মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২০ আগস্ট ২০১৭, ৫ ভাদ্র ১৪২৪, রবিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

তারবিহীন ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট- ব্যাপক সাড়া

প্রকাশিত : ২৭ জুন ২০১৬
তারবিহীন ব্রডব্যান্ড  ইন্টারনেট- ব্যাপক  সাড়া
  • সেবা পৌঁছছে ৩০ কিমি এলাকায়

মাজহার মান্না ॥ তরুণ প্রযুক্তিবিদ ফজলে রাব্বি রবিন ব্যক্তিগত উদ্যোগে আবিষ্কার করেছেন তারবিহীন দ্রুতগতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট। তার এ প্রযুক্তির ব্যবহার এরই মধ্যে এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। এ ইন্টারনেট দিয়ে নিজেদের জরুরী কাজ করছেন চার উপজেলার প্রায় ৩০ কিলোমিটার এলাকার অনেকেই। গত ১ জুন থেকে বাণিজ্যিকভাবে কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর, ভৈরব, বাজিতপুর ও কটিয়াদী- এই ৪ উপজেলায় তারবিহীন উচ্চগতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবা শুরু করা হয়েছে। এরপর ৭ জুন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক রবিনের আবিষ্কৃত ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সম্পর্কে জানতে তাকে নিজ বাসায় ডেকে নেন। এ সময় তিনি রবিনের কাছে তারবিহীন এই ইন্টারনেট সেবা বিষয়ে বিস্তারিত জেনে তাকে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর উপজেলা সদরের মোঃ রফিক উদ্দিনের ছেলে ফজলে রাব্বি রবিন ছোটবেলা থেকেই বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স যন্ত্র তৈরি করে তাক লাগিয়ে দিতেন আশপাশের লোকজনকে। রবিন ঢাকা কলেজ থেকে ইংরেজীতে মাস্টার্স শেষ করে পাড়ি জমান অস্ট্রেলিয়ায়। সেখানের ইউনিভার্সিটি অব বালারাত থেকে সফ্টওয়্যার ডেভেলপমেন্ট বিষয়ে ৩ বছরের কোর্স শেষ করে দেশে ফিরে আসেন। এরপর তিনি সরকারী চাকরির কথা চিন্তা না করে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে কাজ শুরু করেন। আর নিজের শিক্ষালব্ধ জ্ঞান দিয়ে ব্যবসার পাশাপাশি মানবসেবার কাজ শুরু করেন নিজের এলাকা থেকেই। বর্তমানে তরুণ এই প্রযুক্তিবিদ মানুষের কাছে দ্রুতগতির ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দিয়ে এখন আলোচনায় উঠে এসেছেন।

রবিন জানান, তিনি দেশে ফিরে কুলিয়ারচরে এসে প্রথমে অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে এ্যান্টেনা তৈরি করে থ্রিজি নেটওয়ার্ক সংযোগ স্থাপন করেন। এর ফলে মডেমের মাধ্যমে দ্রুতগতির ইন্টারনেট ব্যবহার করা যেত। এরপর রবিন এ্যান্টেনার আরও উন্নত ধাপের পরিকল্পনা মাথায় রেখে নিজ খরচে ২০ লাখ টাকা ব্যয় করে এলাকায় সুউচ্চ একটি টাওয়ার বসান। ওই টাওয়ারের মাধ্যমে ৪ উপজেলায় তারহীন ইন্টারনেট সেবা শুরু করেন। এরপর কুলিয়ারচর উপজেলাসহ আশপাশের ৩ উপজেলায় এ সেবা ছড়িয়ে পড়লে দ্রুত বাড়তে থাকে তার ব্রডব্যান্ড সংযোগ।

রবিন আরও জানান, তার তৈরি টাওয়ার থেকে ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া যাবে আশপাশের ৩০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে। এ জন্য ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের একটি ইউবিএনটি মডেম লাগবে। তিনি বিটিসিএল থেকে ইন্টারনেট সংযোগ নিয়েছেন। সেই সঙ্গে বিটিআরসি থেকে ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (আইএসপি) লাইসেন্স নিয়েছেন।

কুলিয়ারচর উপজেলায় বিদ্যুতের সমস্যা প্রকট। তবে বিদ্যুত না থাকলেও রবিনের আবিষ্কৃত ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট টাওয়ারের জন্য ৩ থেকে ৪ ঘণ্টার পাওয়ার ব্যাকআপ পাওয়া যাবে। রবিন এ অঞ্চলের মানুষের কাছে নির্বিঘেœ উচ্চগতির ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দিতে সরকারী সহযোগিতা কামনা করেছেন।

প্রকাশিত : ২৭ জুন ২০১৬

২৭/০৬/২০১৬ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: