ঢাকা, বাংলাদেশ   শুক্রবার ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ৬ বৈশাখ ১৪৩১

গফরগাঁওয়ে অশ্লীল কর্মকাণ্ডের ভিডিও ভাইরাল, শিক্ষক বরখাস্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা, গফরগাঁও, ২৯ ফেব্রুয়ারী

প্রকাশিত: ১২:৪১, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪; আপডেট: ১২:৫২, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

গফরগাঁওয়ে অশ্লীল কর্মকাণ্ডের ভিডিও ভাইরাল, শিক্ষক বরখাস্ত

শিক্ষক মোঃ আল আবেদীন

ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার বড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আল আবেদীন ওরফে (আকরাম মাষ্টার) সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ম্যানেজিং কমিটি মিটিং করে সাময়িক বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয়। ওই শিক্ষকের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের ভিডিও ভাইরালের ঘটনায় এ পদক্ষেপ নেওয়া হয় বলে জানান বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনা সাময়িক বরখাস্তকৃত একটি চিঠি জনকণ্ঠের প্রতিনিধির হাতে এসেছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম তোতা বলেন, সভায় অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষককে তার অনৈতিক ও সমাজ বিরোধী কর্মকাণ্ডে একটি ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঘটনায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সহকারী শিক্ষক নির্দোষ প্রমাণে ব্যর্থ হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে তার বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন : হিজাব না পরায় ৯ ছাত্রীর চুল কেটে দিলেন শিক্ষিকা

সাময়িক বরখাস্তের চিঠি সূত্রে জানা যায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশ হওয়া 
বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রী, অভিভাবক, শিক্ষক, কর্মচারী ও এলাকাবাসীর মধ্যে বিদ্যালয় সম্বন্ধে বিরূপ আলোচনা ও সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। যা বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুন্য হচ্ছে। বিদ্যালয়ের মঙ্গল ও শৃঙ্খলা রক্ষার্থে ওই শিক্ষককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 

বিদ্যালয়ের অভিভাবক সদস্য ও উস্থি ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক উজ্জল মিয়া বলেন, যেহেতু শিক্ষকের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি অশ্লীল ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। তাই বিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা ও ছাত্র/ছাত্রীদের দাবীর প্রেক্ষিতে মোঃ আল আবেদীন ওরফে (আকরাম মাষ্টার)কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 
তিনি আরও বলেন, বিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি রক্ষার্থে আমরা বদ্ধ পরিকর। শুধু শিক্ষক আকরাম মাষ্টার নয় কমিটির যদি কেউ এরকম ঘটনা ঘটায় তার বিরুদ্ধেও আমরা ব্যবস্থা নিব। 

ঘটনার বিষয়ে সহকারী শিক্ষক মোঃ আল আবেদীন ওরফে আকরাম মাষ্টারের সাথে তার এই মোবাইল নাম্বারে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে এটি একটি ষড়যন্ত্র। একটি মহল আমার বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তবে ভিডিও ভাইলার এর ব্যাপারে তিনি কোনো সঠিক উত্তর দিতে পারেনি।

বড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মমতাজ আক্তার জনকণ্ঠকে বলেন, স্কুলের সুনার ও ছাত্র/ছাত্রীদের প্রতিবাদের কারণেই এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ঘটনা সত্য কি মিথ্যা সেটি তদন্তের মাধ্যমে প্রমাণ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

বৃহস্পতিবার সকালে এ ঘটনা বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মোঃ রফিকুল ইসলাম ভূইয়া জনকণ্ঠকে বলেন, সাময়িক বরখাস্তের চিঠি পেয়েছি। ঘটনাটি খুবই দুঃখ জনক। প্রাতিষ্ঠানিক দায়িত্বে থেকে কেউ এরকম কর্মকাণ্ড করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, এ ঘটনা অধিকতর তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তদন্ত চলমান। 

প্রসঙ্গত, গত দশ, বারদিন ধরে একটি ভিডিও ফুটেজ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওটি বড়বাড়ী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আল আবেদীন ওরফে আকরাম মাষ্টারের বলে অভিযোগ উঠেছে।

তাসমিম

সম্পর্কিত বিষয়:

×