সোমবার ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৫ অক্টোবর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা

টেকনাফে রেশন কার্ড নিয়ে রোহিঙ্গাদের মধ্যে অসন্তোষ

টেকনাফে রেশন কার্ড নিয়ে রোহিঙ্গাদের মধ্যে অসন্তোষ

স্টাফ রিপোর্টার, কক্সবাজার/ সংবাদদাতা, টেকনাফ ॥ টেকনাফের নয়াপাড়া নিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পে রেশন কার্ডকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভের চেষ্টা করছে পুরাতন রোহিঙ্গারা। ১৯৯২ সালে আসা পুরাতন এবং ২০১৭ সালে আসা নতুন রোহিঙ্গাদের 'ফুড কার্ড' সাদৃশ্য করায় পুরাতন রোহিঙ্গাদের মাঝে নতুন করে এ ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। পূর্বে পুরাতন রোহিঙ্গাদের 'ফুড কার্ড' আর নতুন রোহিঙ্গাদের 'ফুড কার্ড' এর মধ্যে ভিন্নতা ছিল। গত জুন মাসে নতুন-পুরাতন সব রোহিঙ্গাদের মাঝে সমপরিমাণ খাবার বিতরনের লক্ষ্যে পুরাতন রোহিঙ্গাদের 'ফুড কার্ড' ফেরত নিয়ে নতুন 'ফুড কার্ড' ইস্যু করার সিদ্ধান্ত নেয় শরনার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) এবং ইউএনএইচসিআর।

এদিকে নতুন ‘ফুড কার্ড’ অন্য ক্যাম্পের সমসাময়িক (২০১৭ সালে) আগত নতুন রোহিঙ্গাদের 'ফুড কার্ড' এর অনুরূপ হওয়ায় নয়াপাড়া নিবন্ধিত ক্যাম্পের পুরাতন রোহিঙ্গারা অদ্যাবদি নতুন ‘ফুড কার্ড’ গ্রহণ করেনি এবং এখনও পর্যন্ত জুলাই/২১ মাসের রেশন উত্তোলন করেনি। রবিবার ভোর থেকেই পুরাতন রোহিঙ্গারা পুলিশি বাঁধা উপেক্ষা করে নয়াপাড়া নিবন্ধিত ক্যাম্পে বিক্ষোভ প্রদর্শন করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। বর্তমানে সেখানে বিরাজ করছে টান টান উত্তেজনা।

নয়াপাড়া নিবন্ধিত ক্যাম্পের পুরাতন রোহিঙ্গাদের দাবি, নতুন রোহিঙ্গাদের 'ফুড কার্ড' এবং তাদের 'ফুড কার্ড' একই রকমেরর হতে পারেনা। আমরা নিবন্ধিত ক্যাম্পের পুরাতন রোহিঙ্গা এবং শরণার্থী। নবাগত রোহিঙ্গারা শুধুমাত্র উদ্বাস্তু। তারা শরণার্থীর মর্যাদা পায়নি এখনও। আমাদের সঙ্গে নতুন রোহিঙ্গাদের একই রকম মর্যাদা দেয়া হয়েছে। কোন ভাবেই এটা মেনে নেয়া যায়না। অন্যদিকে, শরনার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) এবং ইউএনএইচসিআর কর্তৃপক্ষ বলছে, ঝামেলা না বাড়িয়ে সব রোহিঙ্গাকে একই কার্ড দেয়া ভাল। ওই সিদ্ধান্তে অটল রয়েছে তারা। এহেন পরিস্থিতিতে বর্তমানে নিবন্ধিত রোহিঙ্গা শিবিরে পুরাতন রোহিঙ্গাদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে। গত কয়েকদিন ধরে তারা এ নিয়ে বিক্ষোভ করার চেষ্টা করলে তাদের ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) ক্যাম্পে ডেকে নিয়ে বুঝানোর চেষ্টা করা হয়। তারা যেন এ সিদ্ধান্ত মেনে নেয়।

জানা গেছে, উদ্ভুত পরিস্থিতি সমাধানে রোহিঙ্গা শিবিরে দায়িত্বরত সিআইসি এবং ইউএনএইচসিআর কর্তৃপক্ষ পুরাতন রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আলোচনা ও সব রকমের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। কক্সবাজার ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) এর অধিনায়ক এসপি মো: তারিকুল ইসলাম তারিক বিষয়টি নিশ্চিত করে জনকণ্ঠকে বলেন, রবিবার ভোর থেকেই পুরাতন রোহিঙ্গারা নয়াপাড়া নিবন্ধিত ক্যাম্পে বিক্ষোভ প্রদর্শন করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। তবে এপিবিএন সতর্ক অবস্থানে রয়েছে। শিবিরে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে পাহারা জোরদার করা হয়েছে।

শীর্ষ সংবাদ: