ঢাকা, বাংলাদেশ   শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০

সংক্রমণ বাড়ায় দানাংয়ের সব ফ্লাইট স্থগিত করেছে ভিয়েতনাম

প্রকাশিত: ১২:২০, ২৮ জুলাই ২০২০

সংক্রমণ বাড়ায় দানাংয়ের সব ফ্লাইট স্থগিত করেছে ভিয়েতনাম

অনলাইন ডেস্ক ॥ প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের অন্তত ১৪টি ঘটনা শনাক্ত হওয়ার পর ভিয়েতনামের পর্যটন শহর দানাং কেন্দ্রীক সব ফ্লাইট ১৫ দিনের জন্য স্থগিত করেছে কর্তৃপক্ষ। সোমবার রাতে দানাংয়ের একটি হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত আরও ১১ জনের দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি শনাক্ত হওয়ার পর মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে এ সিদ্ধান্তের কথা জানায় দেশটির সরকার। মঙ্গলবার থেকে দানাং কেন্দ্রীক সব বাস ও ট্রেন সার্ভিসও স্থগিত করা হয়েছে। এর আগে শনিবার কর্তৃপক্ষ তিন মাসেরও বেশি সময় পর স্থানীয় সংক্রমণের প্রথম ঘটনা নিশ্চিত করেছিল। এরপরই সংক্রমণ রোধে দেশটি ফের উচ্চ সতর্কাবস্থায় চলে যায়। তারপর রোববার আরও তিন জনের দেহে ভাইরাসটির সংক্রমণ ধরা পড়ে। এর সবগুলো ঘটনাই দানাং ও এর আশপাশে ঘটেছে। কর্তৃপক্ষ রোববার থেকে ফের শহরটিতে সামাজিক দূরত্ব বিধি চালু করে। ভিয়েতনামের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দানংয়ের সংক্রমিতদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা সঙ্কটজনক। সাড়ে নয় কোটি লোকের দেশ ভিয়েতনাম বিশ্বের সবচেয়ে জনবহুল দেশ যেখানে কোভিড-১৯ এ কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। কঠোর কেন্দ্রীয় কোয়ারেন্টিন ব্যবস্থাপনা এবং আগ্রাসী ও ব্যাপক শনাক্তকরণ পরীক্ষার মাধ্যমে ভিয়েতনাম করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা এ পর্যন্ত ৪৩১ জনে সীমাবদ্ধ রাখতে পেরেছে। তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে স্থানীয় সংক্রমণের ঘটনাও ঠেকিয়ে রাখতে সক্ষম হয়েছে। বিদেশি পর্যটকদের জন্য দেশটির দরজা বন্ধ থাকলেও সম্প্রতি স্থানীয় ভ্রমণকারীদের সংখ্যা বেড়ে গিয়েছিল। ডিসকাউন্ট ফ্লাইট ও স্থানীয় রিজোর্টগুলোর হলিডে প্যাকেজের সুবিধা নিতে ভ্রমণে ঝুঁকেছিল তারা। সোমবার দেশটির সরকার জানিয়েছিল, ৮০ হাজার লোককে (যাদের অধিকাংশই পর্যটক) সরিয়ে নিতে সহায়তা করতে দানাং ও ভিয়েতনামের অপর ১১টি শহরের মধ্যে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় বাড়াতে ভিয়েতনামের সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটিকে (সিএএভি) অনুরোধ করেছিল তারা। “এ ধরনের সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে,” মঙ্গলবার ফোনে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন সিএএভি-র উপপরিচালক ভো হুই কুয়ং। “দানাংয়ে আটকা পড়া পর্যটকদের সরিয়ে নিতে গতকাল আমরা ৯০টি ফ্লাইট পরিচালনা করেছি কিন্তু রোববারই অধিকাংশ পর্যটক শহরটি ছেড়ে গেছেন, তাদের অধিকাংশই বাস ও ট্রেনযোগে নিকটবর্তী প্রদেশগুলোতে চলে গেছেন,” বলেছেন কুয়ং।
×