সোমবার ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৫ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা কমেছে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বাংলাদেশ ব্যাংক ৭৭২ কোটি ৫১ লাখ টাকা পরিচালন মুনাফা করেছে, যা আগের অর্থবছরে হয়েছিল ১ হাজার ৩৮ কোটি ৮০ লাখ টাকা। সে হিসেবে গত অর্থবছরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা কমেছে ২৬৬ কোটি ২৯ লাখ টাকা। আর ২০১৩-১৪ অর্থবছরে পরিচালন মুনাফা হয়েছিল ২ হাজার ৩৮ কোটি টাকা। এতে করে প্রতিবছরই কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা অব্যাহতভাবে কমেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদনে এ চিত্র উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত অর্থবছরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ক্ষতি দাঁড়িয়েছে ৬১৯ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। এই ক্ষতি ২০১৪-১৫ অর্থবছরে অনেক বেশি ছিল। সে সময় ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছিল ৩ হাজার ৬৬১ কোটি ৭৬ লাখ টাকা। সে হিসাবে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে মুদ্রা বিনিময় হারের ক্ষতি কমেছে ৩ হাজার ৪২ কোটি ২৭ লাখ টাকা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা জনকণ্ঠকে বলেন, গত অর্থবছরে সরকার কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ঋণ অনেক কম নিয়েছে। এতে ঋণ দিয়ে যে পরিমাণের মুনাফা করার কথা ছিল তা হয়নি। তাছাড়া ব্যাংকগুলোর কাছে বিনিয়োগযোগ্য তহবিল উদ্বৃত্ত ছিল, সে কারণে তারা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিশেষ তহবিল সহায়তা বা রেপো সহায়তা গ্রহণ করেনি। সুতরাং এ খাত থেকেও সুদ আয় অনেক কমেছে। এতে এবার বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালন মুনাফা কিছুটা কম হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তাদের মতে, বাংলাদেশ ব্যাংক অন্যান্য বাণিজ্যিক ব্যাংকের মতো কোন প্রতিষ্ঠান নয়। তারপরও সরকারের ব্যাংক হিসেবে কিছু আয়-ব্যয় হয়ে থাকে। এতে করে পরিচালন মুনাফা কখনও বাড়ে আবার কখনও কমে। আর নিট মুনাফা হিসাব করা হয় রিজার্ভের মুনাফা বা লোকসান ধরে। তবে চূড়ান্ত হিসাবে রিজার্ভের হিসাব থাকে না। ফলে সরকারকে মুনাফা ও কর্মকর্তাদের বোনাস দেয়া সম্ভব হয়। চূড়ান্ত হিসাবে রিজার্ভের হিসাব থাকলে মুনাফা বা বোনাস দেয়া সম্ভব হতো না।

বৈদেশিক মুদ্রায় সংরক্ষণে ক্ষতি কমে আসায় এক বছরের ব্যবধানে কেন্দ্রীয় ব্যাংক নিট মুনাফা করতে পেরেছে। আর্থিক প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিট মুনাফা হয়েছে ১৫৩ কোটি টাকা, যা এর আগের অর্থবছরে নিট লোকসান হয়েছিল ২ হাজার ৬২২ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। যদিও এর আগে অধিকাংশ সময়েই কেন্দ্রীয় ব্যাংক বড় অঙ্কের নিট মুনাফা করেছে।

গত সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ২০১৫-১৬ অর্থবছরের ব্যালান্স শিট (বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন) চূড়ান্ত অনুমোদন করে। এতে গত ফেব্রুয়ারিতে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ থেকে চুরি হওয়া ৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পৃথক সম্পদ হিসেবে ‘প্রটেস্টেড বিল’ হিসেবে দেখানো হয়েছে। যে হারানো অর্থ ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা বেশি, তা আন্তর্জাতিক প্রচলন অনুসারে এ খাতে দেখানো হয়ে থাকে। এ খাতে রাখার সুবিধা হলো- কেন্দ্রীয় ব্যাংককে এই অর্থের বিপরীতে কোন নিরাপত্তা সঞ্চিতি তথা প্রভিশন সংরক্ষণ করতে হচ্ছে না।

শীর্ষ সংবাদ:
বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নে আগ্রহী পাকিস্তান         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৮৯         আবাসিক এলাকায় নতুন গ্যাস সংযোগ কেন নয়, হাইকোর্টের রুল         বিতর্কিতদের নয়, ত্যাগীদের নাম কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশনা         তদন্তের সময় অনৈতিক সুবিধা দাবি ॥ দুদকের কর্মকর্তাকে হাইকোর্টে তলব         বাংলাদেশকে স্বর্ণ চোরাচালানের রুট বানিয়েছে পার্শ্ববর্তী দেশ         পূজামণ্ডপে হামলা: যুবদল-জামায়াতের গ্রেফতার ১১         কুমিল্লায় মণ্ডপে কোরআন ॥ মামলা তদন্ত করবে সিআইডি         শাহজালালে সাড়ে ৮ কোটি টাকা মূল্যের স্বর্ণ বার জব্দ         সাম্প্রদায়িক হামলা ও নারীর প্রতি সহিংসতাকারীদের শাস্তি দাবি         পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ডিও লেটারের সঠিকতা যাচাইয়ের অনুরোধ         নাইজেরিয়ায় অবৈধ তেল শোধনাগারে বিস্ফোরণ ॥ শিশুসহ নিহত ২৫         রাজধানীর বংশালে নারীর রহস্যজনক মৃত্যু         ৮২ বার পেছাল সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন         মেজর সিনহা হত্যা ঘটনায় সাক্ষী গ্রহণ শুরু         রিজভী-দুলুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি         ২২ দিন পর আবারও শুরু হচ্ছে ইলিশ ধরা         তিনদিনের মধ্যে দক্ষিণাঞ্চলে বৃষ্টিপাত বাড়তে পারে         প্রথম ঘণ্টার পতনে ডিএসই সূচক ৭ হাজারের নিচে         মিরপুরে ভবন থেকে পড়ে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু