শুক্রবার ৪ আষাঢ় ১৪২৮, ১৮ জুন ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মাত্র চার কিমি রাস্তার জন্য দুর্ভোগ

  • যশোরের ঝিকরগাছা

স্টাফ রিপোর্টার, যশোর অফিস ॥ ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপাশা ও পানিসারা ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের মানুষের চলাচলের রাস্তাটি কয়েক যুগেও পাকা হয়নি। ফলে গ্রামের মানুষকে বর্ষা মৌসুমে কাদা পানি মাড়িয়ে উপজেলা সদরসহ বিভিন্ন এলাকায় যেতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

ঝিকরগাছা উপজেলার শংকরপাশা এবং পানিসারা ইউনিয়নের গ্রামের হাজার হাজার মানুষকে চলাচল করতে হয় কাঁচারাস্তা দিয়ে। শুষ্ক মৌসুমে ধুলা-বালির মধ্যে দিয়ে চলাচল করা গেলেও বর্ষা মৌসুমে মানুষকে কষ্ট ভোগ করতে হয়। উপজেলার শংকরপাশা এবং পানিসারা ইউনিয়নের বড় পোদালিয়া, ছোট পোদালিয়া, পানিসারা ইউনিয়নের চাপাতলা গ্রামের মানুষ যেন আলোর নিচে অন্ধকারের মতো বসবাস করে। গ্রামের আশপাশের সড়ক পাকা হলেও ওই সব গ্রামের মানুষকে যশোর বেনাপোল সড়কে কিংবা ঝিকরগাছার বাকড়া বা শার্শার বাগআচড়া বাজারে উঠতে হয় সাড়ে চার কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা মাড়িয়ে। চাপাতলা গ্রামের মাহাবুবুর রহমান অনিক জানান, উপজেলার কাউরিয়া পাকা রাস্তা হতে টাওরা পাকা পর্যন্ত সাড়ে ৪ কিলোমিটার রাস্তাটি এলাকার যোগাযোগের প্রধান সড়ক। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে সড়কটি উন্নয়নের ছোঁয়া থেকে বঞ্চিত। এই সড়কটি এলাকার মানুষের যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম।

শুধু চাপাতলা নয়, আশপাশের গ্রামের মানুষও কাঁচারাস্তার জন্য দুর্ভোগ পোহায়। শংকরপাশা ইউনিয়নের বড় পোদালিয়া গ্রামের বাসিন্দা ড. একেএম আখতারুল কবীর বলেন, ছোট পোদালিয়া এবং বড় পোদালিয়া মানুষকে ঝিকরগাছার বাকড়া এবং শার্শার বাগ আচড়া বাজারে উঠতে হয় কাঁচা রাস্তা মাড়িয়ে। বর্ষা মৌসুমে এই গ্রামের মানুষের দারুণ দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তবে বড় পোদালিয়া গ্রামবাসী স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে এবং গ্রামবাসীর আর্থিক সহযোগিতায় ইট দিয়ে কয়েক শ’ ফুট রাস্তা তৈরি করেছে। এখনও তিন হাজার ফুট কাঁচা রয়েছে। এই রাস্তাটি পাকা করা হলে এলাকার মানুষ উপকার পাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। গ্রামবাসী আরও জানায়, শুধু এ রাস্তাটির জন্য প্রতি বছর অনেক ছাত্রছাত্রী বিদ্যালয় থেকে ঝরে পড়ছে।

বর্ষা মৌসুমে তারা স্কুলে আসতে পারে না। একবার বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ হলে পরবর্তীতে দেখা যাচ্ছে, অনেক শিক্ষার্থী আর স্কুলে ফিরছে না। তারা ঝরে পড়ছে। পাশাপাশি শুধু এই সড়কের কারণে কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ফসলের নায্যমূল্য পাচ্ছে না। কোন মানুষ অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে নিতেও কষ্ট করতে হয়।

শীর্ষ সংবাদ:
চার স্বপ্ন বাস্তবায়ন ॥ মহাপরিকল্পনা উন্নত জীবনের         বিনামূল্যে জমি ও ঘর দেয়ার ঘটনা বিশ্বে এই প্রথম         ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা ভোটার তোলপাড়         ’২৬ সালে ঢাকায় চলবে পাতাল রেল         মদ-জুয়া-বার ইস্যুতে সংসদ উত্তপ্ত, পাল্টাপাল্টি বক্তব্য         ড্যান্স বারের আড়ালে নারী পাচারের ফাঁদ         পেঁয়াজের আমদানি মজুদ ও সরবরাহ বাড়ানোর উদ্যোগ         পরীমনির অভিযোগকে প্রাধান্য দেয়ার আর সুযোগ নেই         করোনায় আরও ৬৩ জনের মৃত্যু         করোনা মোকাবেলায় আশার আলো- বিজ্ঞানীদের নিরন্তর চেষ্টা         প্রহসনের নির্বাচনের সংস্কৃতি চালু করেছিলেন জিয়া         রাজশাহী ও সাতক্ষীরায় ফের এক সপ্তাহ লকডাউন         পশুরহাটে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে উদ্যোগ নেয়া হবে ॥ তাপস         প্রাইভেটকারে তুলে হাত-পা বেঁধে সর্বস্ব ছিনতাই         অপরিকল্পিত অবকাঠামো নির্মাণ করতে দেয়া হবে না ॥ তাজুল         বিদেশে কর্মসংস্থান প্রত্যাশীদের সতর্ক করলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী         আন্তর্জাতিক বাজারে ভোজ্যতেলের দাম বাড়ায় কমার সুযোগ নেই : বাণিজ্যমন্ত্রী         করোনা : গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৬৩, নতুন শনাক্ত ৩৮৪০         বিশ্ব শান্তি সূচকে বাংলাদেশের সাত ধাপ উন্নতি         শিক্ষা চ্যানেল করার চিন্তা সরকারের: সংসদে শিক্ষামন্ত্রী