ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১

নির্বাচনী অঙ্গীকার পূরণ 

হার্ট ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু, সর্বস্তরের মানুষের সন্তোষ প্রকাশ

বাবুল সরদার, বাগেরহাট

প্রকাশিত: ২১:৩১, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

হার্ট ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু, সর্বস্তরের মানুষের সন্তোষ প্রকাশ

হার্ট ফাউন্ডেশনের উদ্বোধন

উপকূলীয় জেলা বাগেরহাটে তীব্র লবনাক্তার কারণে উচ্চরক্তচাপ, ডায়াবেটিস, কিডনি ও লিভারের পাশাপশি হার্টের রোগীর সংখ্যা অপেক্ষাকৃত বেশী। লবণপানি ব্যবহার ও পান করার কারণে এসব রোগে হামেশাই এ অঞ্চলে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। তাই বাগেরহাটবাসীর দীর্ঘদির দাবী এ জেলায় একটি স্পেলাইজড হাসপাতাল ও হার্ট ফাউন্ডেশন স্থাপনের। 

গত সংসদ নির্বাচনে জনদাবীর প্রেক্ষিতে বঙ্গবন্ধুর ভ্রাতুষ্পুত্র শেখ হেলাল উদ্দিন এমপি ও বঙ্গবন্ধুর দৌহীদ্র শেখ তন্ময় এমপির নির্বাচনী ওয়াদা ছিল এ দাবী দ্রুত পূরণের। সে অনুয়ায়ী বাগেরহাটে হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা ও সহযোগিতার জন্য হার্ট ফাউন্ডেশন নামের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার যাত্রা শুরু হয়েছে। বিএমএ ভবনে মোড়ক উন্মোচনের মাধ্যমে ফাউন্ডেশনের উদ্বোধন করেন বিশ্ব হার্ট ফাউন্ডেশনের সভাপতি প্রফেসর ডা. জগৎ নারুলা ও ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের সভাপতি প্রফেসর ডা. খন্দকার আব্দুল আউয়াল রিজভী। নির্বাচনের মাত্র দেড় মাসের মধ্যে বাগেরহাটে হার্ট ফাউন্ডেশনের উদ্বোধন হওয়ায় বাগেরহাটবাসী সর্বস্তরের মানুষ সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশনের আহবায়ক প্রতিথযশা চিকিৎসক আমেরিকা প্রবাসী প্রফেসর ডা: চৌধুরী হাফিজুল আহসান এর সভাপতিত্বে  উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন, বাংলাদেশ এনজিওপ্লাস্ট ইন্টারভেনশনের সভাপতি প্রফেসর ডা. এ কে এম ফজলুর রহমান, জাতীয় হৃদ রোগ ইনস্টিটিউটের পরিচালক প্রফেসর ডা. মীর জামাল উদ্দীন, যুগ্ন আহবায়ক ডা. মোঃ মোশাররফ হোসেন, সদস্য সচিব এ্যাড. মোঃ শাহ আলম টুকু।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন, বাগেরহাট মেডিকেল এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. অরুণ চন্দ্র মন্ডল, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মোজাফফর হোসেন, ডা. সালেহীন বাচ্চু, প্রফেসর ডা. শওকত আলী খান, ডা. মাহবুবুর রহমান, বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মীর জায়েসী আশরাফি জেমস, সনাকের সভাপতি রামকৃষ্ণ বসু, খানজাহান আলী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ খন্দকার আসিফ উদ্দিন রাখি প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বাগেরহাটে প্রথমবারের মত চালু হওয়া এই ফাউন্ডেশনের হৃদরোগে আক্রান্ত রোগীদের উন্নয়নে কাজ করবে। এটা একটা জনগুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান হবে। বাগেরহাটের সকল গুরুত্বপূর্ণ মানুষকে বাগেরহাট ফাউন্ডেশনের সাথে থাকার পরামর্শ দেন অতিথিগণ।

আয়োজকরা জানান, ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ সম্প্রতি “বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশন”কে তালিকাভুক্ত করেছে। বাগেরহাটে হার্টের আধুনিক ও সুলভ চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল তৈরী প্রাথমিক কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে। আশাকরি বাগেরহাটবাসী এই সুবিধা ভোগ করতে পারবেন।

বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশনের আহবায়ক এ জেলার কৃতি সন্তান, প্রফেসর ডা: চৌধুরী হাফিজুল আহসান ‘বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশনের’ উদ্বোধনী পর্বে সভাপতির বক্তব্যে বলেন, উপকূলীয় বাগেরহাটে হার্ট ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরু আমাদের এ অঞ্চলের সকল মানুষে জন্য আনন্দের খবর। আমি যতদিন বেঁচে থাকব এ ফাউন্ডেশনের সাথে যুক্ত থেকে মানুষের সেবা করে যাব। এটি আমাদের সবার জন্য গর্বের অর্জন।” 

বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশনের যুগ্ন আহবায়ক ও জেলা স্বাচীপের সভাপতি ডা. মোঃ মোশাররফ হোসেন এবং সদস্য সচিব এ্যাড. মোঃ শাহ আলম টুকু বলেন, ‘বাগেরহাটে হার্ট ফাউন্ডেশনের যাত্রা শুরুর মধ্যে দিয়ে এ অঞ্চলের মানুষের স্বাস্থ্য সেবা সুরক্ষা শক্তিশালী হবে। সাধারণ মানুষের অনাকাঙ্খিত মৃত্যু ও ভোগান্তি হ্রাস পাবে।’ 

বাগেরহাট ২৫০ শয্যা জেলা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক অসীম কুমার সমদ্দার বলেন, লবণ শরীরের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। তবে লবণের পরিমাণ কমবেশি হলে শরীরে নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। বাগেরহাট অঞ্চলের বেশির ভাগ মানুষের শরীরে লবণের উপস্থিতি বেশি। যে কারণে এখানকার মানুষ নানা ধরনের অসংক্রামক রোগে ভোগেন। যেমন উচ্চ রক্তচাপ, স্ট্রোক, হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, শ্বাসকষ্ট ও কিডনিজনিত সমস্যা। সেই সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের চর্মরোগ, পানিবাহিত রোগ আমাশয়, ডায়রিয়া, টাইফয়েড আক্রান্ত রোগীর সংখ্যাও কম নয়। তাই বাগেরহাটে হার্ট ফাউন্ডেশনের সেবা শুরু খুবই ইতিবাচক, এতে মানুষের সেবার মান শক্তিশালী হবে।” সিভিল সার্জন ডা: মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন অনুরূপ কথা বলেন।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মোহা: খালিদ হোসেন বলেন, বাগেরহাটসহ সুন্দরবন উপকূলীয় এই এলাকার হার্টের পেশেন্টদের জন্য সেবাধর্মী প্রতিষ্টান ‘বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশন’ মানবিক আবদান রাখবে, যা এ অঞ্চলের হার্টের রুগীদের চিকিৎসায় সহায়তা হবে।’ তিনি এ উদ্যোগের প্রশংসা করেন। বাগেরহাট চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি শেখ লিয়াকত হোসেন লিটন এবং বাগেরহাট প্রেস ক্লাবের সভাপতি আ: বাকী তালুকদার অনুরূপ অনুভূতি ব্যক্ত করেন।   

জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, বাগেরহাটের নির্বাহী প্রকৌশলী জয়ন্ত কুমার মল্লিক বলেন, ২০০৯ থেকে ২০২৩ সালের নভেম্বর পর্যন্ত বাগেরহাটের মানুষের সুপেয় পানি নিশ্চিত করতে ৫০০ কোটি টাকার কাজ করা হয়েছে। প্রতিবছরই নতুন নতুন গভীর নলকূপ, রেইন ওয়াটার হার্বেস্টিং সিস্টেম, ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্টসহ নানা পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। তারপরও সংকট দূর হচ্ছে না। তাই জনস্বাস্থ্য সুরক্ষায় বিশেষ করে হৃদরোগীদের সেবায় ‘বাগেরহাট হার্ট ফাউন্ডেশন’ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

এস

×