মঙ্গলবার ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
প্রচ্ছদ
অনলাইন
আজকের পত্রিকা
সর্বশেষ

কোন মামলা হয় না ৮০ ভাগ সড়ক দুর্ঘটনায়

  • গত বছর ৫৫১৬ দুর্ঘটনায় ৭৮৫৫ জন নিহত ॥ যাত্রী কল্যাণ সমিতির প্রতিবেদন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ সারাদেশে গত বছর ৫ হাজার ৫১৬টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটেছে। এতে ৭ হাজার ৮৫৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১৩ হাজার ৩৩০ জন। এর আগের বছরের তুলনায় গত বছর দুর্ঘটনায় প্রাণহানির সংখ্যা বেড়েছে আট ভাগের বেশি। দুর্ঘটনার জন্য ১২ কারণ চিহ্নিত করা হয়েছে যাত্রী কল্যাণে নিয়োজিত নিরাপদ সড়ক নিয়ে কাজ করা এ সংগঠনের পক্ষ থেকে। জাতীয় ও আঞ্চলিক সংবাদপত্র এবং অনলাইন পোর্টালে প্রকাশিত প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে এ তথ্য জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

শনিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ক্রাইম রিপোর্টার্স এ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়। নতুন বছরের শুরু থেকে এ পর্যন্ত নৌ-সড়ক-রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটি, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন, রোড সেফটি ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে সড়ক দুর্ঘটনার বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। দুর্ঘটনার দিক থেকে তিন সংগঠনের পরিসংখ্যান ছাপিয়ে শীর্ষ অবস্থানে যাত্রী কল্যাণ সমিতির তথ্য।

সংবাদ সম্মেলনে যাত্রী কল্যাণ সমিতির মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, ২০১৯ সালের সড়ক দুর্ঘটনার সংখ্যা ছিল আগের বছর ২০১৮ সালের প্রায় সমান। কিন্তু ২০১৮ সালের তুলনায় গত বছর প্রাণহানির সংখ্যা ৮ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ বেড়েছে। গত বছরের সড়ক দুর্ঘটনায় শিকার মানুষদের মধ্যে ৯৮৯ জন বিভিন্ন যানবাহনের চালক, ৮৪৪ জন পরিবহন শ্রমিক ও ৮০৯ শিক্ষার্থী, ১১৫ শিক্ষক, ২১৬ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, ৮৯৪ নারী, ৫৪৩ শিশু, ৩৬ সাংবাদিক, ২৬ চিকিৎসক, ১৬ আইনজীবী ও প্রকৌশলী এবং ১৫৩ জন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীর পরিচয় মিলেছে।

গত বছর দুর্ঘটনার শিকার যানবাহনের মধ্যে ১৮ দশমিক ৯৯ শতাংশ ছিল বাস, ২৯ দশমিক ৮১ শতাংশ ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান ও ২১ দশমিক ৪ শতাংশ মোটরসাইকেল। মোজাম্মেল হক দাবি করেন, মোটরসাইকেল চলাচলে কঠোর নজরদারির কারণে দুর্ঘটনার হার আগের বছরের তুলনায় গত বছর ৪ দশমিক ২৬ শতাংশ কমেছে। তিনি আরও বলেন, ৮০ শতাংশ সড়ক দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে কোন মামলা হয় না। ২০ শতাংশ ক্ষেত্রে মামলা হলেও সাজা হয় মাত্র ১ শতাংশ।

সংবাদ সম্মেলনে যাত্রী কল্যাণ সমিতির পক্ষ থেকে সড়ক দুর্ঘটনার ১২টি কারণ এবং দুর্ঘটনা রোধে ১২টি সুপারিশ তুলে ধরা হয়। এই সংবাদ সম্মেলনে সড়ক নিরাপত্তাকে দেশের প্রধান সমস্যা হিসেবে উল্লেখ করে দুর্ঘটনা রোধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের পাশাপাশি নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক আবদুল হক, ড্রাইভারস ট্রেনিং সেন্টারের চেয়ারম্যান নূরনবী শিমু, যাত্রী কল্যাণ সমিতির সহসভাপতি মোঃ তাওহিদুল হক প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গত বছর রেলপথে ৪৮২টি দুর্ঘটনায় ৪৬৯ জন নিহত, ৭০৬ জন আহত হয়েছে। নৌপথে ২০৩টি দুর্ঘটনায় ২১৯ জন নিহত, ২৮২ জন আহত এবং ৩৭৫ জন নিখোঁজ হয়। সড়ক, রেল, নৌপথে সর্বমোট ৬ হাজার ২০১টি দুর্ঘটনায় ৮ হাজার ৫৪৩ জন নিহত এবং ১৪ হাজার ৩১৮ জন আহত হয়েছে।

সংঘটিত দুর্ঘটনায় সর্বমোট ৭ হাজার ৩৫৬টি যানবাহনের পরিচয় মিলেছে, যার ১৮ দশমিক ৯৯ শতাংশ বাস, ২৯ দশমিক ৮১ শতাংশ ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান, ৫ দশমিক ২২ শতাংশ কার-জিপ-মাইক্রোবাস, ৯ দশমিক ৩৫ শতাংশ সিএনজিচালিত অটোরিক্সা, ২১ দশমিক ৪ শতাংশ মোটরসাইকেল, ৮ দশমিক ৪ শতাংশ ব্যাটারিচালিত রিক্সা ও ইজিবাইক, ৭ দশমিক ৩২ শতাংশ নছিমন-করিমন-মাহিন্দ্রা-ট্রাক্টর ও লেগুনা সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে।

সংঘটিত মোট দুর্ঘটনার ৫৬ দশমিক ৩৫ শতাংশ গাড়ি চাপা দেয়ার ঘটনা উল্লেখ করে যাত্রী কল্যাণ সমিতি বলছে, ১৮ দশমিক ৩৬ শতাংশ মুখোমুখি সংঘর্ষ, ১৮ দশমিক ৭ শতাংশ খাদে পড়ে, ৫ দশমিক ৯১ শতাংশ বিবিধ কারণে, শূন্য দশমিক ৩৪ শতাংশ চাকায় ওড়না পেছিয়ে এবং শূন্য দশমিক ৯৭ শতাংশ ট্রেন-যানবাহন সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

২০১৮ সালের তুলনায় বিগত বছরে সড়ক দুর্ঘটনায় সংঘটিত যানবাহনের ৪ দশমিক ৩২ শতাংশ ব্যাটারিচালিত রিক্সা-ভ্যান-ইজিবাইক, ১ দশমিক ৫২ শতাংশ নসিমন-মাহিন্দ্রা-লেগুনা, ১ দশমিক ১৩ শতাংশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান-লরি, শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ বাসে দুর্ঘটনার হার বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিগত বছরের চেয়ে বিদায়ী বছরে সড়ক-মহাসড়কের উন্নয়নের ফলে যানবাহনের গতি বাড়ায় জাতীয় মহাসড়কে ৪ দশমিক ৪৭ শতাংশ, রেলক্রসিংয়ে শূন্য দশমিক ১১ শতাংশ সড়ক দুর্ঘটনা বৃদ্ধি পেলেও, আঞ্চলিক মহাসড়কে ২ দশমিক ১৫ শতাংশ, ফিডার রোডে ২ দশমিক ৪২ শতাংশ সড়ক দুর্ঘটনা কমেছে।

সমিতির পর্যবেক্ষণে, ২০১৯ সালে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনা সংঘটিত হয় ১৫ জুন এদিনে ৩১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২৭ জন নিহত ১২১ জন আহত হয়। এ বছর সবচেয়ে কম সড়ক দুর্ঘটনা সংঘটিত হয় ১৪ জুলাই এদিনে ২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত হয়। এ বছর একদিনে সবচেয়ে বেশি সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয় গত ৫ জুন এইদিনে ২২টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩৬ জন নিহত ৯৩ জন আহত হয়। একই বছর সবচেয়ে বেশি আহত হয় ১৫ আগস্ট এইদিনে ২১টি সড়ক দুর্ঘটনায় ৩০ জন নিহত ২২১ জন আহত।

দুর্ঘটনার ১২ কারণ

বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালনা, বিপজ্জনক ওভারটেকিং, রাস্তারত্রুটি, ফিটনেস বিহীন যানবাহন, যাত্রী ও পথচারীদের অসতর্কতা, চালকের অদক্ষতা, চলন্ত অবস্থায় মোবাইল বা হেড ফোন ব্যবহার, মাদক সেবন করে যানবাহন চালানো, রেলক্রসিং ও মহাসড়কে হঠাৎ ফিডার রোড থেকে যানবাহন উঠে আসা, রাস্তায় ফুটপাথ না থাকা বা ফুটপাথ বেদখলে থাকা, ট্রাফিক আইনের দুর্বল প্রয়োগ এবং ছোট যানবাহন বৃদ্ধি।

দুর্ঘটনা রোধে সুপারিশ

ডিজিটাল পদ্ধতিতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ কঠোরভাবে বাস্তবায়ন, টিভি চ্যানেল ও সংবাদপত্রসমূহে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ব্যাপক প্রচারের ব্যবস্থা, জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশ থেকে হাট-বাজার অপসারণ করা, ফুটপাথ বেদখল মুক্ত করা, দেশের সড়ক-মহাসড়কে রোড সাইন (ট্রাফিক চিহ্ন) স্থাপন করা। জেব্রাক্রসিং অংকন করা।, গণপরিবহন চালকদের প্রফেশনাল ট্রেনিং ও নৈতিক শিক্ষার ব্যবস্থা, যাত্রী, পথচারী ও গণপরিবহনবান্ধব সড়ক পরিবহন বিধিমালা প্রণয়ন, গাড়ির ফিটনেস ও চালকদের লাইসেন্স প্রদানের পদ্ধতি উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তালমিলিয়ে আধুনিকায়ন করা, সড়ক দুর্ঘটনায় আর্থিক সহায়তা তহবিল গঠনপূর্বক হতাহতদের চিকিৎসা ও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা, দেশব্যাপী চাহিদানুযায়ী পর্যাপ্ত মানসম্মত নতুন গণপরিবহন নামানোর উদ্যোগ নেয়া, ট্রাফিক পুলিশের কর্মকর্তা ও সদস্যদের প্রশিক্ষণের জন্য ট্রেনিং একাডেমি গড়ে তোলা, গণপরিবহনে সেবা ও নিরাপত্তার মান পর্যবেক্ষণের জন্য দেশের সকল মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, সচিব, জেলা প্রশাসকসহ জনপ্রতিনিধি ও সরকারী কর্মকর্তাদের প্রতি মাসে একদিন গণপরিবহন ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা ও সড়কে চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করা।

শীর্ষ সংবাদ:
একনেক সভায় ১০ প্রকল্পের অনুমোদন         করোনা : ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৫, শনাক্ত ২৯১         বাংলাদেশের সাথে বহুমুখী ‘কানেকটিভিটি’ বাড়াতে চাই         শ্যাডো ইকোনমিক সেক্রেটারি হলেন টিউলিপ সিদ্দিক         ওমিক্রন ॥ যুক্তরাষ্ট্রের ১৬ অঙ্গরাজ্যে শনাক্ত         ডা. মুরাদ পদত্যাগপত্রেও ভুল লিখলেন         জবির তিন ইউনিটের মেধাতালিকা প্রকাশ         ডেঙ্গু : আরও ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১১৯         ইয়েমেনের মারিব প্রদেশে ২৫ হুতি যোদ্ধা নিহত         আড়াইহাজারে গ্যাসের আগুনে দগ্ধ গৃহকর্তার মৃত্যু         বঙ্গোপসাগরে জাহাজের ধাক্কায় ট্রলার ডুবি জেলে হাফিজুর উদ্ধার         খুলনায় বীর মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে ডাকাতি ॥ মামলা দয়ের         প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছে দেশ ॥ লিটন         ফেসবুকের বিরুদ্ধে ১৫ হাজার কোটি ডলারের মামলা করল রোহিঙ্গারা         উখিয়ায় অস্ত্রসহ ৯ রোহিঙ্গা ডাকাত আটক         নাইকো দুর্নীতি ॥ খালেদার বিরুদ্ধে অভিযোগ শুনানি পেছাল         ক্যাটরিনার বিয়ের সঙ্গীতানুষ্ঠানে বাজানো হবেনা রণবীরের গান         ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে ক্ষমা চাইলেন ডা. মুরাদ         মন্ত্রণালয়ে পদত্যাগপত্র পাঠালেন প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ         বৈঠকে বসেছেন দুই পররাষ্ট্র সচিব