২২ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

মানুষ মানুষের জন্য


স্টাফ রিপোর্টার ॥ টাঙ্গাইল গোপালপুর কলেজের সমাজকল্যাণ বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত প্রভাষক রঞ্জিত কুমার ভদ্রের (৬৫) জীবন বাঁচাতে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিন। তিনি ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন। টাঙ্গাইলের মধুপুরের রায় পাড়ায় তাঁর বাড়ি। তিনি গোপালপুর কলেজে ৩০ বছরের বেশি সময় শিক্ষকতা করেছেন। তাঁর চিকিৎসার পেছনে ইতোমধ্যে ব্যয় হয়েছে প্রায় ১৮ লাখ টাকা। সহায় সম্বল হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে পরিবারটি। রঞ্জিত কুমারের স্ত্রী অনীতা বিশ্বাসও একজন অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক। তিনি মধুপুর উপজেলার আদিবাসী অধ্যুষিত জলছত্র কর্পোস

খ্রীষ্টি উচ্চ বিদ্যালয়ে দীর্ঘ ৩০ বছর শিক্ষকতা করেছেন। এই শিক্ষক দম্পতির ছিল সুখের সংসার। দু’জনের সীমিত আয় দিয়েই সংসারের চাহিদা মেটানো সম্ভব হতো। এলাকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কর্মকা-ে তাঁরা অনেক অবদান রেখেছেন। অনেক শিক্ষার্থীকে বিনামূল্যে পড়িয়েছেন। অর্জন করেছেন এলাকাবাসী ও শিক্ষার্থীদের ভালবাসা ও সম্মান। রঞ্জিত কুমারের মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার সংবাদে এই শিক্ষক দম্পতির সংসারে নেমে এসেছে অন্ধকারের ছায়া। শুরুতে বাংলাদেশে চিকিৎসা করানোর পর চিকিৎসকদের পরামর্শে তাঁকে ভারতে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু আর্থিক সঙ্কটে পড়ে চিকিৎসা অসমাপ্ত রেখে দেশে ফিরে আসতে বাধ্য হন তাঁরা। আত্মীয়স্বজনদের সহযোগিতায় রঞ্জিত কুমার ভদ্র বর্তমানে ঢাকা ডেল্টা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। টাকার অভাবে চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে তাঁর চিকিৎসা। চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসা উপকরণসমূহ যোগান দিতে পারছে না রোগীর পরিবার। এমতাবস্থায়, রঞ্জিত কুমার ভদ্রের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ সকল হৃদয়বান ও দানশীল ব্যক্তির আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছে তাঁর অসহায় পরিবার। চিকিৎসায় সহযোগিতা দিতে সরাসরি যোগাযোগ করুন এই মোবাইল নম্বরে-০১৭১৪ ৬৭৯৯৩০ (বিকাশ)। আর সাহায্য দিন রঞ্জিত কুমারের জামাতা প্রদীপ কুমার ঘোষের এই সঞ্চয়ী হিসাবে- অগ্রণী ব্যাংক লিঃ, নিউ ইস্কাস্টন শাখা, মগবাজার, রমনা, ঢাকা, হিসাব নম্বর -০২০০০০১৭৫৭৪২৩।

ঘোষণা : দৈনিক জনকণ্ঠ মানুষ মানুষের জন্য বিভাগে খবর প্রকাশের মাধ্যমে সহৃদয় ব্যক্তিদের সঙ্গে যোগাযোগ ঘটিয়ে দিয়ে থাকে। সাহায্য সরাসরি সাহায্যপ্রার্থীর ব্যাংক এ্যাকাউন্টে জমা দিতে হবে। অথবা নগদ দিতে সাহায্যপ্রার্থীর দেয়া মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করতে হবে। দৈনিক জনকণ্ঠ এ বিষয়ে কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: