২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

কেরানীগঞ্জে প্লাস্টিক কারখানায় ভয়াবহ আগুন

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯
  • পুড়ে অঙ্গার একজন

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা ও নিজস্ব সংবাদদাতা, কেরানীগঞ্জ ॥ ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জের একটি প্লাস্টিক সামগ্রী তৈরির কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে। আগুনে একজন পুড়ে কয়লা হয়ে গেছে। পুড়ে কয়লা হয়ে নিহত ব্যক্তি পুরুষ না মহিলা তাও বোঝার উপায় নেই। তবে প্রাথমিকভাবে নিহত ব্যক্তি পুরুষ বলে ধারণা করছে ফায়ার সার্ভিস। আগুনে অন্তত ৩৩ জন দগ্ধ হয়েছেন। যাদের অন্তত ২০ জনের অবস্থা গুরুতর, তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন এ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে ভর্তি করা হয়েছে। কারখানার গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে এমন ভয়াবহ অগ্নিকা-ের ঘটনাটি ঘটে বলে আহতরা জানান। ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স বিভাগের ১৩টি ইউনিট রাত সোয়া সাতটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এদিকে আহতদের স্বজনদের আহাজারিতে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিট ও পুড়ে যাওয়া কারখানা এলাকার আকাশ বাতাস ভারি হয়ে আছে। শত শত মানুষের আহাজারি আর বিলাপে এক হৃদয়বিদারক পরিবেশ বিরাজ করছে।

বুধবার বিকেল সাড়ে চারটার দিকে কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়ার হিজলতলা এলাকায় প্রাইম প্লেট এ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ নামের ওয়ান টাইম থালা ও গ্লাস তৈরির কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকা-ের ঘটনাটি ঘটেছে।

স্থানীয়রা ও আহতরা জানান, বিকেলে যথারীতি কারখানায় কাজ চলছিল। কারখানায় শিফটিং ডিউটি থাকায় সকালে আসা শ্রমিকদের অধিকাংশই চলে যায়। আর দুপুরের শিফটে আসা শ্রমিকরা কাজ করছিল। তবে তার পরিমাণ ছিল খুবই কম। আবার বিকেল হওয়ায় অনেক শ্রমিক কারখানার বাইরে ছিল চা নাস্তা করতে। আচমকা কারখানার ভেতরে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। এরপরই আগুন লেগে যায়। এ সময় শ্রমিকরা যে যার যার মতো দৌড়ে কারখানা থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করতে থাকেন। তারাতারি করে বের হওয়ার সময় অনেক শ্রমিক আহত হন। আর আচমকা বিস্ফোরণের পর দ্রুত আগুন লেগে তা ছড়িয়ে পড়ে। এতে করে করে বিস্ফোরণের কাছাকাছি শ্রমিকরা আটকা পড়েন। তারা কোনমতে বের হন। তাদের অধিকাংশেরই শরীরের বিভিন্ন জায়গা ঝলসে যায়। কেউ কেউ মারাত্মক দগ্ধ হন। তাদের দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিস এ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দফতরের অপারেটর ফরিদ উদ্দিন জনকণ্ঠকে জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের ইউনিটগুলো হাজির হয়। সর্বশেষ ১৩টি ইউনিট সেখানে কাজ করে। রাত সোয়া সাতটার দিকে আগুন নির্বাপণ করা হয়। কারখানার ভেতর থেকে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সেটি পুরুষ না মহিলা তাও সহজে বোঝা যাচ্ছিল না। পুড়ে কয়লা হয়ে গেছে। তবে ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধারকারীদের ধারণা লাশটি পুরুষের।

কেরানীগঞ্জ থেকে আমাদের নিজস্ব সংবাদদাতা কারখানাটির নিরাপত্তা ইনচার্জ বাবর আলীর বরাত দিয়ে জানান, বুধবার বিকেল সোয়া ৪টার দিকে কারখানার ভেতরে আগুন ধরে যায়। এ সময় সেখানে নারী ও পুরুষ মিলে ৮০ শ্রমিক কাজ করছিলেন। আহতদের মধ্যে কারখানাটির ব্যবস্থাপক নজরুল ইসলামও আছেন। ফায়ার সার্ভিসের উপসহকারী পরিচালক কাজী নাজমুজ্জামান জানান, প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়। এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ, কেরানীগঞ্জ সার্কেল অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রামানন্দ সরকার, র‌্যাব-১০ এর উপ অধিনায়ক মেজর শাহরিয়ার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিত দেবনাথসহ উর্ধতন কর্মকর্তারা। কারখানা এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ ও র‌্যাব মোতায়েন রয়েছে।

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

১২/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: