ঢাকা, বাংলাদেশ   মঙ্গলবার ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

ফোনালাপে লয়েড অস্টিনকে সের্গেই শোইগু

মার্কিন আচরণ উস্কানিমূলক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:২৬, ১৬ মার্চ ২০২৩

মার্কিন আচরণ উস্কানিমূলক

অস্টিন ও শোইগু

কৃষ্ণসাগরে যুক্তরাষ্ট্রের একটি নজরদারি ড্রোন রাশিয়া ধ্বংস করে দেওয়ার পরদিন দেশ দুটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী ও সামরিক প্রধানরা টেলিফোনে কথাবার্তা বলেছেন। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, ইউক্রেনে রাশিয়ার আক্রমণ নিয়ে কয়েক দশকের মধ্যে দুই দেশের সম্পর্ক সবচেয়ে তলানিতে নামার পর বুধবার বিরল এই ফোনালাপ হয়। ওয়াশিংটনের শীর্ষ জেনারেল জানিয়েছেন, রাশিয়ার জঙ্গি বিমানের বাধার পর মার্কিন নজরদারি ড্রোন বিধ্বস্ত হওয়ার মাধ্যমে মস্কোর বাড়তে থাকা আক্রমণাত্মক আচরণ প্রদর্শিত হয়েছে। অপরদিকে রাশিয়া ওয়াশিংটনকে সতর্ক করে বলেছে, ক্রিমিয়ার কাছে ড্রোন উড়ানো উত্তেজনা বাড়ানোর ঝুঁকি তৈরি করবে। 
রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তাদের প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী লয়েড অস্টিনকে বলেছেন, ক্রিমিয়ার উপকূল দিয়ে আমেরিকার ড্রোন ফ্লাইট পরিচালনা ‘উস্কানিমূলক আচরণ’ এবং এতে ‘কৃষ্ণসাগর অঞ্চলে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেতে পারে।’ এই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘এ ধরনের উত্তেজনা বৃদ্ধিতে রাশিয়ার কোনো আগ্রহ নেই, কিন্তু ভবিষ্যতে (তারা) যথাযথ অনুপাতে প্রতিক্রিয়া দেখাবে।’ 
২০১৪ সালে রাশিয়া তার অংশ করে নেওয়ার আগ পর্যন্ত ক্রিমিয়া উপদ্বীপ ইউক্রেনের অংশ ছিল। শোইগুর সঙ্গে কী আলাপ হয়েছে তার বিস্তারিত জানাতে রাজি হননি অস্টিন। কিন্তু এক সংবাদ সম্মেলনে আবার বলেছেন, আন্তর্জাতিক আইন যেখানে অনুমোদন করে সেখানে ওড়া অব্যাহত রাখতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। এর পাশাপাশি রাশিয়ার আকাশযানগুলোকে নিরাপদ ও পেশাদারি ধরন বজায় রাখতে হবে বলে দাবি জানিয়েছেন তিনি। 
রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, দুই দেশের সংকটের সময় সামরিক লাইনে যোগাযোগ করাসহ ‘সর্বোচ্চ দায়িত্ব নিয়ে কাজ করা’ উচিত। পেন্টাগনের সংবাদ সম্মেলনে অস্টিনের পাশে যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর জয়েন্ট চিফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান মার্ক মিলি উপস্থিত ছিলেন। মিলি পৃথক এক কলে রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব জেনারেল স্টাফ ভ্যালেরি গেরাসিমভের সঙ্গে কথা বলেছেন। 
বিধ্বস্ত হওয়া ড্রোন পুনরুদ্ধার চ্যালেঞ্জিং হবে ॥ রাশিয়ার যুদ্ধবিমানের মুখোমুখি হয়ে বিধ্বস্ত হওয়া মার্কিন ড্রোনটি পুনরুদ্ধার করা চ্যালেঞ্জিং হবে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বৃহস্পতিবার ইউএস জয়েন্ট চিফ অব স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি বলেছেন, দুর্ঘটনাস্থলে রাশিয়ান জাহাজ রয়েছে বলে খবর প্রকাশিত হয়েছে।
মার্ক মিলি বলেছেন, ক্রুবিহীন এমকিউ-৯ রিপার ড্রোনের অবশিষ্টাংশ ১২১৯ থেকে ১৫২৪ মিটার গভীর পানিতে ডুবে গেছে।
‘এটি সম্ভবত উল্লেখযোগ্য গভীরতায় ডুবে গেছে। তাই প্রযুক্তিগত দৃষ্টিকোণ থেকে যে কোনো পুনরুদ্ধার অপারেশন খুব কঠিন হবে।’
এর আগে বুধবার সাংবাদিকদের তিনি বলেছিলেন, ড্রোনের ধ্বংসাবশেষের আকার সম্পর্কে নিশ্চিত হতে কয়েক দিন সময় লাগবে।
এদিকে রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের সেক্রেটারি নিকোলাই পাত্রুশেভ বুধবার রসিয়া-১ টিভি চ্যানেলকে বলেছেন, মার্কিন গুপ্তচর ড্রোন পুনরুদ্ধারে রাশিয়া চেষ্টা করবে।
তিনি বলেন, ‘আমি জানি না আমরা এটি পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হব কি না। তবে এটি করতে হবে। আমরা অবশ্যই এটি পুনরুদ্ধারে কাজ করব। আশা করি, অবশ্যই সফল হব।’
পাত্রুশেভের এমন বক্তব্যের প্রসঙ্গে মিলি বলেন, রাশিয়া ড্রোনটি উদ্ধার করলে সংবেদনশীল তথ্যের কোনো ক্ষতি যেন না হয়, সেটি নিশ্চিত করতে যুক্তরাষ্ট্র ব্যবস্থা নিয়েছে।
পাত্রুশেভ আরও বলেছিলেন, ড্রোনের ঘটনা প্রমাণ করেছে যে, ইউক্রেনের যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি জড়িত। এটি আরেকবার নিশ্চিত করা হলো। -বিবিসি/সিএনএন/আলজাজিরা

×