবে। হেল্পডেস্কে চাইলে যে কেউ অভিযোগের প্রক্রিয়া, আইনী সহায়তা ও পরামর্শ, আসামির অবস্থান এবং অভিযোগ করে প্রতিকার না পাওয়াসহ বিভিন্ন সেবা নিতে পারবেন। দুদক সূত্রে জানা গেছে, দুদকের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) কাছে তিন ডিজিটের নম্বর চাওয়া হয়েছে। আর এই নম্বরে দেশের যে কোন প্রান্ত থেকে টেলিফোন ও মোবাইলে কোন রকম সার্ভিস চার্জ ছাড়াই সেবা দেয়ার জন্য প্রস্তাব রাখা হয়েছে। সার্বক্ষণিক এই সেবা দিতে দিনের ২৪ ঘণ্টাকে ভাগ করে হেল্পডেস্কে তিন শিফটে প্রয়োজনীয় লোকবল নিয়োগ দেয়া হবে। যারা হটলাইনে সেবাগ্রহীতার ফোন, ই-মেইল ও এসএমএসের উত্তর দেয়ার জন্য সার্বক্ষণিক নিয়োজিত থাকবেন। এমনকি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমনÑ ফেসবুক, টুইটার ইত্যাদির মাধ্যমে সেবা পাওয়া যাবে। হেল্পডেস্ক কাঠামোর বিষয়ে দুদক সূত্রে জানা গেছে, দুদক সচিব কাঠামোর প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। যার অধীনে দুদকের একজন মহাপরিচালক, একজন সিস্টেম এনালিস্ট বা একজন পরিচালক ও ৩০ সদস্যবিশিষ্ট যোগাযোগ ইউনিট কাজ করবে। এই যোগাযোগ ইউনিটের প্রধান কাজ হবে অভিযোগকারী বা সেবা গ্রহীতার দুদকের তফসিলভুক্ত যে কোন সমস্যার সমাধান বা অভিযোগ গ্রহণ করা। এ যোগাযোগ ইউনিটে ফোন বা মোবাইল সার্ভিসের জন্য ১৫, ই-মেইল সার্ভিসের জন্য তিন, এসএমএস সার্ভিসের জন্য তিন, সামাজিক মাধ্যমে সেবা দেয়ার জন্য তিনজন কর্মী তিন শিফটে কাজ করবে। টোটাল সার্ভিস দেখভালের জন্য তিন সদস্যের একটি মেইনটেন্যান্স টিম কাজ করবে। তথ্য সংরক্ষণের কাজে সার্বক্ষণিকভাবে তিন সদস্যের একটি টিম তথ্য সেলের দায়িত্ব পালন করবেন। তবে কাঠামো এখনও চূড়ান্ত করা হয়নি। জানা গেছে, সম্প্রতি কমিশন থেকে হটলাইন বিষয়ে অনুমোদন পাওয়ার পর অবকাঠামোসহ অন্যান্য সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের কাজ চলছে। হটলাইন নম্বরটি হবে ৩ ডিজিটের। এটি চালু হলে সমাজ থেকে দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধ কাজকে আরও এগিয়ে নেয়া সম্ভব হবে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে দুদক সচিব আবু মোঃ মোস্তফা কামাল জনকণ্ঠকে বলেন, সমাজের সব স্তরের নাগরিকদের কাছ থেকে প্রতিদিনের ঘটে যাওয়া সব ধরনের দুর্নীতির খবর জানতে বা আমাদের কাছে দুর্নীতির অভিযোগ জানাতে কমিশন ইতোমধ্যে একটি হেল্পডেস্ক চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এর মাধ্যমে নাগরিকগণ মৌখিকভাবেও দুর্নীতির বিভিন্ন অভিযোগ করতে পারবেন। এই হেল্পডেস্কটির মাধ্যমে যে কোন নাগরিক দেশের যে কোন স্থান থেকে দুর্নীতির বিষয়ে সব ধরনের তথ্য আমাদের সঙ্গে আদান প্রদান করতে পারবেন। এছাড়া দুর্নীতি প্রতিরোধ সম্পর্কিত যে কোন ধরনের আইন সম্পর্কেও তারা আমাদের কাছ থেকে জানতে পারবেন। এজন্য একটি বিশেষ হটলাইন নাম্বার থাকবে। তবে নাম্বারটি কত তা এখনও চূড়ান্ত করা হয়নি। এই নাম্বারে ফোন করে যে কেউ এসব দুর্নীতির তথ্য বা অভিযোগ জানাতে পারবেন। হটলাইনের কাঠামো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, কাঠামো এখনও চূড়ান্ত হয়নি। আমরা সর্বোচ্চ সেবা দেয়ার চেষ্টা করব। তবে সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কাজ চলছে। উদ্যোগটির জন্য বাজেট, লোকবলসহ প্রযুক্তিগত অনেক বিষয় জড়িত থাকায় এর মাধ্যমে সেবা গ্রহণ ও প্রদান করতে কিছুটা সময় লাগবে। এ নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা চলছে। সেবাটি ২৪ ঘণ্টাই প্রদান করা হবে কিনা অফিস টাইম ৯টা থেকে ৫টা পর্যন্ত দেয়া হবে তা সহ সার্বিক বিষয়ে কার্যক্রম চলছে।
monarchmart
monarchmart