২০ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাতক্ষীরায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত সর্দার নিহত, গুলিবিদ্ধ ৩


স্টাফ রিপোর্টার, সাতক্ষীরা ॥ সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের উপর গাছ ফেলে যাত্রীবাহী পরিবহনে ডাকাতির চেষ্টাকালে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে আন্তঃজেলা ডাকাতদলের সর্দার আবু সাঈদ নিহত এবং তার তিন সহযোগী গুলিবিদ্ধ হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি পাইপগান, একটি দেশীয় রিভলবার, দুইটি বন্দুকের কার্তুজ, চারটি বন্দুকের গুলির খোসা, দুটি বড় ধারালো দা ও চারটি লোহার রড উদ্ধার করা হয়েছে। আটক করা হয়েছে আন্তঃজেলা ডাকাতদলের আরও চার সদস্যকে।

রবিবার ভোররাতে জেলার পাটকেলঘাটা থানাধীন কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের রাকিব অটো রাইস মিল সংলগ্ন সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।।

নিহত ডাকাত সর্দার যশোরের কেশবপুর উপজেলার আওয়ালগাতি গ্রামের মৃত এলাহী বক্স মোড়লের ছেলে। গুলিবিদ্ধ ডাকাতরা হলো খুলনার কয়রা উপজেলার বাগালী গ্রামের ফজলুল হক তরফদারের ছেলে আরিফুজ্জামান (২০), ঘুগরাকাটি গ্রামের কামরুল ইসলামের ছেলে তরিকুল ইসলাম গাজী (২১) ও পটুয়াখালী জেলার সুপখালী গ্রামের মৃত ওয়াজেদ খানের ছেলে সুবেল খান (২২)। আহতদের সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতারকৃত ডাকাতরা হলো পাটকেলঘাটা থানার কুমিরা আচিমতলা গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে আবুল কাসেম (৩০), তৈলকুপি গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে সুমন ইসলাম (২৮), সেনপুর গ্রামের আবু বক্কর সানার ছেলে নজরুল ইসলাম (৩৬) ও বান্দরবান জেলার লামা থানার লাহিনঝিরি গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে রবিউল ইসলাম (১৮)।

সাতক্ষীরা জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই বন্দুকযুদ্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানায়, রবিবার রাতে সড়কে গাছ ফেলে ডাকাতির সংবাদ পেয়ে পাটকেলঘাটা থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশের একটি দল যৌথভাবে সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় একদল ডাকাত পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ ও বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়। ডাকাতদের নিক্ষিপ্ত বোমার আঘাতে দুইজন পুলিশ সদস্য আহত হয়। এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলিবর্ষণ করে। ১০/১৫ মিনিট বন্দুকযুদ্ধের একপর্যায়ে ডাকাতদল অন্ধকারে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ গুলিবিদ্ধ চারজনসহ আটজনকে গ্রেফতার করে। পরে গুলিবিদ্ধদের সদর হাসপাতালে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাকাত আবু সাঈদকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পাটকেলঘাটা থানার ওসি তরিকুল ইসলাম জানান, নিহত ডাকাত সর্দার আবু সাঈদের বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা ও যশোর জেলার বিভিন্ন থানায় হত্যা ডাকাতিসহ ১১টি মামলা রয়েছে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: