১৯ অক্টোবর ২০১৯, ৪ কার্তিক ১৪২৬, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
 
সর্বশেষ

আবরার হত্যার প্রতিবাদে ১৩ অক্টোবর নাগরিক শোকর‌্যালি পালনের সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত : ১০ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৪৮ পি. এম.
আবরার হত্যার প্রতিবাদে ১৩ অক্টোবর নাগরিক শোকর‌্যালি পালনের সিদ্ধান্ত

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার হত্যার প্রতিবাদে আগামী ১৩ অক্টোবর নাগরিক শোক র‌্যালি’র কর্মসূচী গ্রহন করেছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

বৃহস্পতিবার সরকারবিরোধী রাজনৈতিক জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়েছে। ফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেনের মতিঝিলের চেম্বারে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতারা অংশ নেন। এছাড়া ১৩ অক্টোবর ফ্রন্টের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নেয়া কর্মসূচী নিয়েও বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে বলে জানা গেছে। বৈঠকে বেশিরভাগ নেতা প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নেয়া কর্মসূচী বাতিলের পক্ষে মত দেন। সর্বশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে নেতা ঐক্যফ্রন্টের সকল কর্মসূচী বাতিল করা হয়েছে। জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা জানিয়েছেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে কর্মসূচী বাতিল করা হয়েছে।

রবিবার রাত তিনটার দিকে প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের শেরে বাংলা হলের সিঁড়ি থেকে তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ওই হলের শিক্ষার্থীদের বরাত দিয়ে পুলিশ বলছে, দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরারকে রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তার এক হাজার ১১ নম্বর কক্ষ থেকে ডেকে নিয়ে যায় কয়েকজন। পরে শিক্ষার্থীরা রাতে হলের দ্বিতীয়তলার সিঁড়িতে তার লাশ পায়।

লাশের সুরতহাল প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আবরারের দুই কাঁধের নিচ থেকে হাতের কব্জি পর্যন্ত কালসিটে ছিল। একইভাবে কোমর থেকে পায়ের গোড়ালি পর্যন্ত ছিল জখমের দাগ। আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকসহ ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মামলা হয়েছে এই ১০জনসহ ১৯ জনের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত সবাইকে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে রবিবার সন্ধ্যায় স্থায়ীভাবে বহিস্কার করা হয়েছে। এ ঘটনায় দেশজুড়ে বইছে নিন্দা আর প্রতিবাদের ঝড়। হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে উত্তাল বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেও বলেছেন, ছাত্রলীগ বুঝি না অপরাধীদের কঠোর বিচার হবে।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক আহ্বান করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় ড. কামাল হোসেন। বৈঠকে নেতৃবৃন্দ বলেন, সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরকালে উভয়দেশের মধ্যে সম্পাদিত সাত চুক্তির ব্যাপারে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে স্ট্যাটাস দেয়ার কারণে, বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদকে ছাত্রলীগ নেতা-সংগঠকরা নির্মমভাবে হত্যা করে। এই হত্যার প্রতিবাদে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আগামী ১৩ অক্টোবর রবিবার প্রেসক্লাব থেকে বিকাল ৩-টায় জমায়েত শেষে “নাগরিক শোক র‌্যালী’র কর্মসূচী পালন করবে।

শোক র‌্যালিতে সর্বস্তরের জনগণকে অংশগ্রহণের জন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আহ্বান জানানো হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন আ.স.ম. আব্দুর রব. ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, মাহমুদুর রহমান মান্না, ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ, এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, নুরুল আমীন ব্যাপারী, আব্দুল মালেক রতন, শহীদুল্লাহ কায়সার, তানিয়া রব, এডভোকেট জগলুল হায়দার আফ্রিক, মোশতাক আহমেদ, ডা. জাহিদ প্রমুখ।

গত রবিবার ফ্রন্টের নেতারা বৈঠক করে আগামী ১৩ই অক্টোবর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। বিএনপি, গণফোরাম, জেএসডি ও নাগরিক ঐক্যের সমন্বয়ে ২০১৮ সালের ১৩ অক্টোবর গঠিত হয়েছিল এই ফ্রন্ট প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন বিকাল তিনটায় জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আলোচনা সভা করার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তা বাতিল করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠক শেষে গণফোরাম নেতা সুব্রত চৌধুরী বলেন, ১৩ অক্টোবর জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আলোচনা সভার সিদ্ধান্ত ছিল। দেশের সার্বিক পরিস্থিতিতে আমরা আবরার হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে শোক র‌্যালি করবো। এই র‌্যালি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে শুরু হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হবে। শোক র‌্যালিতে সর্বস্তরের জনগণকে অংশগ্রহণের জন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে আহ্বান জানান মাহমুদুর রহমান মান্না।

প্রকাশিত : ১০ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৪৮ পি. এম.

১০/১০/২০১৯ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

জাতীয়



শীর্ষ সংবাদ: