শনিবার ২২ ফাল্গুন ১৪২৭, ০৬ মার্চ ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আসমা আক্তার একজন ডিজিটাল উদ্যোক্তা

আসমা আক্তার একজন ডিজিটাল উদ্যোক্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ আসমা আক্তার রুমি Soft Touch Technology এর ফাউন্ডার। আমার ছোটবেলা কেটেছে কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার লাজৈর গ্রামে। বাবা মফিজউদ্দিন মুন্সীএকজন ব্যবসায়ী এবং মা সুফিয়া বেগম একজন গৃহিণী। আমরা সবাই জানি প্রত্যেকটা সৃষ্টির পিছনে থাকে কঠিন সংগ্রামের ইতিহাস। আমি যখন ক্লাস টেনে পড়ি তখন আমার বয়স ১৫ বছর, তখনই আমার মনে সফটওয়্যার কোম্পানির স্বপ্ন উঁকি দেয়। লেখাপড়ার পাশাপাশি আমি প্রযুক্তি ইন্ডাস্ট্রিতে ঝুঁকে পড়লাম। দেশীয় এবং বিদেশী প্রতিষ্ঠানের সফলতা দেখে অনুপ্রাণিত হয়ে আমি সিদ্ধান্ত নিলাম একটি সফটওয়্যার কোম্পানি গড়ে তোলার। আমার মনে সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানের স্বপ্ন অনেক প্রভাব বিস্তার করে। এভাবেই স্বপ্নের সঙ্গে বেড়ে উঠতে লাগলাম এবং পরিশেষে চূড়ান্তভাবে কম্পিউটার সাইন্স ইঞ্জিনিয়ারে ভর্তি হলাম। ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াকালীন অবস্থায় আমার বিয়ে হয় শামছুর রহমান মজুমদারের সঙ্গে। সেটিই আমার জীবনের টার্নিং পয়েন্ট ছিল কারণ আমার হাসব্যান্ডের ওসফটওয়্যার ইন্ডাস্ট্রির দিকে ঝোঁক ছিল এবং সেও কম্পিউটার সাইন্স ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করে। আমাদের দুজনের চিন্তাধারা একই দিকে ছিল। আমার এতদূর আসার পিছনে আমার হাসব্যান্ডের অবদান ছিল সবচেয়ে বেশি। এখন আমরা দুজন একসঙ্গেই কাজ করে যাচ্ছি। অনেক প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে আজকে আমার স্বপ্নের আইটি প্রতিষ্ঠান Soft Touch Technology দাঁড় করিয়েছি।

উদ্যোক্তা যাত্রা কবে শুরু হলো এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, স্বপ্ন এমন একটা জিনিস যা আমাদের সবার মনেই উঁকি দেয়। আমার ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম হয়নি। সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টে আমি যখন কাজ সবেমাত্র শুরু করি, তখন কেবল কাজ সম্পর্কে একটু ধারণা তৈরি হয়েছে মাত্র। তখনই একটা দারুণ মুহূর্ত উপস্থিত হলো আমার সামনে। বলতে পারেন এই ঘটনা আমাকে এগিয়ে নিয়ে গেল আমার লক্ষ্যের দিকে। হঠাৎ আমার কাছে বড় অংকের একটি সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টের অফার আসে। আমি সাহস করে কাজটা নিয়ে নিই এবং সঠিকভাবে সম্পন্ন করি। সাহস না থাকলে উদ্যোক্তা হওয়া যায় না এই অমোঘ সত্যের বাস্তবায়ন ঘটালাম। এরপর থেকে ধীরে ধীরে আমার কাজের গতি ও মনোবল বেড়ে গেল।

কাজ শেখার প্রতি এবং সেই সঙ্গে ওয়েবসাইট এবং সফটওয়্যার বানিয়ে নিজের আস্থা আর সাহসের পুরস্কার নিজেই নিজেকে দিলাম। কাজের পরিধি ধীরে ধীরে বাড়তে থাকায় তিনজন প্রোগ্রামার নিয়োগ দিয়ে Soft Touch Technology নামে সফটওয়্যার প্রতিষ্ঠানের অফিস উদ্বোধন করি।

আপনার প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বলুন, বর্তমানে কি কাজ করছেন \ আমরা ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, এসইও সার্ভিস এবং এপন্স ডেভেলপমেন্ট নিয়ে কাজ করছি। বর্তমানে আমরা দেশের গন্ডি পেরিয়ে এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকাসহ বিশ্বের প্রায় ২৫টি দেশে আমাদের সার্ভিস দিয়ে আসছি। আমার স্বপ Soft Touch Technology এর মাধ্যমে বিশ্বের প্রতিটি দেশে Touch করার। আমরা যেই সকল সার্ভিস দেই সেগুলোকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পৌঁছে দেওয়া। সেই লক্ষ্যে আমি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি। যে কোন প্রয়োজনে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন যে কেউ। আমাদের ওয়েবসাইট এবং সাপোর্ট নাম্বার: ০১৯৮৪৭৯৬৬০৮

শীর্ষ সংবাদ:
রামগড় স্থলবন্দর চালু শীঘ্রই, পর্যটন ও বাণিজ্যে অপার সম্ভাবনা         বিএনপির সরকার পতনের ঘোষণার একযুগ পার হয়ে গেছে ॥ কাদের         মোবাইল ব্যাংকিংয়ে ১০ কোটি গ্রাহকের মাইলফলক         ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন অপব্যবহার রোধে ব্যবস্থা নেয়া হবে ॥ আইনমন্ত্রী         প্রধানমন্ত্রী দেশকে মর্যাদার আসনে উন্নীত করেছেন ॥ কৃষিমন্ত্রী         বিষমুক্ত সবজি বিপ্লবের হাতছানি         করোনা সংক্রমণ রোধে কুয়েতে এক মাসের কার্ফু         নিত্যপণ্যের বাজারে মুরগির দাম অনেক বেড়েছে         তিন এয়ারলাইন্সের দায়িত্বহীনতার শিকার ৪শ’ যাত্রী         শহীদ ভারতীয় সেনাদের স্মরণে স্তম্ভ হবে ॥ মোজাম্মেল হক         মুজিববর্ষের সেরা করদাতার পুরস্কার পেলেন কাউছ মিয়া         আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল জলিলের মৃত্যুবার্ষিকী আজ         প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে পৃথিবীতে মর্যাদার আসনে উন্নীত করেছেন: কৃষিমন্ত্রী         ঢাকায় বিমানের নতুন উড়োজাহাজ ‘শ্বেতবলাকা’         কক্সবাজারে যে ১৪ ইউপিতে ১১ এপ্রিল নির্বাচন         দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় ৬ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬৩৫         আবারও হামলার হুমকি ক্রাইস্টচার্চ নূর মসজিদে         অবশেষে পরমাণু চুক্তি নিয়ে সুর নরম করলো ইরান         সিনেটে পাস হতে যাচ্ছে উদ্দীপনা বিল         সাব-এডিটরস কাউন্সিলের ফ্যামিলি ডে ২৮ মার্চ