ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১

ওসির আমন্ত্রণে সভায় জামায়াত নেতা, ক্ষোভে ফাটলেন সুধী সমাজ

স্টাফ রিপোর্টার, নরসিংদী

প্রকাশিত: ১০:৫১, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

ওসির আমন্ত্রণে সভায় জামায়াত নেতা, ক্ষোভে ফাটলেন সুধী সমাজ

মতবিনিময় সভায় বক্তব্য দেন জামায়াতের নেতা জহিরুল ইসলাম মানিক। ছবি: জনকণ্ঠ

নরসিংদী সদর মডেল থানার আয়োজনে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে মতবিনিময় সভায় জেলা জামায়াতের নেতা (রোকন) জহিরুল ইসলাম মানিককে আমন্ত্রণ জানিয়ে বক্তব্য রাখার সুযোগ দেয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, আইনজীবী, সাংবাদিক সহ সুধী সমাজের নেতারা। বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নরসিংদী সদর মডেল থানা প্রাঙ্গণে আয়োজিত সভায় এ ঘটনা ঘটে। 

নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাশেম ভূইয়ার সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান পিপিএম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জি.এম তালেব হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক পীরজাদা মোহাম্মদ আলী, মুক্তিযোদ্ধা সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম ৭১-এর জেলা সভাপতি আব্দুল মোতালিব পাঠান, নরসিংদী পৌর মেয়র ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন বাচ্চু, নরসিংদী আইনজীবী সমিতির সভাপতি কাজী নাজমুল ইসলাম, নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির শাহ, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অনিল চন্দ্র ঘোষ, নরসিংদীর পৌরসভার কাউন্সিলর ও বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারবৃন্দসহ অর্ধশতাধিক মুক্তিযোদ্ধা সুধীজন। 

নেতারা জামায়াত নেতার উপস্থিতিতে তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানান। এব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম ৭১-এর জেলা সভাপতি আব্দুল মোতালিব পাঠান বলেন, একজন জামায়াত নেতা কীভাবে এই ধরনের একটি অনুষ্ঠানে আসতে পারে সেটা অবশ্যই খতিয়ে দেখার দরকার আছে। পরবর্তীতে এ ধরনের ঘটনা ঘটলে আমরা মুক্তিযোদ্ধারা অনুষ্ঠান বর্জন করবো। 

নরসিংদী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট কাজী নাজমুল ইসলাম বলেন, মানিকের বিরুদ্ধে নাশকতা ও রাষ্ট্র বিরোধী কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে। এসব মামলায় কয়েকবার জেলও খেটেছেন । 

জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জি.এম. তালেব হোসেন বলেন, জামায়াতের এই নেতার বাড়ি বোধ হয় থানার পাশে। এমনিতেই সভায় এসে বসেছে। তবে এটা হতে পারে না। মানিক বক্তব্য দেয়ার সময় আমি জানতে পারি যে, সে জামায়াতের রোকন। আমি তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ জানাই। তখন পুলিশ সুপার সাহেব বললেন, তার আসার ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। 

অনুষ্ঠানের আয়োজক সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাশেম ভুইয়া বলেন, কীভাবে আসছে, সেটা আমি জানি না। তবে মসজিদে দাওয়াত দেয়া হয়েছিল, সেখান থেকে আসতে পারে। 

নরসিংদীর পৌর মেয়র আমজাদ হোসেন বাচ্চু এবং নরসিংদী প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. হুমায়ুন কবির শাহ সহ সুধী সমাজের সবাই ক্ষোভ প্রকাশ ও জোরালো প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

জানতে চাইলে নরসিংদীর পুলিশ সুপার জানান, আমি তো নতুন যোগদান করেছি, আমি কাউকে চিনিনা আমি এই ব্যাপারে খোঁজ খবর নিচ্ছি।  বিষয়টি নিয়ে নরসিংদী শহওে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় বইছে। 

এসআর

×