ঢাকা, বাংলাদেশ   বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

ইউক্রেনের ইইউ সদস্যপদ নিয়ে শীর্ষ বৈঠক আজ

কিয়েভে ইসি প্রেসিডেন্ট

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১:০৬, ২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

কিয়েভে ইসি প্রেসিডেন্ট

ইসি প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লিয়েন বৃহস্পতিবার কিয়েভে পৌঁছলে ইউক্রেনের কর্মকর্তা তাকে আন্তরিক অভ্যর্থনা জানান

ইউক্রেনের প্রতি সমর্থন জানাতে কিয়েভ সফরে গেছেন ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ভন ডের লিয়েন। গত বছরের ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে হামলা করে রাশিয়া। তাই যুদ্ধের এক বছর পূর্তিতে বাকি আছে মাত্র ২২ দিন। শুক্রবার কিয়েভে ইউক্রেনের ইইউ সদস্যপদ সংক্রান্ত এক শীর্ষ বৈঠকে যোগ দেবেন তিনি। খবর আলজাজিরার।
কিয়েভ রেলওয়েস্টেশনে দাঁড়ানো একটি ছবি টুইটারে পোস্ট করে তিনি জানিয়েছেন, আমরা এখানে একসঙ্গে এসেছি ইইউ বরাবরের মতোই দৃঢ়ভাবে ইউক্রেনের পাশে আছে তা দেখাতে এবং আমাদের সমর্থন ও সহযোগিতাকে আরও গভীর করার জন্য।
ভন ডের লেইন ও ইউরোপীয় কাউন্সিলের সভাপতি চার্লস মিশেলের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে দেখা করার কথা রয়েছে। এদিকে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেছেন, নিজেদের প্রতিরক্ষায় রাশিয়া বর্তমানের চেয়ে আরও শক্তশালী হয়ে উঠবে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের একটি শীর্ষস্থানীয় ড্রোন প্রস্তুতকারী কোম্পানি জেনারেল অ্যারোনটিক্যাল সিস্টেম ইউক্রেনকে মাত্র ১ ডলারে সামরিক নজরদারির ও ছোট হামলা চালাতে সক্ষম এমন দুটি অত্যাধুনিক ড্রোন দিতে চেয়েছে।
জেনারেল অ্যাটোমিক অ্যারোনটিক্যাল সিস্টেমস বলে, তারা কয়েক মাস ধরে ইউক্রেনের কাছে তাদের শক্তিশালী গ্রে ঈগল ও রিপার ড্রোন বিক্রির অনুমোদন দেওয়ার জন্য ওয়াশিংটনকে অনুরোধ জানিয়ে আসছে। মার্কিন বাহিনী এসব ড্রোনের মাধ্যমে আফগানিস্তান, সিরিয়া, ইরাকসহ অন্যান্য সংঘাতপূর্ণ অঞ্চলে নজরদারি ও লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালাতে সফল হয়েছে।২৪ ফেব্রুয়ারি ফের হামলা শুরু করতে পারে রাশিয়া ॥ ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওলেক্সি রেজনিকোভ বলেছেন, রাশিয়া বড় হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তিনি সতর্কতা দিয়েছেন, গত বছরের মতো এ বছরও ২৪ ফেব্রুয়ারিই দ্বিতীয়বারের মতো বড় হামলা শুরু করতে পারে রুশ সেনারা।
রেজনিকোভ আরও বলেছেন, মস্কো কয়েক হাজার সেনা জড়ো করেছে। এখন তারা গত বছরের হামলার বর্ষপূর্তি উপলক্ষে ‘কিছু করার চেষ্টা করবে।’ ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি জল, স্থল ও আকাশ থেকে একসঙ্গে ইউক্রেনের ওপর হামলা চালায় রাশিয়া। আর মাত্র ২০ দিন পর এ হামলার এক বছর পূর্ণ হবে। ইউক্রেনীয় মন্ত্রী দাবি করেছেন, নতুন হামলার জন্য রাশিয়া এখন প্রায় ৫ লাখ সেনা জড়ো করেছে।
এদিকে ২০২২ সালের সেপ্টেম্বরে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ৩ লাখ রিজার্ভ সেনা প্রস্তুত  করার ঘোষণা দেন। ওই সময় তিনি বলেছিলেন ‘রাশিয়ার অখ-তা’ রক্ষায় সেনা সমাবেশ জরুরি। তবে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, ৩ লাখ রিজার্ভ সেনা জড়ো করার কথা বলা হলেও প্রকৃতপক্ষে এটি অনেক বেশি। বর্তমানে ফ্রান্স সফরে থাকা ইউক্রেনের মন্ত্রী ফরাসি সংবাদমাধ্যম বিএফএম নেটওয়ার্ককে বলেছেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে তারা ৩ লাখ সেনার কথা বলেছে। কিন্তু আমরা যখন সীমান্তে তাদের সেনাদের দেখি তখন দেখি এটি অনেক বেশি।

আমাদের কাছে থাকা তথ্য অনুযায়ী, ৩ লাখেরও বেশি সেনা জড়ো করেছে তারা।’ শীতকাল আসার পর রাশিয়া-ইউক্রেন দুই দেশের সেনারাই হামলা ও পাল্টা হামলা প্রায় বন্ধ করে দেন। কিন্তু বসন্তে রাশিয়া আরেকবার বড় হামলা চালাবে এটি ধারণা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক যুদ্ধ বিষয়ক সংস্থা ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব ওয়ার (আইএসডব্লিউ) সাম্প্রতিক সময়ে জানিয়েছে, ‘রাশিয়া বড় সিদ্ধান্ত নিতে পারে’ এবং ইউক্রেনের পূর্ব দিকে ‘বড় হামলা’ চালাতে পারে। তবে ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, রাশিয়ার কথিত আসন্ন হামলা নিয়ে তাদের কমান্ডাররা প্রস্তুতি নিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, ‘আমার বিশ্বাস আছে ২০২৩ সালটি আমাদের সামরিক বিজয়ের বছর হতে পারে।’ তিনি জানিয়েছেন, সাম্প্রতিক সময়ে ইউক্রেনীয় সেনারা যুদ্ধক্ষেত্রে যে সফলতা পেয়েছেন সেটি বৃথা যেতে দেওয়া হবে না। এদিকে ইউক্রেনের গোয়েন্দারা দাবি করেছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন তার সেনা কমান্ডারদের নির্দেশ দিয়েছেন বসন্তের মধ্যে পূর্বদিকে অবস্থিত ‘দনবাস’ পুরো দখল করতে হবে।
তবে সামরিক জোট ন্যাটোর মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ বলেছেন, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন শুধু দনবাস দখল করার লক্ষ্য নির্ধারণ করেছেন এমন কোনো ইঙ্গিত তাদের কাছে নেই। তার দাবি, ইউক্রেনের অন্যান্য অঞ্চলেও হামলা চালানোর জন্য রাশিয়া এখনো নতুন অস্ত্র তৈরি, অস্ত্র সংগ্রহ ও সেনা সমাবেশ করে যাচ্ছে।

×