ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

মেয়েদের টপস ও ফতুয়া

প্রকাশিত: ০৯:৪৭, ২৬ জুলাই ২০১৯

 মেয়েদের টপস ও ফতুয়া

এই গরমে শিশু, তরুণ-তরুণী কিংবা বড়দের জন্য পোশাক নির্বাচনে বাড়তি যত্ন নিতে হবে। এই প্রচ গরমের দিনে ঢিলেঢালা হালকা রঙের আরামদায়ক পোশাক বেছে নেয়াই ভাল। সবচেয়ে ভাল সাদা রঙের কাপড় পরিধান। এতে সূর্যের তাপ শোষণ হবে কম আর আপনার দেহ থাকবে শীতল। পোশাকের কাপড় হওয়া উচিত সুতি। এতে করে আপনার ঘাম শুকোবে তাড়াতাড়ি। তাছাড়া এমন কাপড় পরা উচিত যাতে ভেতরে বাতাস চলাচল করতে পারে। আর হালকা রং যেহেতু তাপ শোষণ করে না, তাই আপনি থাকবেন চনমনে ও ফুরফুরে। এই গরমে আরামপ্রদ পোশাক হিসেবে অনেকের কাছেই পলো কটন টপস্ পছন্দ, বিশেষ করে এই সময়ের তরুণীদের কাছে আরামদায়ক টপস্ বা ফতুয়া বাড়তি ফ্যাশন হিসেবেই বেশি ধরা দেয়। আর গরমের এ মুহূতে আরামদায়ক পোশাক হিসেবে টপস্ বা ফতুয়ার বিকল্প পোশাক আর অন্য কিছুই ভাবা যায় না। এছাড়া রং ও নক্সায় একটু ফ্যাশনসচেতন হলে পলো টপস্ বা ফতুয়া পরে অংশগ্রহণ করা যায় বিভিন্ন পার্টি, উৎসব কিংবা অনুষ্ঠানেও। অন্যদিকে টপস্ বা ফতুয়া মানিয়েও যায় জিন্স, গ্যাবাডিন কিংবা নরমাল অন্য প্যান্টের সঙ্গেও। আবার কেডস, কার, স্যান্ডেল কিংবা অন্য জুতাও আরামদায়ক টপস্ বা ফতুয়ার সঙ্গে মানিয়ে পরা যায়। সব মিলিয়েই টপস্ বা ফতুয়া আরামদায়ক, মানানসই এবং সেই সঙ্গে ফ্যাশনেবল এই সময়ের তরুণীদের কাছে। গরমে টপস্ বা ফতুয়া সবচেয়ে আদর্শ পোশাক। বাহারি রং, ব্লক, বাটিক প্রিন্টসহ প্রতিটি টপস্ বা ফতুয়া যেন একেকটি ডিজাইনারের রং-তুলির ক্যানভাস। সদ্য কিশোরী বা কিছু তরুণীরাও আছে যারা শাড়িতে তেমন একটা স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে না। আর পরার অভ্যাস নেই বলে বেশিক্ষণ শাড়ি পরে থাকতেও পারে না। তাই তরুণীদের পছন্দের তালিকায় ফতুয়া, টপস, স্লিভলেস, সালোয়ার কামিজের পাশাপাশি পলো টিশার্ট যেন অন্যরকম ফ্যাশনেবল পোশাক হিসেবে পরিচিত পেয়েছে সর্বাগ্রে। কাপড় হিসেবে নজর দিন আরামের দিকে। গরমে শিশুদের জন্য সুতি পোশাকের বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না। এর পাশাপাশি টিশার্ট, পলো টিশার্ট চলতে পারে বিভিন্ন রঙের ও ডিজাইনের। আবার আধুনিক পাশ্চাত্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আরামদায়ক কাপড়ে তৈরি টপস্ বা ফতুয়া গুলোতে শিশুর আরামকে প্রাধান্য দেয়া হচ্ছে। ফলে পলো এর কদরও বেড়েছে বেশ। উৎসবে-অনুষ্ঠানে টপস্ বা ফতুয়া এই গরমে তরুণ-তরুণীদের জন্য পার্টি, বিভিন্ন উৎসবে-অনুষ্ঠানে পোশাকের জন্য কাটছাঁট একটু বদলে ফেললেই চলে। আরামদায়ক টপস্ বা ফতুয়া কিন্তু ফতুয়া, স্লিভলেস সালোয়ার-কামিজ, ফ্রক এর বিকল্প হতে। মাঝে মাঝে গ্যাবাডিন, থ্রি- কোয়ার্টার প্যান্ট, জিন্সের সঙ্গে টপস্ বা ফতুয়া পরলে আরাম পাওয়া যায়। বিভিন্ন অনুষ্ঠানে, বন্ধুদের আড্ডায়, বৈশাখে-পাবণে, ভ্রমণে কিংবা অফিসেও টপস্ বা ফতুয়া মানিয়ে যায় ব্যক্তিত্বের সঙ্গে। ফ্যাশন হাউস ঘুরে আজিজ সুপার মার্কেটসহ বিভিন্ন স্থানের ফ্যাশন হাউস ঘুরে টপস্ বা ফতুয়ার সম্পর্কে বিশদ ধারণা পাওয়া যায়। ‘এই সময়ে অনেক তরুণী টপস্ বা ফতুয়া পছন্দ করে, আর আরামপ্রিয় ও ফ্যাশন সচেতন তরুণ-তরুণীরা গরমে টপস্ বা ফতুয়া পরতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে। পলো এর রং, ছাপা, আরামদায়ক, স্বাস্থ্যসম্মত কিনা এসব বিষয় মাথায় রেখেই এই গরমে সেইভাবে দোকান সাজানো হয়। এসব উন্নত মানের টপস্ বা ফতুয়ার ছাপা ও রং এমনভাবে করা যাতে গরমের অনুভবটা একটু কমই মনে হবে’, বললেন আজিজ সুপার মার্কেটের একজন ফ্যাশন হাউস কর্ণধার। ওয়ারীতে অবস্থিত ফ্যাশন হাউসের মালিক কথা প্রসঙ্গে বলেন, ‘গরমে হালকা রঙের আরামদায়ক পোশাকই সবার পছন্দ। টিনএজার ছেলেরা পলো টপস্ বা ফতুয়ার সঙ্গে পাতলা ডেনিম বাকালার টুইল এবং মেয়েরা ঢিলেঢালা হারেম প্যান্টের সঙ্গে ম্যাচিং যেমন মানিয়ে যাবে তেমন গরমে প্রশান্তিও এনে দেবে। এই গরমে পলো টিশার্ট পরে অনায়াসে চলাফেরা করা যায়, যাওয়া যায় ক্যাম্পাসে কিংবা ভ্রমণে। তবে পলো টিশার্ট পরার ক্ষেত্রে এর রং, নক্সা ও আরামের দিকে একটু খেয়াল রাখা উচিত।’ ধানমি তে টপস্ বা ফতুয়ার কেনাকাটায় ব্যস্ত একজন তরুণী কথা প্রসঙ্গে বললেন। ফ্যাশন হাউসগুলোর অবস্থান বেশিরভাগ ফ্যাশন হাউসগুলো আজিজ সুপার মার্কেট, ইনফিনিটি,নিউ এলিফ্যান্ট রোড, ওয়ারী, বসুন্ধরা সিটি, উত্তরা, ধানমন্ডিতে অবস্থিত। এছাড়াও ঢাকা কলেজের সামনে, নিউমার্কেট এলাকায়, বায়তুল মোকাররম মার্কেটের সামনে, গুলিস্তান মোড়ে, ফার্মগেটসহ বিভিন্ন স্থানে অস্থায়ী অনেক দোকানেও নানা রঙ ও নক্সার টপস্ বা ফতুয়া কেনা যাবে। দরদাম এবারের গরমে আজিজ সুপার মার্কেটের বিভিন্ন পোশাকের দোকানে বিভিন্ন অফার ও ছাড় চলছে। শাহবাগের আজিজ সুপার মর্কেটের ফ্যাশন হাউস ফানুস, লণ্ঠন, অতঃপর, বেল, মেঘ, নিত্য উপহার, পৌষ, যোগী, নোঙর, সমীকরণ, বালুচর, ইজিসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসেও এ সময়ের জন্য নানা রং ও নক্সার টপস্ বা ফতুয়া আনা হয়েছে। এসব কেনা যাবে ৪৫০ থেকে ১৫৫০ টাকায়। এছাড়াও ফ্যাশন হাউস লা-রিভ, ক্যাটস আই, ইনফিনিটি,মেনজক্লাব, প্লাস পয়েন্ট, ওয়েস্টিন, টেক্সমার্ট, জেন্টেল পার্ক, ইস্টওয়ে, ইনফিনিটি, মোস্তফা মার্ট, স্মাটেক্সসহ বিভিন্ন ফ্যাশন হাউসে এ সময় নানা রং ও নক্সার টপস্ বা ফতুয়াএসেছে। এসব হাউসের গুলো কেনা যাবে ৭০০ থেকে ২৫০০ টাকায়। ফ্যাশন ডেস্ক ছবি : চন্দন পোশাক : ইনফিনিটি মডেল : নিশা নওশিন মেকআপ : আল আমিন স্টাইলিং : জাহাঙ্গীর আলম
monarchmart
monarchmart