রবিবার ১০ মাঘ ১৪২৭, ২৪ জানুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

আরও দুটি ওষুধ কোভিড-১৯ রোগীদের আশা দেখাচ্ছে জানিয়েছে গবেষণা

আরও দুটি ওষুধ কোভিড-১৯ রোগীদের আশা দেখাচ্ছে জানিয়েছে গবেষণা

অনলাইন ডেস্ক ॥ এক গবেষণায় এ তথ্য মিলেছে যে গুরুতর অসুস্থ কোভিড-১৯ রোগীদের ক্ষেত্রে রোশের আর্থ্রাইটিসের ওষুধ অ্যাকটেমরা বা সানোফির কেভজারা মৃত্যু হার এবং ইনটেনসিভ কেয়ারে থাকার সময় উল্লেখযোগ্য মাত্রায় কমিয়ে আনতে পারে ।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই গবেষণার ফলাফল এখনও সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের স্বাধীন পর্যালোচনার অপেক্ষায় আছে। গবেষণায় দেখা গেছে, ইমিউনোসাপ্রেসিভ ড্রাগ (রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে যা দমিয়ে রাখে) অ্যাকটেমরা ও কেভজারা গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কোভিড-১৯ রোগীদের মৃত্যুর হার ৮.৫ শতাংশ পয়েন্ট পর্যন্ত কমিয়ে আনতে পারে। এ গবেষণায় যুক্ত থাকা লন্ডন ইমপেরিয়াল কলেজের অধ্যাপক অ্যানটোনি গর্ডন বলেন, এর মানে হল, হাসপাতালে যাদের ওই দুটি ওষুধের মধ্যে মধ্যে একটি দেওয়া হয়েছে, তাদের প্রতি ১২ জনের মধ্যে বাড়তি একজনের জীবন বাঁচানো সম্ভব হয়েছে।

রয়টার্স লিখেছে, মানুষের হাতে থাকা কিছু ওষুধ যে কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় উপকারে লাগতে পারে, সেই আত্মবিশ্বাসকে মজবুত করবে এই গবেষণার ফলাফল।

গত এক বছরে ১৮ লাখের বেশি মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে নতুন করোনাভাইরাস। এ রোগের চিকিৎসার জন্য নির্দিষ্ট কোনো ওষুধ এখনও মানুষ তৈরি করতে পারেনি। আর এমন এক সময়ে এই গবেষণার তথ্য প্রকাশিত হল, যখন যুক্তরাজ্য আর দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক দুটি নতুন ধরন বহু দেশে ছড়িয়ে পড়ছে। হাসপাতালে রোগী বাড়তে থাকায় উদ্বিগ্ন যুক্তরাজ্য সরকার ইতোমধ্যে জানিয়েছে, হাসপাতালে গুরুতর অসুস্থ কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় ওই দুটি ওষুধ দেওয়ার বিষয়ে চিকিৎসকদের শিগগিরই নির্দেশনা দেওয়া হবে।

যুক্তরাজ্যের ডেপুটি চিফ মেডিকেল অফিসার জোনাথন ভ্যান-ট্যাম বলেছেন, প্রাণ বাঁচানোর পাশাপাশি হাসপাতাল ও আইসিইউ এর ওপর চাপ কমাতে এসব ওষুধ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

কোভিড-১৯ এর চিকিৎসায় আলাদা কোনো ওষুধ এখনও তৈরি না হওয়ায় অন্যান্য ওষুধের মধ্যে কোনগুলো এ রোগের উপশমে কাজে লাগতে পারে,তা নিয়ে কাজ চলছে বিভিন্ন দেশে। এর মধ্যে জেনেরিক স্টেরয়েড ডেক্সামেথাসোন এবং গিলিয়াডের অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ রেমডেসিভির কিছু দেশে গুরুতর কোভিড-১৯ রোগীদের চিকিৎসায় ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

রয়টার্স জানিয়েছে, অ্যাকটেমরা ও কেভজারা নিয়ে আন্তর্জাতিক গবেষণাটি চালানো হয়েছে গুরুতর অসুস্থ ৮০০ কোভিড-১৯ রোগীর ওপর। এ গবেষণার নাম দেওয়া হয়েছে রিম্যাপ-ক্যাপ ট্রায়াল। গবেষণায় দেখা গেছে, ওই দুটি ওষুধের যে কোনো একটি প্রয়োগের পর মৃত্যুর হার ৩৫.৮ শতাংশ থেকে কমে ২৭.৩ শতাংশে নেমে এসেছে।

তাছাড়া ওই দুটি ওষুধ দেওয়ার পর রোগীরা তুলনামূলকভাবে দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছেন। রোগীদের আইসিইউতে থাকার গড় সময় সাত থেকে দশদিন কমে এসেছে।

অ্যানটোনি গর্ডন বলেন, “সেরে ওঠার ক্ষেত্রে এটা একটা বড় পরিবর্তন। ওই দুটি ওষুধ জীবন বাঁচাতে পারে।”

করোনাভাইরাস আপডেট
বিশ্বব্যাপী
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
৯৮৮০৯৬১৭
আক্রান্ত
৫৩১৩২৬
সুস্থ
৭১০১৬৫৪৪
সুস্থ
৪৭৫৮৯৯
শীর্ষ সংবাদ:
স্বপ্নের নীড়ে নবযাত্রা ॥ সারাদেশে গৃহহীন ও ভূমিহীনদের আনন্দের দিন         সম্মুখসারির করোনা যোদ্ধাদের কথা         শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে         ২৭ জানুয়ারি টিকা দেয়া শুরু         প্রণোদনার মেয়াদ ও আকার বাড়ছে         নান্দনিক নগর গড়ব-রেজাউল, সেবক হতে চাই- শাহাদাত         ৮৫ হাজার কোটি টাকার প্লাস্টিক পণ্য রফতানির টার্গেট         করোনায় দেশে মৃত্যুর সংখ্যা ৮ হাজার ছাড়িয়েছে         মেঘনা নদীকে নিয়ে পূর্ণাঙ্গ মাস্টারপ্ল্যান তৈরির উদ্যোগ         বিএনপি-জামায়াতের প্রোপাগান্ডা স্কোয়াডের অপতৎপরতা         শীতের তীব্রতা আরও দুদিন থাকবে         নেতাজী ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করে এগিয়ে যেতে হবে         ৩৪ ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী         রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ৩ জন নিহত         চাল আমদানির এলসি খোলার সময়সীমা বাড়ল         শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে মানতে হবে যে ৪ ধাপ         গৃহহীন পরিবারকে গৃহ দিতে পারছি, এটিই আমার সবচেয়ে আনন্দের ॥ প্রধানমন্ত্রী         আগামী বুধবার থেকে বাংলাদেশে করোনার টিকাদান শুরু         সাগরে ট্রলারডুবি : ৪ লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ ১০         করোনা ভাইরাসে মৃত্যু ৮ হাজার ছাড়াল, নতুন শনাক্ত পাঁচশ’র নিচে