ঢাকা, বাংলাদেশ   বুধবার ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৬ মাঘ ১৪২৯

monarchmart
monarchmart

শীতে ত্বকের রোগ দাদ

ডা. জাহেদ পারভেজ

প্রকাশিত: ০১:০৬, ২৯ নভেম্বর ২০২২

শীতে ত্বকের রোগ দাদ

দাদ ত্বকের একটি সংক্রমণ রোগ

দাদ ত্বকের একটি সংক্রমণ রোগ। শিশু থেকে বয়স্ক সকলেই আক্রান্ত হতে পারে। শীত এসে পড়েছে, শীতকালে এর প্রাদুর্ভাব বাড়ে। দাদকে রিং ওয়ার্মও বলা হয়। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় একে ‘ডার্মাটোফাইটোসিস’ বলে। আবার ‘জরহমড়িৎস’ ও ‘ঞরহবধ’ নামেও পরিচিত। এটা ত্বকের উপরে এক ধরনের ছত্রাকের সংক্রমণ। দাদ শরীরের যেকোনো অংশেই হতে পারে। এই চর্মরোগটি অত্যন্ত ছোঁয়াচে রোগ। তাই পরিবারের কারও এই রোগটি হলে সঙ্গে সঙ্গেই চিকিৎসা শুরু করতে হবে।
যেসব অংশে দাদ হয়
দাদ শরীরের যেকোনো অঙ্গের চামড়ায় হতে পারে। সংক্রামণের এক এক জায়গা অনুসারে দাদের আলাদা আলাদা নাম রয়েছে।
* টিনিয়া ক্রুরিস হলো কুঁচকির (মৎড়রহ) দাদ
* টিনিয়া ক্যাপাইটিস হলো মাথার দাদ
* টিনিয়া কর্পোরিস শরীরে(ঃৎঁহশ) বা হাত পায়ে দাদ
* টিনিয়া পেডিস (অ্যাথলেট’স ফুট) পায়ের পাতার দাদ
* টিনিয়া আঙ্গুয়াম এটা নখের দাদ
লক্ষণ:
দাদ হলে সাধারণত চামড়ার ওপর গোলাকার ক্ষতের সৃষ্টি হয়। এটি দেখতে অনেকটা চাকার মতো যার কিনারগুলো সামান্য উঁচু হয়। যতই দিন যায় চাকার পরিধি বাড়তে থাকে আর কেন্দ্রের দিকে বা ভেতরের দিকে ভালো হয়ে যেতে থাকে। ক্ষত স্থান কখনো খুসকির মতো হয়। কখনো কখনো পানি ভর্তি দানা ও পুঁজ ভর্তি দানা দেখা দেয়। ক্ষত স্থান খুব বেশি চুলকায়। মাথায় দাদ হলে আক্রান্ত স্থানের চুল পড়ে যায়। কোমরে বা কুচকিতে হলে চামড়া সাদা ও পুরু হয়ে যায়। নখে হলে নখ অস্বচ্ছ ও ভঙ্গুর হয়ে যায়। দাদ চুলকালে সেখান থেকে কষ পড়তে থাকে।
কেন হয়
সাধারণত ঘামে ভেজা শরীর, অপরিষ্কার- অপরিচ্ছন্ন শরীর, দীর্ঘ সময় ভেজা থাকে এমন শরীর, ত্বকে ক্ষত আছে এমন শরীর এই ছত্রাকগুলোর স্পোর দ্বারা আক্রান্ত হয়। এই ছত্রাকগুলোর সুপ্তিকাল ৩ থেকে ৫ দিন। অতিসহজেই এটি রোগী থেকে সুস্থ দেহে বিস্তার লাভ করতে পারে। রোগীর চিরুনি, তোয়ালে, বিছানা ইত্যাদি ব্যবহার করলে বা আক্রান্ত রোগীর জামাকাপড় পরিধান করলে এ রোগে আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা থাকে। আবার রোগাক্রান্ত পোষা বিড়ালের মাধ্যমে বেশি ছড়ায়।
কি করবেন
চিকিৎসার পদ্ধতিগুলো ছাড়াও নিজের জীবনধারার পরিবর্তন করেও দাদ নিয়ন্ত্রণ সম্ভব। স্বাস্থ্যকর অভ্যাসগুলো বজায় রাখলে এবং দৈনন্দিন জীবনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে শরীরের অন্যান্য অংশে অথবা অন্যদের দেহে দাদের সংক্রমণ এড়ানো যায়। সংক্রমিত স্থান স্পর্শ করার পর সাবান ও পানি দিয়ে হাত ধুয়ে নিন। যাতে সংক্রমণ দেহের অন্যত্র না ছড়ায়। সংক্রামিত স্থান পরিষ্কার রাখতে বারে বারে ধুয়ে নিন। প্রয়োজনে বোধে ত্বক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রাখা ভালো।

লেখক : সহকারী অধ্যাপক, ত্বক, চর্ম যৌন ও ট্রান্সপ্ল্যন্ট সার্জারি বিভাগ) শহীদ সরওয়ারার্দী হাসপাতাল।
যোগাযোগ-
ডাঃ জাহেদ’স এন্ড হেয়ার স্কিনিক,হাসপাতাল।সাবামুন টাওয়ার, গ্রীন রোড,পান্থপথ মোড়,পুলিশ বক্সের পাশে, ঢাকা।
০১৫৬৭-৮৪-৫৪-১৯,
০১৭৩০-৭১-৬০-৬০

monarchmart
monarchmart