রবিবার ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২২ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

এগিয়ে চলাকে স্তব্ধ করতে নানা ষড়যন্ত্র চলছে

  • সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণ আলোচনা

সংসদ রিপোর্টার ॥ রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে ক্ষমতাসীন ১৪ দলীয় জোটের জ্যেষ্ঠ নেতারা দেশে একটি অস্বাভাবিক সরকার আনতে বিএনপি-জামায়াতের দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্র সম্পর্কে দেশবাসীকে সজাগ ও সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, বিএনপির সাম্প্রতিক কার্যাবলীতেই স্পষ্ট যে তারা একটি অস্বাভাবিক সরকার এখানে চায়। বিএনপি-জামায়াত-হেফাজত-জঙ্গী এরা বদলায়নি, এরা পাকিস্তানপন্থার ধারক-বাহক, এদের আত্মা পাকিস্তানী। তাই দেশের অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলার চাকাকে স্তব্ধ করে দিতে নানা ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু দেশের জনগণ আবারও তাদের সকল দেশবিরোধী অপতৎপরতা রুখে দেবে।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বুধবার সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নেন সরকারী দলের সাবেক মন্ত্রী অধ্যাপক ডাঃ আ ফ ম রুহুল হক, সাবেক প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার, এনামুল হক, হাবিবুর রহমান, শাহে আলম, এ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর, আহসানুল ইসলাম টিটো, ডাঃ সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল, খাদিজাতুল আনোয়ার, শামীমা আখতার খানম, জাতীয় পার্টির ফখরুল ইসলাম, ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী, ওয়ার্কার্স পার্টির রাশেদ খান মেনন এবং জাসদের হাসানুল হক ইনু।

আলোচনায় অংশ নিয়ে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে সংবিধান পর্যালোচনায় আগামী অধিবেশনে বিশেষ কমিটি গঠনের দাবি জানিয়ে বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরে এই সংবিধানের পর্যালোচনা হওয়া প্রয়োজন। সংসদ নেতাকে অনুরোধ জানাই, তিনি যেন সংসদের আগামী অধিবেশনে সংবিধান পর্যালোচনার জন্য বিশেষ কমিটি গঠন করে দেন। যেখানে ধর্মীয় রাজনীতি থেকে শুরু করে সব বিষয়ে আমরা নতুন করে ভাবতে পারব।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে যে সংবিধান দিয়েছিলেন, তা সংসদীয় ব্যবস্থার অন্যতম শ্রেষ্ঠ সংবিধান। দুর্ভাগ্যজনকভাবে তার আমলেই এই সংবিধানের মৌল বিষয়গুলোর পরিবর্তন ঘটেছিল। আর সামরিক শাসকরা নিজেদের ক্ষমতার স্বার্থে এবং পাকিস্তানী রাজনীতি ফিরিয়ে আনতে ওই সংবিধানকে ভোঁতা ছুরি দিয়ে জবাই করেছিল। সংবিধানের দ্বাদশ ও পঞ্চদশ সংশোধনীতে সংবিধানের মৌল চরিত্র কিছুটা ফিরিয়ে আনলেও কিছু বিধি সরকার পরিচালনায় প্রধান নির্বাহীর একক নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠিত করেছে এবং সংবিধানকে ধর্মীয় রূপ দিয়েছে।

বিএনপির সমালোচনা করে সাবেক মন্ত্রী মেনন বলেন, নির্বাচন নিয়ে অনেক কথা হচ্ছে। বিএনপি সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে কেবল সরবই নয়, সরকার উৎখাতের স্লোগান দিচ্ছে। কিন্তু এসব নিয়ে কথা বলার সময় তারা নিজেদের দিকে তাকিয়ে দেখে না। ২০০৬ সালে দেড় কোটি ভুয়া ভোটার ও নিজের লোককে প্রধান উপদেষ্টা করার জন্য যে ষড়যন্ত্র করেছিল, তারই পরিণতিতে দেশকে আরেকটি সেনাশাসন দেখতে হয়েছে। জানি না এবার বিএনপির লক্ষ্য কী? কী তাদের উদ্দেশ্য? তারা নিশ্চয়ই খোলাসা করে বলছে না। কিন্তু কার্যাবলীতে স্পষ্ট তারা একটি অস্বাভাবিক সরকার এখানে চায়। তারা সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য একটি স্বাধীন নির্বাচন কমিশন, মনোনয়ন বাণিজ্য, অর্থ, ধর্ম ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপমুক্ত নির্বাচনী ব্যবস্থার কথা বলেন না। কারণ তারা এই ব্যবস্থাই বহাল রাখতে চায়। আমাদের বাম দাবিদার বন্ধুরা নির্বাচনী সংস্কারের কথা বললেও তাদের মূল দাবি এখন নির্বাচনকালীন সরকার। তাদের মধ্যে কেউ কেউ সরাসরি কেউ বা যুগপৎ সমন্বিত আন্দোলনের নামে তাদের সঙ্গে শরিক হবে, সেই আলামতও স্পষ্ট।

