মেঘলা, তাপমাত্রা ৩১.১ °C
 
২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ৮ আশ্বিন ১৪২৪, শনিবার, ঢাকা, বাংলাদেশ
সর্বশেষ

পোস্টার-ব্যানার-ফেস্টুনে নেতাকর্মীদের ছবি ব্যবহার নিষিদ্ধ

প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৫
  • আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের চিঠি

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ দলের কিছু নেতাকর্মীর নিজেদের আত্মপ্রচারে দৃষ্টিকটু ব্যানার-ফেস্টুন তৈরির ঘটনায় ভীষণ ক্ষুব্ধ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড। নেতাকর্মীদের নিজেদের ছবি দিয়ে বিলবোর্ড, পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন তৈরি না করতে নির্দেশ দিয়েছে দলটি। এখন থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়া আওয়ামী লীগের কোন পর্যায়ের নেতাই নিজের ছবি দিয়ে বিলবোর্ড, পোস্টার করতে পারবেন না। মূল দল ও তাদের সব সহযোগী-ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনকে এই নির্দেশ মেনে চলতে হবে। কেন্দ্র থেকে এমন নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ঢাকাসহ সারাদেশে চিঠি পাঠিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক ও জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। মঙ্গলবার থেকে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর কার্যালয় থেকে সাংগঠনিক জেলার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর চিঠিগুলো ডাকযোগে দেয়া শুরু হয়েছে। এদিকে মঙ্গলবার ধানম-িস্থ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক যৌথসভাতেও এমন নিষেধাজ্ঞা জারির বিষয়ে আলোচনা হয়। সেখানেও কেন্দ্রীয় নেতারা ঢাকাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে কিছু নেতাকর্মী বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীকে খাটো করে নিজেদের ঢাউস ঢাউস ছবি দিয়ে আত্মপ্রচারের ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন। বৈঠকে দ্রুত সারাদেশে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপসংক্রান্ত চিঠিটি পাঠানোর তাগিদ দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম স্বাক্ষরিত চিঠিটি দলের সব পর্যায়ে পাঠানো শুরু হয়। বৈঠকে উপস্থিত দলটির সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের হাতেও চিঠি হস্তান্তর করা হয়। ঢাকাসহ সারাদেশে স্ব স্ব সংগঠনের শীর্ষ নেতাদের বিষয়টি গভীরভাবে নজরদারি করারও নির্দেশ দেয়া হয়। ইতোমধ্যে ২০টি জেলায় চিঠিটি প্রেরণ করা হয়েছে। দু’একদিনের মধ্যে সব সাংগঠনিক জেলাতেই চিঠিটি পৌঁছে যাবে।

দলটির নেতারা বলছেন, চিঠি পাঠানোর পর আগামী এক সপ্তাহ তাঁরা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করবেন। এরপর নির্দেশ অমান্যকারীদের তালিকা প্রস্তুত করে তাদের বিরুদ্ধে কী ধরনের শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা যায়, তা চূড়ান্ত করা হবে। দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে অবশ্যই সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আমরা গভীরভাবে উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি যে, সারাদেশের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন ধরনের রাজনৈতিক বিলবোর্ড, পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন শোভা পাচ্ছে; যাতে সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীর ছবি থাকছে অথচ সেখানে বাংলাদেশের মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি খুব ছোট আকারে পরিলক্ষিত হচ্ছে। যা দেশের সাধারণ মানুষের নিকট দৃষ্টিকটু। সুতরাং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি ব্যতীত অন্য কারও ছবি থাকলে সেই সব বিলবোর্ড, পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন সরিয়ে ফেলানোর জন্য সারাদেশে আপনার সংগঠনের নেতাকর্মীদের নির্দেশ প্রদানের আহ্বান জানানো হলো।’

এমন নির্দেশনার ব্যাপারে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ বলেন, দলীয় ব্যানার-বিলবোর্ড যেন কম ব্যবহার হয়, সেটাই আমাদের লক্ষ্য। নিজেদের ছবি যখন নেতাকর্মীরা ব্যবহার করতে পারবে না, তখন তারা ব্যানার-বিলবোর্ড বানাতে নিরুৎসাহিত হবে।

বৈঠকে উপস্থিত কয়েক কেন্দ্রীয় নেতা ক্ষুব্ধ কণ্ঠেই বলেন, দলীয় এই নির্দেশনা শুধু জেলা বা সহযোগী সংগঠনের নেতাদের চিঠির মাধ্যমে জানিয়ে দিলে চলবে না, প্রয়োজনে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে এই কঠোর নিষেধাজ্ঞার কথা দলের সব পর্যায়ের নেতাদের জানানো উচিত। ব্যানার-বিলবোর্ড বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ছোট ব্যবহার তো মেনে নেয়া যায় না।

প্রকাশিত : ১৬ ডিসেম্বর ২০১৫

১৬/১২/২০১৫ তারিখের খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন

শেষের পাতা



শীর্ষ সংবাদ: