ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০

নির্বাচনে প্রধান দুই দলকে টপকে বহিরাগত প্রার্থীর জয় 

প্রকাশিত: ১৫:৫৮, ২০ নভেম্বর ২০২৩

নির্বাচনে প্রধান দুই দলকে টপকে বহিরাগত প্রার্থীর জয় 

ছবি: সংগৃহীত।

ঐতিহাসিক জয় পেয়েছেন স্বাধীনতাবাদী বহিরাগত প্রার্থী জ্যাভিয়ের মিলেই। আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটের লড়াইয়ে তিনি হারিয়ে দিয়েছেন দেশটির ঐতিহ্যবাহী দুটি রাজনৈতিক জোটকে। 

রবিবারের (১৯ নভেম্বর) ফলাফলে দেখা যায়, নির্বাচনে ৫৬ শতাংশ ভোট পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রপন্থি মিলেই। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পেরোনিস্ট নেতা সার্জিও মাসা পেয়েছেন ৪৪ শতাংশ ভোট।

আরও পড়ুন : ২৩১ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

এরই মধ্যে নির্বাচনে পরাজয় স্বীকার করে নিয়েছেন মাসা। এক ভাষণে তিনি নতুন প্রেসিডেন্টকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, স্বাধীনতাবাদী নেতাকে এখন দেশ শাসনের জন্য প্রস্তুতি দেখাতে হবে। আগামীকাল থেকে নিশ্চয়তা প্রদানের দায়িত্ব তার।

আর্জেন্টিনার রাজনীতিতে জ্যাভিয়ের মিলেইর উত্থান বেশ আশ্চর্যজনক। ৫৩ বছর বয়সী এ নেতা একাধারে অর্থনীতিবিদ, লেখক ও টিভি আলোচক।

দক্ষিণ আমেরিকান দেশটির রাজনীতিতে বছরের পর বছর ধরে বামপন্থি পেরোনিস্ট এবং ডানপন্থি টুগেদার ফর চেঞ্জ জোটের যে আধিপত্য চলছিল, তা গুঁড়িয়ে দিয়েছেন বহিরাগত মিলেই।

কনসালটেন্সি অবজারভেটরিও ইলেক্টোরালের পরিচালক জুলিও বার্ডম্যানের মতে, এই নির্বাচনে আর্জেন্টিনার রাজনৈতিক প্রতিনিধিত্ব ব্যবস্থার গভীর বিপর্যয় স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।

দীর্ঘদিন ধরে অর্থনৈতিক সংকটে টালমাটাল আর্জেন্টাইনরা, বিশেষ করে তরুণ ভোটাররা শাসন ব্যবস্থায় নতুনত্ব চাচ্ছিলেন। তারই প্রতিফলন ঘটেছে নির্বাচনের ফলাফলে।

জ্যাভিয়ের মিলেই দেশে অর্থনৈতিক শক থেরাপির প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তার পরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বন্ধ করা, খরচ কমানো, আর্থিক নীতিতে বড় ধরনের সংস্কার প্রভৃতি।

রবিবার ভোট দেওয়ার সময় ৩১ বছর বয়সী রেস্তোরাঁ-কর্মী ক্রিশ্চিয়ান বলেন, মিলেই নতুন এবং অজানা। এটি হয়তো কিছুটা ভীতিকর। তবে এখন নতুন পৃষ্ঠায় যাওয়ার সময় হয়েছে।

নির্বাচনে মিলেইয়ের জয় আর্জেন্টিনার রাজনৈতিক ল্যান্ডস্কেপ এবং অর্থনৈতিক রোডম্যাপে বড় ধরনের পরিবর্তন আনতে পারে। এতে প্রভাবিত হতে পারে শস্য, লিথিয়াম ও হাইড্রোকার্বন বাণিজ্য।

নির্বাচনী প্রচারণার সময় মিলেই চীন ও ব্রাজিলের সমালোচনা করেছেন। বলেছেন, তিনি কমিউনিস্টদের সঙ্গে খাতির করবেন না। পরিবর্তে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক আরও শক্তিশালী করার পক্ষে এ নেতা।

সমালোচনা সত্ত্বেও অবশ্য আর্জেন্টিনার নতুন প্রেসিডেন্টকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট লুইস ইনাসিও লুলা ডি সিলভা। বলেছেন, গণতন্ত্রকে সম্মান করা হয়েছে, সেটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

সূত্র: রয়টার্স

টিএস

×