জাসদ সভাপতি ও সাবেক মন্ত্রী হাসানুল হক ইনু দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য শিক্ষার্থীদের সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষেপিয়ে তুলছেন এমন অভিযোগ করে বলেন, কিছু সমস্যা কাঁটার মতো পায়ে বিঁধছে। সরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসিদের কারও কারও কা-জ্ঞানহীন কথাবার্তা, আচার-আচরণ দুঃখজনক। এ ব্যাপারে সরকারের নজর দেয়া উচিত।

তিনি বলেন, মৌসুমে মৌসুমে জঙ্গী তা-ব, জঙ্গী হামলার ঘটনা ঘটেই চলেছে। এতে প্রমাণ হয় যে, হেফাজত-জামায়াত-জঙ্গী এরা বদলায়নি। এরা বাংলাদেশের রেজিস্ট্রার্ড বেইমান, পাকিস্তানপন্থার ধারক-বাহক। এদের আত্মা পাকিস্তানী। আর এদের প্রধান পৃষ্ঠপোষক হচ্ছে বিএনপি। তিনি বলেন, এই সাম্প্রদায়িক চক্র বাংলাদেশের ধর্মনিরপেক্ষতাকে হারাম বলে। আর ভারত, আমেরিকা, ইংল্যান্ডে গেলে তারা ধর্মনিরপেক্ষতাকে হালাল বলে। আরাম মনে করে। এই দ্বিমুখী চালবাজির রাজনীতি বন্ধ করা দরকার।

সাবেক এই তথ্যমন্ত্রী আরও বলেন, এটা প্রমাণ হয় যে, জঙ্গী হচ্ছে মাঠের ফ্যাক্টর। জামায়াত হচ্ছে ডিরেক্টর, বিএনপি হচ্ছে প্রডিউসার। সুতরাং এরা পাক রুহানি শক্তি দ্বারা পরস্পর সংযুক্ত। জেনেটিক্যালি সম্পর্কযুক্ত। তিনপক্ষকেই দমন ও বিদায় জানানো উচিত। উন্নয়ন হচ্ছে যেমন সত্যি, তেমনি বাংলাদেশপন্থা ও পাকিস্তানপন্থার যুদ্ধ চলছে তাও সত্য। হেফাজতের তা-ব, ধ্বংসযজ্ঞ ও এর ক্ষয়ক্ষতির ওপর শ্বেতপত্র প্রকাশের পাশাপাশি দুর্গাপূজার সময় সাম্প্রদায়িক হামলার ঘটনায় পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দেয়ার দাবি জানান তিনি।

জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম ইসি গঠনে সার্চ কমিটিতে সংসদ সদস্যদের অন্তর্ভুক্তির প্রস্তাব রেখে বলেন, লবিস্ট নিয়ে সরকার এখন তালিকা দিচ্ছে। এটা যেন ‘ডাকাতি হয়ে গেল, পরে পুলিশ এলো’ প্রবাদের মতো। দেশবিরোধী লবিস্ট নিয়োগের বিষয়টি সরকারের আগেই সবাইকে জানানো উচিত ছিল। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, দোষীদের আইনের আওতায় আনা হয় না।

জাতীয় পার্টির অপর সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরেও আমাদের দেশের রাজনৈতিক দলগুলো কখনো ঐকমত্যে পৌঁছতে পারেনি।

শীর্ষ সংবাদ:
ভারতের জাম্মু-কাশ্মিরে সুড়ঙ্গ ধসে ১০ জন নিহত         খুলনায় বিস্ফোরক মামলায় ২ জঙ্গীর ২০ বছরের কারাদণ্ড         সর্বনিম্ন ২৫ হাজার টাকা বেতন চান সরকারি কর্মচারীরা         বাজারে গ্যালে দাম হুইন্না কইলজাডা মোচড় মারে         বাংলাদেশিরা মালদ্বীপে বৈধ হওয়ার সুযোগ পাচ্ছেন         রাজধানীতে ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক         ঢামেকে ভর্তি ঢাবি শিক্ষার্থী         চার মাসে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত ৬ লাখ ৭৭ হাজার         হাজী সেলিম দুপুরে আত্মসমর্পণ করবেন         আট বিভাগে হতে পারে বৃষ্টি         দুশ্চিন্তায় কৃষক ॥ বোরো ধান কাটতে তীব্র শ্রমিক সঙ্কট         সিলেটে ৩৩২ কিমি সড়ক এখনও পানির নিচে         বিদ্যুত ও গ্যাসের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ আত্মঘাতী         দখল দূষণে কর্ণফুলীর আরও বিপর্যয়         টিকটক হৃদয়সহ ৭ বাংলাদেশীর যাবজ্জীবন         গাজীপুরে ট্রেন পিকআপ সংঘর্ষে নিহত ৩         এবার ডিমের বাজারও বেপরোয়া         হজযাত্রীদের বিনামূল্যে করোনা পরীক্ষা         সড়ক দুর্ঘটনায় এসআইসহ নিহত ৭         কালবৈশাখী ঝড় ও বজ্রপাতে পাঁচজনের মৃত্যু