ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০

বিশ্বজয়ী হাফেজ বশিরকে সংবর্ধনা দিলো ছাত্রলীগ

প্রকাশিত: ১৮:৪০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

বিশ্বজয়ী হাফেজ বশিরকে সংবর্ধনা দিলো ছাত্রলীগ

সংবর্ধনা 

ইরানে আয়োজিত বিশ্ব কুরআন প্রতিযোগিতায় ৮০টি দেশকে হারিয়ে প্রথম হওয়া বাংলাদেশের বিশ্বজয়ী হাফেজ বশির আহমেদকে সংবর্ধনা দিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।

সোমবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন প্রাঙ্গণে তাকে এ সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সংবর্ধনায় হাফেজ বশিকে একটি গিফট বক্স তুলে দেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাদ্দাম হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনান। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এমন সম্মাননা পেয়ে আনন্দিত বশির ও তার শিক্ষক মাওলানা হাফেজ নেছার আহমেদ নেছারী।

অনুভূতি প্রকাশ করে হাফেজ বশির বলেন, আলহামদুলিল্লাহ দেশবাসীর দোয়ায় আমি ইরানে কুরআন প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছি। কিছুদিন আগে আমি আলজেরিয়াতেও ৩য় স্থান অর্জন করেছিলাম। হাফেজদেকে সম্মানিত করার উদ্যোগ গ্রহণ করায় ছাত্রলীগকে ধন্যবাদ জানাই।

বশিরের শিক্ষক মাওলানা হাফেজ নেছার আহমেদ নেছারী বলেন, বশির মাত্র পাঁচ মাসে হিফজ সম্পন্ন করেছে। সে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার আগে খুব ভয় পাচ্ছিলো। আমি তাকে বলেছি তুমি ১৮ কোটি মানুষের ভার নিয়ে এসেছো। যেকোনো মূল্যে বাংলাদেশের পতাকাকে সম্মানিত করতেই হবে। তার স্বপ্ন হচ্ছে ইসলামিক স্কলার হওয়া এবং পবিত্র কাবা শরীফের ইমাম হওয়া।

তিনি আরও বলেন, বশির সারা বিশ্বে বাংলাদেশকে সম্মানিত করায় তাকে দেশের বিভিন্ন মহল থেকে সম্মানিত করা হচ্ছে। এই ধারা অব্যাহত রাখলে হাফেজরা আরও অনুপ্রাণিত হবে। বাংলাদেশের শিক্ষাব্যবস্থা উন্নত হবে, বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশের সম্মান বাড়বে। 

ছাত্রলীগ সভাপতি সাদ্দাম হোসেন বলেন, আমরা চাই দেশে একটি ইনক্লুসিভ শিক্ষা ব্যবস্থা ও ছাত্ররাজনীতি গড়ে উঠুক। মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার জন্য আমরা মাদ্রাসা শিক্ষা বিষয়ক কার্যক্রম চালু করেছি। তারা যেন প্রযুক্তির সুযোগ সুবিধা, কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা এবং দক্ষতা অর্জন করতে পারে সেজন্য বাংলাদেশ সরকার তাদের বিশ্বস্ত বন্ধু হয়ে কাজ করবে। 

শিক্ষার্থীদের আরবি ভাষা শেখার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আরবি ভাষা আমাদের জন্য একটি সম্ভাবনার দরজা খুলে দিতে পারে। আরবি ভাষা শিখতে পারলে মধ্যপ্রাচ্যের অনেক দেশেই শিক্ষার্থীদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত হবে যা দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করবে। 

আরবি ভাষাকে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শর্ট কোর্স চালুর গুরুত্বও তুলে ধরেন তিনি। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ছাত্রলীগের মাদ্রাসা বিষয়ক সম্পাদক জহিরুল ইসলামের সঞ্চালনায় ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালী আসিফ ইনানসহ ছাত্রলীগের বিভিন্ন শাখার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 

 

এস

×