ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১

স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্নে পাহাড়ের নারীরা

এবার কলা গাছের তন্তু থেকে সিল্কি শাড়ি, বাহারি হস্তশিল্প

সংবাদদাতা, বান্দরবান

প্রকাশিত: ২৩:৫২, ৫ জুন ২০২৩

এবার কলা গাছের তন্তু থেকে সিল্কি শাড়ি, বাহারি হস্তশিল্প

বান্দরবানে কলা গাছের তন্তু থেকে পাহাড়ি নারীদের তৈরি করা কলাবতী শাড়ি

শাড়ির নাম ‘কলাবতী’। কলা গাছের তন্তু থেকে তৈরি হচ্ছে বাহারি ডিজাইনের দৃষ্টিনন্দন এই পরিচ্ছদ। বান্দরবানের পাহাড়ি নারীরা এ শাড়ি তৈরি করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। এখানেই শেষ নয়, সুতি শাড়ির পর এবার তৈরি করা হচ্ছে ‘বানানা সিল্কি’ শাড়ি। এই হস্তশিল্পে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন পিছিয়ে পড়া নারীরা।
বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজির সহায়তায় প্রথমে কলাগাছের বাকল বা তন্তু থেকে সুতা তৈরি করা হয়। সেই সুতা থেকে শাড়ি তৈরির মতো কঠিন কাজ করে চমক লাগিয়ে দিয়েছেন পাহাড়ের পিছিয়ে পড়া নারীরা। এতে করে তারা যেমন আত্মনির্ভরশীল হয়ে উঠেছে, তেমনিভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠছেন।

বান্দরবান শহরের কালাঘাটা ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বড়ুয়ারটেক এলাকায় জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজির উদ্যোগে নারীদের দক্ষ ও স্বাবলম্বী করার লক্ষ্যে একটি পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। প্রকল্পের আওতায় এ পর্যন্ত কয়েকটি ধাপে স্থানীয় প্রায় সাড়ে ৪ শত নারীকে সিলেটের মৌলভী বাজারের মনিপুরী দক্ষ প্রশিক্ষক এনে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এ ছাড়াও তাদের প্রশিক্ষণের পাশাপাশি বিভিন্ন হস্তশিল্প তৈরির কাজে লাগানো হয়। সে কাজের বিনিময়ে প্রশিক্ষণার্থীদের জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নিয়মিত ভাতা প্রদান করা হয়। সে কারণে পিছিয়ে পড়া পাহাড়ের নারীরা ইতোমধ্যে হস্তশিল্প কাজে আগ্রহী ও অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে উঠেছে। তারা সরকারি ও বেসরকারি সংস্থার সহযোগিতা পেলে আরও স্বাবলম্বী হিসেবে গড়ে উঠবে। তবে স্থানীয়ভাবে বেসরকারি সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশন এ নিয়ে সমীক্ষা করছেন বলে জানা যায়।
বান্দরবান জেলা প্রশাসনের পৃষ্ঠপোষকতায় গ্রহণ করা পাইলট প্রকল্পের মাধ্যমে স্থানীয় উদ্যোক্তা সংস্থা পিস নারী কল্যাণ সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক সাইং সাইং উ তাঁতের শাড়ি বুননের কাজ হাতে নেন। তার সঙ্গে স্থানীয় পাহাড়ি নারীদের পাশাপাশি কাজ করছেন প্রশিক্ষক ও মনিপুরি বুননশিল্পী (কারিগর) কবিতা দেবী। মনিপুরী (কারিগর) রাধাবতী দেবীর মাধ্যমে কলাবতী শাড়ি তৈরি করে সফলতার পর তারা নতুন ডিজাইনের বানানা সিল্কি শাড়ি বুননের কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে পরীক্ষামূলকভাবে প্রথম কলাবতী শাড়ি বুননের মনিপুরী শিল্পী (কারিগর) রাধাবতী দেবী অসুস্থতার কারণে এবারে আসতে পারেননি। বর্তমানে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের দত্ত সিংহ নামের একজন পুরুষ শিল্পী (কারিগর) পাহাড়ি নারীদের প্রশিক্ষণ ও শাড়ি তৈরির কাজ সহযোগিতা করছেন।

এ বিষয়ে বান্দরবানের জেলা প্রশাসক ইয়াছমিন পারভীন তিবরীজি বলেন, বান্দরবানের নারীরা কলা গাছের সুতা দিয়ে কলমদানি, ফাইল ফোল্ডার, টেবিল মেট, পাপোস, শোপিস, কানের দুলসহ বিভিন্ন পরিবেশবান্ধব হস্তশিল্প তৈরি করছে। এ ছাড়াও আরও বিভিন্ন ধরনের হস্তশিল্পের শৌখিন জিনিসপত্র তৈরি করছে নারীরা। আর এগুলো ইতোমধ্যে ভালো দামে বিক্রিও হচ্ছে। বান্দরবান জেলার সাত উপজেলার হস্তশিল্পে আগ্রহী নারীদের প্রশিক্ষণের আওতায় আনার চেষ্টা চলছে বলেও জানান তিনি।

×