২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬, শুক্রবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 

চোরাগোপ্তা হামলার শঙ্কায় আদালতের নিরাপত্তা জোরদার

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯
  • কঠোর হস্তে দমনের নির্দেশ

শংকর কুমার দে ॥ আগুন সন্ত্রাসীরা চোরাগুপ্তা হামলা করে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে পারে এমন আশঙ্কা করছে গোয়েন্দা সংস্থা। বুধবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ পর্যায়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে সর্বোচ্চ আদালতের নিরাপত্তা জোরদার, আগুন সন্ত্রাসীদের কঠোর হস্তে দমন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দুর্নীতির অভিযোগে সাজাপ্রাপ্ত কারাবন্দী বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানির আগের দিন বুধবার সুপ্রীমকোর্টের সামনের তিনটি স্থানে অন্তত তিনটি মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছে আগুন সন্ত্রাসীরা। পুলিশ সদর দফতর ও গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

পুলিশ সদর দফতরের একজন কর্মকর্তা বলেন, বুধবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সর্বোচ্চ পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। দেশের সর্বোচ্চ আদালতের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা নিয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে এই বৈঠক। বৈঠকে আলোচনা হয় যে, বুধবার সুপ্রীমকোর্ট এলাকায় তিনটি মোটরসাইকেলে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে এবং এর আগে গত বৃহস্পতিবার সুপ্রীমকোর্টের ভেতরে জামিনের শুনানিকে কেন্দ্র করে আদালতের বিচারকার্যের অচলাবস্থা সৃষ্টির জন্য যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটানো হয়। বৈঠকে আলোচনা হয়, কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি বৃহস্পতিবার। এর আগের দিন সুপ্রীমকোর্ট এলাকায় এমন অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটানোর তদন্ত করে আগুন সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সর্বোচ্চ আদালতের আশাপাশ এলাকার নিরাপত্তা জোরদার করার সিদ্ধান্ত নেয়ার পর সুপ্রীমকোর্টের রক্ষাকারী বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আর্চওয়ে ও মেটাল ডিটেক্টর দিয়ে তল্লাশির পর আইনজীবী, বিচারপ্রার্থী, সাংবাদিকসহ সংশ্লিষ্টদের আদালত চত্বরে প্রবেশ করানো হবে। সুপ্রীমকোর্টে এলাকায় যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে বৃহস্পতিবার সুপ্রীমকোর্ট এলাকার নিরাপত্তা জোরদার ছাড়াও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী থাকবে সতর্ক অবস্থায়।

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেল সাড়ে চারটা থেকে পৌনে পাঁচটার মধ্যে হাইকোর্টের মাজার গেট, ঈদগাহ মাঠের গেট ও বার কাউন্সিলের গেটের সামনে তিনটি মোটরসাইকেলে আগুন দেয়া হয়। চোরাগুপ্তা হামলা চালিয়ে তিন মোটরসাইকেলে আগুন দিয়ে ঝটিকাবেগে পালিয়ে গেছে আগুন সন্ত্রাসীরা। বৃহস্পতিবার বেগম খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন শুনানির দিন ধার্য করা আছে সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে। জামিনের শুনানির আগের দিন হঠাৎ করে সুপ্রীমকোর্টের সামনের রাস্তায় তিন মোটরসাইকেলে আগুন দেয়ার ঘটনার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত শুরু করেছে ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থা। এর আগে এক সপ্তাহ আগে গত বৃহস্পতিবার বেগম খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন ও মেডিক্যাল রিপোর্টকে কেন্দ্র করে সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের হৈচৈ, হট্টগোল, চিৎকার, শোরগোল, আদালতের কার্যক্রমে বাধা প্রদানের ফলে আদালতের কার্যক্রমে অচলাবস্থা দেখা দেয়। এই প্রেক্ষাপটে বৃহস্পতিবার সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে বেগম খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদনের ও মেডিক্যাল রিপোর্ট দাখিলের দিন ধার্য করা হয়েছে। বুধবার আবার সুপ্রীমকোর্টের সামনের তিনটি স্থানে তিনটি মোটরসাইকেলে আগুন দেয়ার ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে। নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে সুপ্রীমকোর্ট এলাকার।

গোয়েন্দা সংস্থার সূত্রে জানা গেছে, চোরাগুপ্তা হামলা, আগুন সন্ত্রাস, ঝটিকা মিছিল, গুজব ছড়িয়ে নাশকতা চালানোর জন্য সুবজ সংকেত দিয়েছে লন্ডনে পলাতক সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এই ধরনের তথ্যের খবর পেয়ে সতর্ক দৃষ্টি, নজরদারি ও কঠোর হস্তে আগুন সন্ত্রাস দমন ও আগুন সন্ত্রাসীদের খুঁজে বের করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। সরকারের পতন ঘটাতে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে পরিকল্পিতভাবে ২০১৪-১৫ সালের আগুন সন্ত্রাস, পেট্রোল বোমা, নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সেই ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছিল বিএনপি-জামায়াত। কোন অদৃশ্য মহলের মদদে আবার যাতে নতুন করে দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে না পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রীমকোর্টের আপীল বিভাগে যদি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটানোর চেষ্টা করা হয় তাহলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি কঠোর হস্তে দমন করার নির্দেশ দিয়েছে সরকার। দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দী বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জামিন শুনানিতে আপীল বিভাগে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের হৈচৈ ও হট্টগোলের মতো অত্যন্ত ন্যক্কারজনক ঘটনা মোকাবেলার জন্য ইতোমধ্যেই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উচ্চ পর্যায়ে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রকাশিত : ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

১২/১২/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

প্রথম পাতা



শীর্ষ সংবাদ: