শুক্রবার ৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

দাফনের সময় কেঁদে ওঠা সেই নবজাতক চিকিৎসার জন্য ঢাকায়

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ২৪ সেপ্টেম্বর ॥ চিকিৎসকের মৃত ঘোষণার ছয় ঘণ্টা পর দাফন করতে গিয়ে কেঁদে ওঠা ফরিদপুরের ওই নবজাতক গালিবা হায়াতকে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ঢাকার বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের একটি এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে করে তাকে ডা. জাহেদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। জীবিত ঘোষণার পর থেকেই ডা. জাহেদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালের ইনকিউবেটরে রেখে শিশুটিকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। জনকণ্ঠসহ বিভিন্ন পত্রিকায় নবজাতকের এই শারীরিক অবস্থার খবর পেয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছিুক ঢাকার এক ব্যবসায়ীর খরচে তাকে ঢাকায় চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। শিশুটির সঙ্গে তার পিতা, দাদা ও একজন অভিজ্ঞ নার্স এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে সঙ্গে আছেন। নবজাতকের শারীরিক অবস্থা বর্তমানে অপরিবর্তিত। শনিবার বিকেলে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. খোন্দকার মোঃ আব্দুল্লাহ হিস সায়াদ এ কথা জানান। আব্দুল্লাহ হিস সায়াদ ওই নবজাতকের তদারকির জন্য সিভিল সার্জন কর্তৃক গঠিত তিন সদস্যের মেডিক্যাল দলের প্রধান। শনিবার সকাল থেকেই কাজ শুরু করেছে এই চিকিৎসক দল।

আব্দুল্লাহ হিস সায়াদ জানান, ‘শিশুটির নাড়ির গতি, শ্বাস-প্রশ্বাস এবং গায়ের রং ভাল আছে। যেহেতু দুদিন নবজাতক ভালভাবে আছে এখন তাকে ঢাকায় স্থনান্তর করা যেতে পারে।’ ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া শনিবার বেলা ১০টার দিকে ডা. জাহিদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালে এসে শিশুটিকে দেখেন এবং শিশু হাসপাতালের কর্মকর্তা ও হাসপাতাল কর্তৃক গঠিত তদন্ত কমিটির সদস্যদের সাথে কথা বলেন।

তিনি শিশু হাসপাতাল কর্তৃক গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটির সদস্যদের সংখ্যা বাড়িয়ে ছয় করা এবং অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কেএম কামরুজ্জামনকে ওই কমিটির প্রধান করে কমিটি পুনর্গঠনের নির্দেশ দেন।

জেলা প্রশাসক উম্মে সালমা তানজিয়া বলেন, ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালের ইনকিউবেটরে রেখে শিশুটিকে চিকিৎসা দেয়া সম্ভব। কিন্তু ওই নবজাতকের পরিবার শিশু হাসপাতালের চিকিৎসায় সন্তুষ্ট বিধায় শিশুটিকে ওই হাসপাতালে রেখেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, তাছাড়া সিভিল সার্জন কর্তৃক তিন সদস্যের চিকিৎসক দল বর্তমানে শিশুর চিকিৎসার দায়িত্বে রয়েছেন। প্রশাসনও সর্বক্ষণিক তদারকি করছে। তিনি বলেন, গালিবার জন্য সবকিছু করবে জেলা প্রশাসন।

শনিবার দুপুর ১২টায় গঠিত তদন্ত কমিটি হাসপাতালের সম্মেলন কক্ষে প্রথম সভায় মিলিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) কেএম কামরুজ্জামন।

এছাড়া সিভিল সার্জন জাহেদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালের কার্যক্রম পর্যালোচনা করার জন্য জেনারেল হাসপাতালের ইএনটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ কনসালটেন্ট ঊষা রঞ্জন চক্রবর্ত্তীকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যের যে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সেটিও শনিবার থেকে কাজ শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত গত বুধবার রাত ১২টার দিকে ফরিদপুর জাহেদ মেমোরিয়াল শিশু হাসপাতালে এই শিশুটির জন্ম হয়। শিশুটিকে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা দেন। ছয় ঘণ্টা পর বৃহস্পতিবার সকাল ৬টার দিকে শহরের আলীপুর গোরস্তানে দাফন করার সময় কেঁদে ওঠে শিশুটি ।

শীর্ষ সংবাদ:
আল্লামা আহমদ শফী আর নেই         পেঁয়াজ ভর্তি ট্রলার ভিড়েছে টেকনাফে         অর্থনৈতিক উন্নয়ন বেগবানে ৩৪ হাজার কোটি টাকার ফান্ড ঘোষণা এডিবির         করোনা ভাইরাসে আরও ২২ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৫৪১         করোনা ভাইরাস ॥ বিশ্বব্যাপী মৃত্যু ছাড়াল সাড়ে ৯ লাখ, আক্রান্ত ৩ কোটির বেশি         অ্যাটর্নি জেনারেলের অবস্থার অবনতি, আইসিউতে স্থানান্তর         করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় কারিগরি কমিটির ৭ পরামর্শ         বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশের নয় তিনি সারা বিশ্বের সম্পদ ॥ খাদ্যমন্ত্রী         ভিডিও কলে কথা বলে কিশোরীর ইচ্ছা পূরণ করলেন প্রধানমন্ত্রী         ২০২১ হবে আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হবে ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী         আইনের বাইরে এ শহরে কিছু করতে পারবেন না ॥ মেয়র আতিক         এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে ২৪ সেপ্টেম্বর         ফিফা র্যাংকিংয়ে আগের অবস্থানেই আছে বাংলাদেশ, একধাপ পেছালো ভারত         মোদীর মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিলেন অকালি দলের নেত্রী হরসিমরত কউর         ভারতের এক শতাব্দী পুরনো সংসদ ভবন ভেঙ্গে নির্মাণ হবে নতুন ভবন         বাজারে করোনার ভ্যাকসিন আসার আগে অর্ধেক ‘বুকিং’ শেষ         গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য দুর্নীতি আড়ালের ব্যর্থ চেষ্টা ॥ ন্যাপ         স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ালেন আল্লামা শাহ আহমদ শফী         এবার নোবেল পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন নেতানিয়াহু         শিক্ষায় বিভক্তির ফল সামাজিক বিভক্তি ॥ রাশেদ খান মেনন