২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

চ্যালেঞ্জ পেরিয়ে সচল ঢাকা গড়ার প্রত্যয় আতিক-তাপসের

প্রকাশিত : ২৯ জানুয়ারী ২০২০
  • নির্বাচনী প্রচারে দেখা হলো খোকন তাপসের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ একটি সুন্দর, সচল ও আধুনিক ঢাকা গড়তে অনেক চ্যালেঞ্জ থাকলেও তা মোকাবেলা করেই এগিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীরা। একই সঙ্গে নির্বাচনের সুন্দর পরিবেশ কেউ যাতে সন্ত্রাসী কার্যক্রমের মাধ্যমে বিঘিœত করতে না পারে, সে বিষয়ে প্রয়োজনে সংশ্লিষ্টদের ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বানও জানান তারা। বর্তমান কার্যক্রমের পাশাপাশি ঢাকাকে উন্নত করে গড়ে তুলতে আরও নতুন নতুন উদ্যোগ নেয়ারও আশ^াস দেন ঢাকার দুই সিটির আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীরা। মঙ্গলবার ১৮তম দিনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ভিন্ন ভিন্ন জায়গায় নির্বাচনী প্রচার ও গণসংযোগকালে আ’লীগের মেয়র প্রার্থীরা নগর নিয়ে পরিকল্পনা বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতিতে এসব কথা বলেন। এ সময় উন্নয়নকে এগিয়ে নিতে একটি আধুনিক ঢাকা গড়তে নৌকা মার্কায় ভোট চান।

আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম বলেছেন, আমরা সবাই চাই একটি সুন্দর, সুস্থ, সচল, গতিময় আধুনিক ঢাকা। আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে, সেগুলো মোকাবেলা করেই এগিয়ে যেতে হবে। মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

গত বছর ঢাকা উত্তর সিটির উপনির্বাচনে জয়ী হয়ে নয় মাস মেয়রের দায়িত্ব পালন করেন গার্মেন্টস ব্যবসায়ী আতিক। তিনি বলেন, আপনারা দেখেছেন, আমি দায়িত্ব নেয়ার পর নয় মাসে একটি দিনও নষ্ট করি নাই। নগরপিতা নয়, নগরের সেবক হিসেবে সবার সঙ্গে কাজ করার চেষ্টা করেছি। সেটি অত্যন্ত কঠিন কাজ ছিল। সেটা একটা অনুশীলন ছিল। নির্বাচিত হলে সিটি কর্পোরেশনের কাজগুলো এগিয়ে নিতে সে অভিজ্ঞতা কাজে দেবে। আতিক বলেন, এই অপরিকল্পিত শহরে আছে যানজট, জলজট, মশার উপদ্রব, বায়ুদূষণসহ নানা চ্যালেঞ্জ। তবুও আমাদের শুরুটা করতে হবে, তাহলে শেষ হবেই। চ্যালেঞ্জগুলো নেয়ার জন্যই নৌকার প্রার্থী হয়ে নাগরিকদের সামনে এসেছি। পদ্মা সেতু যে হবে, সেটা আমরা কখনও স্বপ্নেও ভাবিনি। কিন্তু স্বপ্নের পদ্মা সেতু আজ বাস্তবে রূপ নিচ্ছে। অনলাইন ট্যাক্স পদ্ধতি জোরদার করার বিষয় উল্লেখ করে আতিকুল ইসলাম বলেন, সিটি কর্পোরেশনের ট্যাক্স আর ফেস টু ফেস এসে দিতে হবে না। আগামী ৬ মাসের মধ্যেই সেই কাজ আমরা শুরু করব ইনশাআল্লাহ। ফেস টু ফেস সার্ভিস যত কমে যাবে, দুর্নীতি তত কমবে এবং আমাদের কাজের গতিও তত বাড়বে। সেই সঙ্গে নাগরিকদের ভোগান্তি, হয়রানি কমবে এবং ট্যাক্স আদায়ও বাড়বে। ‘আকাশের যত তারা, সিটি কর্পোরেশনের তত ধারা’ এমন এক জুজুর ভয়ে আছে। এরকম ভোগান্তি আর থাকবে না।

আতিকুল ইসলাম আরও বলেন, নৌকার গিয়ার একটাই, সেটা হলো ফ্রন্ট গিয়ার। আর ফ্রন্ট গিয়ার মানেই উন্নয়নের গিয়ার। নৌকা দিয়েছে স্বাধীনতা, দিয়েছে উন্নয়ন। নৌকা দেবে সুন্দর, সচল, আধুনিক ঢাকা। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি যত বেশি মানুষ ভোট দিতে আসবে, নৌকার জয় তত বেশি হবে ইনশাআল্লাহ। মতবিনিময় সভায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলমসহ অন্য সাংবাদিক নেতারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

