২৯ মার্চ ২০২০, ১৫ চৈত্র ১৪২৬, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

ক্ষুদ্র ব্যবসার বিকাশ ঘটাতে অর্থায়ন করা হবে

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৭:৫৬ পি. এম.
ক্ষুদ্র ব্যবসার বিকাশ ঘটাতে অর্থায়ন করা হবে

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নে ক্ষুদ্র ব্যবসার বিকাশ ঘটাতে অর্থায়ন করা হবে। বিজনেস ফাইন্যান্স ফর দ্য পুওর ইন বাংলাদেশ (বিএফপি-বি) নতুন করে এ খাতে ২৫ মিলিয়ন পাউন্ড বিনিয়োগ করার ঘোষণা দিয়েছে। এতে করে দেশে ক্ষুদ্র ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বুধবার রাজধানীর রেডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনের গ্র্যান্ড বলরুমে ‘ক্ষুদ্র ব্যবসায়ে অর্থায়ন ও প্রস্তুতি’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গবর্নর আহমেদ জামাল, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, বিকাশ ও কয়েকটি বেসরকারী ব্যাংকের প্রধান কর্মকর্তারা।

আলোচনায় অংশ নিয়ে আহমেদ জামাল বলেন, দেশের অর্থনীতির একটি বড় অংশ জুড়ে রয়েছে ক্ষুদ্র ব্যবসা। ব্যবসা ছোট অথবা বড় হোক, তাতে অর্থায়ন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এ কারণে ক্ষুদ্র ব্যবসায় যত বেশি অর্থের যোগান দেয়া যাবে তত বেশি সেখানে সেবার পরিমাণ বাড়বে। শুধু তাই নয়, দেশের দারিদ্র্য বিমোচনে ভূমিকা রাখতে বড় নিয়ামক হিসেবে কাজ করছে ক্ষুদ্র ব্যবসা। বিএফপি-বি’র অর্থায়নের এই উদ্যোগটি প্রশংসনীয়। এরফলে দেশের অর্থনীতিতে নতুন গতি সঞ্চার হবে।

এদিকে, ব্যবসা বিনিয়োগ প্রতিযোগীতা তহবিলের মাধ্যমে নতুন পণ্য উৎপাদন ও ব্যবসার ধরণ পরিবর্তন, শোষণ এবং ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণে এ অর্থ ব্যয় করা হবে বলে জানিয়েছে বিএফপি-বি। যার মাধ্যমে ক্ষুদ্রও মাঝারি উদ্যোক্তারা তাদের যোগ্যতা, কর্মদক্ষতা প্রদর্শন করতে সক্ষম হবে।

এ প্রকল্পটিতে ২৫ মিলিয়ন পাউন্ড বিনিয়োগ করা হবে। যাতে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা ব্যাংক ও নন ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ঋণ না নিয়ে নিজেদের মত করে পুঁজির ব্যবস্থা করতে পারে। প্রকল্পের অর্থ গ্রামঞ্চলের নারী ও সবুজ উদ্যোক্তাদের প্রতিযোগী তহবিল জমার নিশ্চয়তা এবং নীতি উপাদান খাতে ব্যয় করা হবে।

নিশ্চয়তা তহবিলের টাকা ব্যবসা খাতে সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ, উৎপাদন-সেবাখাতে ৭০ শতাংশ ও গ্রামীণ প্রকল্প-নারী উদ্যোক্তাদের সবুজ প্রকল্পে ৮০ শতাংশ হারে দেয়া হবে।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংকিং ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, বিএফপি-বি অর্থায়নের মাধ্যমে দেশের ক্ষুদ্র ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ হবে।

এখাতে অর্থায়ন হলে দেশে দারিদ্র্যতা হ্রাস পাবে। অর্থনীতির প্রাণ এই ক্ষুদ্র ব্যবসার সম্প্রসারণ হলে জিডিপিতেও তা বড় ভূমিকা রাখতে পারবে। এ কারণে ক্ষুদ্র ব্যবসায় অর্থায়ন আরও বাড়াতে হবে। তিনি বলেন, সরকারের পরিকল্পনায় বিষয়টি রয়েছে। আর এ কারণে সহজশর্তে এখন ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ঋণ নিতে পারছেন। তবে এই সুযোগ আরও বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।

প্রকাশিত : ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৭:৫৬ পি. এম.

২৬/০২/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন


শীর্ষ সংবাদ: