ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২২ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১

সাদ গ্রুপের কাছে বিশ্ব ইজতেমা ময়দান হস্তান্তর

নিজস্ব সংবাদদাতা, টঙ্গী, গাজীপুর

প্রকাশিত: ২১:১০, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

সাদ গ্রুপের কাছে বিশ্ব ইজতেমা ময়দান হস্তান্তর

সাদ গ্রুপের কাছে জোবায়ের গ্রুপের ইজতেমা মাঠ হস্তান্তর 

আদি তাবলীগ জামাতের শীর্ষ মুরুব্বি মাওলানা সাদ গ্রুপের কাছে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা ময়দান আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়েছে। 

মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর জেলা প্রশাসক ও পুলিশ প্রশাসনের মধ্যস্থতায় লিখিত চুক্তির মাধ্যমে জোবায়ের গ্রুপের কাছ থেকে গাজীপুর জেলা প্রশাসন মাঠ বুঝে নিয়ে সাদ গ্রুপের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আগামী ৯, ১০ ও ১১ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার থেকে শুরু হবে সাদ গ্রুপের ৩ দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা। রবিবার আখেরি মোনাজাত। 

ভারতে অবস্থানরত মাওলানা সাদ গ্রুপের পক্ষে শীর্ষ মুরুব্বিরা মাঠ বুজে নেন। মাওলানা জোবায়ের গ্রুপের নেতৃত্বে ইজতেমার প্রথম পর্ব রবিবার শেষ হয়। দু'পক্ষের সঙ্গে পূর্ব থেকেই কথা ছিল মাঠ দখলে না রেখে গাজীপুর জেলা প্রশাসনের কাছে মাঠ হস্তান্তর করার। 

রবিবার মাওলানা জোবায়ের গ্রুপের ইজতেমা শেষ হওয়ার দুইদিন পর জোবায়ের অনুসারীরা মঙ্গলবার সকালের মধ্যে মাঠ ছেড়ে চলে যান।

মঙ্গলবার ইজতেমার প্রথম ভাগের আয়োজক শুরায়ী নেজামের (জোবায়ের পন্থী) কাছ থেকে ময়দান বুঝে নিয়ে দ্বিতীয় ভাগের আয়োজক নিজামুদ্দিন (সা'দ পন্থী) অনুসারীদের কাছে ইজতেমা ময়দান হস্তান্তর করেন গাজীপুর জেলা প্রশাসক। হস্তান্তরকালে শুরায়ী নেজামের মুরব্বী মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ, ইঞ্জিনিয়ার মাহফুজ হান্নান, আলমগীর হোসেন, হাবিবুল্লাহ রায়হান, মামুন হাশমী, ডা: আজগর, জমির আলী, আবুল হাসনাত, মোস্তফা কামাল ও রুহুল আমিন প্রমুখ এবং নিজামুদ্দিন সাদ অনুসারীদের পক্ষে ড. আব্দুস সালাম, ইঞ্জিনিয়ার মুহিব উল্লাহ, ডা. রেজাউল করীম, ব্যারিস্টার হামিদুর রহমান, সায়েম ও হাজী মনির প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় অক্ষত অবস্থায় ময়দানের বিভিন্ন গেট, মাঠের সামিয়ানা ও গোডাউনের চাবিসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র হস্তান্তর করা হয়।

মঙ্গলবার দুপুরে ইজতেমা ময়দানের বিদেশী নিবাস এলাকায় স্থাপিত জেলা প্রশাসকের কেন্দ্রীয় সমন্বয় কেন্দ্রে এ হস্তান্তর প্রক্রিয়ায় উপস্থিত ছিলেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম, জিএমপি'র উপ-কমিশনার মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সচিব আব্দুল হান্নান প্রমূখ।

এর আগে ইজতেমা ময়দানের পরিস্থিতি এবং সব আয়োজন ঠিকঠাক আছে কিনা তা সরেজমিনে দেখতে পরিদর্শনে আসেন গাজীপুর মহানগর দক্ষিণ পুলিশের ডিসি মোহাম্মদ ইব্রাহিম খান, অতিরিক্ত ডেপুটি পুলিশ কমিশনার হাফিজুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ কমিশনার মেহেদী হাসান, মাকসুদুর রহমান এবং ওসি শাহ্ আলম, মোস্তাফিজুর রহমান, সাখাওয়াত হোসেন ও ইজতেমার শীর্ষ মুরুব্বিগন। রাজধানী ঢাকার জিরো পয়েন্ট থেকে ২২ কিলোমিটার উত্তরে টঙ্গী-উত্তরা তুরাগ নদীর তীরে এ বিশ্ব ইজতেমার আয়োজন করা হয়েছে।

ভারতের দিল্লিতে অবস্থানরত মাওলানা সাদ কান্দলভী টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবেন কি না এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করেননি সাদ গ্রুপের শীর্ষ মুরুব্বিরা। তবে আগামী শুক্রবার মাওলানা সাদের বিশ্ব ইজতেমায় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশসহ মাওলানা সাদের অনুসারীরা গত সপ্তাহে ঢাকার বায়তুল মোকাররম মসজিদের পাশে মানব বন্ধন এবং সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছেন মাওলানা সাদের বিশ্ব ইজতেমায় যোগদান নিশ্চিত করতে। 

পুলিশ কমিশনারের প্রেসব্রিফিং
মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের পুলিশ কমিশনার মাহবুব আলম ইজতেমা মাঠ সংলগ্ন শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি স্টেডিয়ামে এক প্রেসব্রিফিংয়ে বলেন, সাদ গ্রুপের আয়োজনে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে জিএমপির সর্বাত্মক সহযোগিতা থাকবে। প্রথম ভাগের মতো দ্বিতীয় ভাগেও বিশ্ব ইজতেমায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা একই রকমের থাকবে। বৃহস্পতিবার থেকেই পুরো টঙ্গী এলাকা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হবে। শান্তিপূর্ণ ভাবে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানে সবার সহযোগিতা কামনা করেন পুলিশ কমিশনার মাহবুব আলম।

 

এস

সম্পর্কিত বিষয়:

×