প্রেসক্লাবে হঠাৎ দেখায় আতিকুল-মির্জা ফখরুলের শুভেচ্ছা বিনিময়

কাকতালীয়ভাবে একই স্থানে দেখা হয়েছে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও উত্তরের আ’লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী আতিকুল ইসলামের। পূর্ব নির্ধারিত কোন সাক্ষাত ছিল না। মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে জাতীয় প্রেসক্লাবে মিলনায়তনে একটি অনুষ্ঠান শেষে ক্লাবের টিভি লাউঞ্জে চা পান করতে আসেন মির্জা ফখরুল, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান। ঠিক সে সময়ে আতিকুল ইসলাম লাউঞ্জে এসে বিএনপি মহাসচিবকে দেখে তার কাছে ছুটে আসেন এবং সালাম দেন এবং কুশল বিনিময় করেন। মির্জা ফখরুলও হাসিমুখে তাকে শুভেচ্ছা জানান। হালকা হাস্যরসের মধ্য দিয়ে কিছুক্ষণ কথাবার্তাও চলে দুইজনের। এ সময়ে সাংবাদিকদের অনুরোধে দুজনকে ক্যামেরার সামনেও দাঁড়াতে হয়। বিএনপিও অন্য নেতাদের সঙ্গেও কুশল বিনিময় করেন আতিক। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম, সাংবাদিক স্বপন সাহা, শ্যামল দত্তসহ অন্য সাংবাদিকরাও উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, বেলা ১১টায় আতিকুল ইসলাম জাতীয় প্রেসক্লাবে দোতলায় সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। একই সময়ে ক্লাবের মিলনায়তনে ঢাকা দক্ষিণে ধানের শীষের মেয়রপ্রার্থী ইশরাক হোসেনের নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণার অনুষ্ঠানে ছিলেন বিএনপির নেতারা।

নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট করার অভিযোগ তাপসের

সন্ত্রাসী কর্মকা-ের মাধ্যমে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট করার বিভিন্ন ধরনের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন আসন্ন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস। মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর রাজারবাগে নির্বাচনী প্রচার এবং গণসংযোগ শুরুর আগে উপস্থিত গণমাধ্যমের সাংবাদিকদের কাছে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ব্যারিস্টার তাপস বলেন, আমরা চাই নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ যেন বজায় থাকে, কোনভাবে যেন নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট না হয়। কোন সন্ত্রাসী কার্যকলাপের মাধ্যমে কেউ যাতে পরিবেশকে বিঘিœত করতে না পারে। আমি নির্বাচন কমিশন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে অনুরোধ করব, নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে তারা যেন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। তিনি আরও বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের আর মাত্র তিন দিন বাকি আছে। আমরা যেখানেই গণসংযোগ করছি ঢাকাবাসীর স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পাচ্ছি। আমরা যে উন্নয়নের রূপরেখা দিয়েছি, ঢাকাবাসী তা সাদরে গ্রহণ করেছে। আমরা আশাবাদী ১ ফেব্রুয়ারি, ঢাকাবাসী নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আমাকে মেয়র পদে নির্বাচিত করে তাদের সেবক হিসেবে কাজ করার সুযোগ দেবেন।

‘ভাই’ সম্বোধন করে তাপসকে সমর্থন মেয়র খোকনের

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) বর্তমান মেয়র ও মেয়র নির্বাচনে অন্যতম প্রতিদ্বন্দ্বী শেখ ফজলে নূর তাপস দুজনই আওয়ামী লীগ নেতা হলেও নির্বাচনী প্রচারে দুজনের দেখা হয়নি এতদিনেও। মঙ্গলবার সেই দেখা হলো দুজনের। দেখা হতেই তাপসকে আলিঙ্গন করলেন খোকন। এ সময় তাপসকে সমর্থন জানান খোকন, আচরণবিধির বাধ্যবাধকতা থাকায় তার পক্ষে সরাসরি ভোট চাইতে পারছেন না বলেও জানান। মঙ্গলবার দুপুরে সদরঘাটে সিটি কর্পোরেশনের জলবায়ু উদ্বাস্তু আশ্রয় কেন্দ্রে দেখা হয় খোকন ও তাপসের। এদিন আশ্রয়কেন্দ্রটি পরিদর্শনে গিয়েছিলেন মেয়র খোকন। আর ওই এলাকাতেই গণসংযোগে গিয়েছিলেন ফজলে নূর তাপস। মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, আমাদের প্রাণপ্রিয় প্রার্থী এই এলাকায় গণসংযোগ করতে এসেছেন। আমি এখানে এসেছি আমাদের প্রকল্প পরিদর্শন করতে। দক্ষিণ সিটি এলাকায় যেসব পথবাসী থাকে, তাদের এখানে এনে পুনর্বাসন করে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তাদের সুন্দর জীবন নিশ্চিত করার জন্য এই প্রকল্প গ্রহণ করেছি। খোকন আরও বলেন, আজ আমরা দুই ভাই এখানে উপস্থিত হয়েছি। আজ এই ঐতিহাসিক মুহূর্তে একথা বলতে চাই, আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসকে আমি নৌকা মার্কায় ভোট দেব বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

তাপসের নির্বাচনী ক্যাম্পে দুর্বৃত্তের আগুন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপসের একটি নির্বাচনী ক্যাম্পে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার গভীর রাতে ৬১ নম্বর ওয়ার্ডের দনিয়া বাজারের ‘মায়ের দোয়া’ হোটেলের সামনে তাপসের অস্থায়ী ক্যাম্পটিতে আগুন লাগে।

প্রকাশিত : ২৯ জানুয়ারী ২০২০

২৯/০১/২০২০ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: