বুধবার ৭ মাঘ ১৪২৭, ২০ জানুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহৃত অস্ত্র বিক্রির ওপর হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ মুক্তিযুদ্ধে ব্যবহৃত আগ্নেয়াস্ত্রগুলো বিক্রি করার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে হাইকোর্ট। অন্যদিকে সাতক্ষীরায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় করা মামলা বাতিল প্রশ্নে রুল খারিজ করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছে আপীল বিভাগ। এর ফলে বিচারিক আদালতে এই মামলা চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। মঙ্গলবার আপীল ও হাইকোর্ট বিভাগের সংশ্লিষ্ট বেঞ্চ এ আদেশ প্রদান করেছে।

বিচারপতি মজিবুর রহমান ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ প্রদান করেছেন। এর আগে গত ১৫ নবেম্বর সুপ্রীমকোর্টের আইনজীবী জেড আই খান (পান্না) ও মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্র এ রিট দায়ের করেন। রিটের পক্ষের আইনজীবী শাহীনুজ্জামান, সৈয়দা নাসরিন জানান, আবেদনে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব, অর্থসচিব, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সচিব এবং বাণিজ্য সচিবকে বিবাদী করা হয়েছে।

আইনজীবীরা আরও জানান, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্যবহার করা অস্ত্র বিক্রি/আগ্নেয়াস্ত্র স্থানান্তর কার্যক্রম কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, জাতীয় ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য অবিলম্বে ওইসব অস্ত্র সংরক্ষণে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না এবং ওইসব অস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর বা প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক কোন সংগঠনের কাছে হস্তান্তরের কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারির আর্জি জানানো হয়। গত ৫ অক্টোবর একটি জাতীয় দৈনিকে ‘মুক্তিযুদ্ধের অস্ত্র বেচতে চায় সরকার’ শীর্ষক প্রকাশিত প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, মুক্তিযুদ্ধের সময় ব্যবহৃত হয়েছে, এমন আগ্নেয়াস্ত্রগুলো সরকার বেচে দিতে চায়। সরকারের যুক্তি হচ্ছে এগুলো পুরনো, অপ্রচলিত এবং যুদ্ধাস্ত্র হিসেবে অকার্যকর। ফলে রাখার কোন দরকার নেই। প্রাচীন নিদর্শন বা স্মৃতিচিহ্ন (এ্যান্টিক সুভ্যেনির) হিসেবে অস্ত্রগুলো কিনে নিতে আগ্রহ দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের দুটি ও সুইজারল্যান্ডের একটি অস্ত্র আমদানিকারক কোম্পানি।

শেখ হাসিনার বহরে হামলার

মামলা চলবে ॥ আপীল বিভাগ

সাতক্ষীরায় তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেতা ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় করা মামলা বাতিল প্রশ্নে রুল খারিজ করে হাইকোর্টের আদেশ বহাল রেখেছে আপীল বিভাগ। এর ফলে বিচারিক আদালতে এই মামলা চলতে বাধা নেই বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। মঙ্গলবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপীল বিভাগ এই আদেশ দেন। আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত এ্যাটর্নি জেনারেল এস এম মুনীর ও ডেপুটি এ্যাটর্নি জেনারেল সুজিত চ্যাটার্জি বাপ্পী। এর আগে এই মামলা বাতিল প্রশ্নে রুল খারিজ করে দেয় হাইকোর্ট। পরে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপীল বিভাগে আবেদন করেন এক আসামি।

একজন মুক্তিযোদ্ধার ধর্ষিত স্ত্রীকে দেখতে ২০০২ সালের ৩০ আগস্ট সাতক্ষীরার কলারোয়ায় যান আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা। সড়ক পথে ঢাকায় ফেরার পথে কলারোয়া উপজেলা বিএনপি অফিসের সামনে শেখ হাসিনার গাড়ি বহরে হামলার ঘটনা ঘটে। শেখ হাসিনাকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। বোমা বিস্ফোরণ ও গাড়ি ভাংচুরের ঘটনাও ঘটে। ২০১৫ সালে এ ঘটনায় আদালতে চার্জশীট দেয়া হয়। এর মধ্যে হত্যাচেষ্টা মামলায় এক আসামি রকিবের বয়স ঘটনার সময় ১০ বছর ছিল উল্লেখ করে হাইকোর্টে মামলা বাতিলে আবেদন করা হয়। ২০১৭ সালে ওই আবেদনের শুনানি নিয়ে হাইকোর্ট মামলা স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেন।

শীর্ষ সংবাদ:
সাকিব-হাসানে উইন্ডিজকে বিপর্যস্ত করল বাংলাদেশ         যুবলীগ চেয়ারম্যান করোনায় আক্রান্ত         বিদ্রোহীদের কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না ॥ সেতুমন্ত্রী         চাইলে বিএনপিকে আগে ভ্যাকসিন দিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে অনুরোধ করব ॥ তথ্যমন্ত্রী         আওয়ামী লীগ বাংলাদেশকে সমৃদ্ধির পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ॥ প্রধানমন্ত্রী         করোনা মহামারীর মধ্যেও থেমে নেই অর্থনৈতিক উন্নয়নের গতি         সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি         পিকে হালদারের ৮৩ সহযোগীর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ         প্রত্যাবর্তনে সাকিবের চমক         টেকনাফে অস্ত্রসহ পাঁচ সন্ত্রাসী রোহিঙ্গা আটক         ভারতে পাথর বোঝাই ডাম্পারের নিচে চাপা পড়ে ১৪ জনের মৃত্যু         দায়িত্বের চেয়েও বেশি কাজ করেছি ॥ বিদায়ী ভাষণে ট্রাম্প         ৪৬ তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে আজ শপথ নিচ্ছেন বাইডেন         নদী দখলের থাবা ॥ ৬৪ জেলায় দখলদার ৬৩ হাজার         প্রেসিডেন্ট হিসেবে আজ বাইডেনের অভিষেক         রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু এপ্রিল-মে মাসে         ভারতের উপহার ২০ লাখ ডোজ টিকা আসছে কাল